সাগর-রুনী হত্যার বিচার দাবিতে সাংবাদিক সমাবেশ

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে স্মারকলিপি

  যুগান্তর রিপোর্ট ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

সাংবাদিক দম্পতি সাগর-রুনী হত্যাকাণ্ডের বিচার দাবিতে সমাবেশ করেছেন সাংবাদিকরা। রোববার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) সামনে সমাবেশ শেষে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে স্মারকলিপি দেন তারা।

সমাবেশে ডিআরইউর সভাপতি সাইফুল ইসলাম প্রশ্ন রেখে বলেন, ‘কেন ছয় বছরেও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী হত্যার রহস্য উদঘাটন করতে পারল না? এর পেছনে অন্য কোনো কারণ আছে কি? কেন তারা বারবার ব্যর্থতার তকমা নিচ্ছে?’ তিনি বলেন, ‘বিচার না পাওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চলবে। ধারাবাহিক কর্মসূচি ডিআরইউ পালন করে যাবে।’

সংগঠনটির সাবেক সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন বাদশা বলেন, ‘খুনিরা ধরা না পড়া পর্যন্ত আন্দোলন থেকে ডিআরইউ সরে আসবে না। ডিআরইউর একজন সদস্য বেঁচে থাকা পর্যন্ত এই হত্যার বিচারের দাবিতে আন্দোলন চলবে।’ ডিআরইউ বর্তমান সাধারণ সম্পাদক শুক্কুর আলী শুভ বলেন, ‘আমাদের বিশ্বাস এই হত্যাকাণ্ডের বিচার হবে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী দ্রুত তদন্ত প্রতিবেদন দিতে সক্ষম হবে- এটা আমাদের বিশ্বাস।’ ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক সোহেল হায়দার চৌধুরী বলেন, ‘আমরা এই হত্যার বিচারের দাবিতে কোনো কমিটি কিংবা ক্যাম্পিং কিছুই করিনি। নেতারা এক হতে বলেন, কিন্তু তারাই পারেন না। আগামী বছর যেন শুধু আনুষ্ঠানিকতা না হয়। সাংবাদিক দম্পতির ছেলে মেঘকে এখানে দাঁড় করিয়ে যেন বলতে পারি বিচার হয়েছে।’ সমাবেশ শেষে মিছিল নিয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে যান সাংবাদিকরা। এরপর একটি প্রতিনিধি দল হত্যাকাণ্ডের বিচার চেয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বরাবরে স্মারকলিপি দেয়। স্মারকলিপিতে উল্লেখ করা হয়, ২০১২ সালের ১১ ফেব্রুয়অরি রাজধানীর পশ্চিম রাজাবাজারের ভাড়া বাসায় নির্মমভাবে খুন হন মাছরাঙা টেলিভিশনের বার্তা সম্পাদক সাগর সরোয়ার ও এটিএন বাংলার জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক মেহরুন রুনী। দেখতে দেখতে ছয় বছর হয়ে গেল, কিন্তু এখনও সাগর ও রুনীর খুনিদের শনাক্ত করা যায়নি। এ ঘটনায় বিভিন্ন সময় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পক্ষ থেকে খুনিদের শনাক্ত করার জোর উদ্যোগের কথা জানানো হলেও কার্যত অগ্রগতি বলতে কিছুই নেই। ঘটনার শুরু থেকে শেরেবাংলা নগর থানা, সিআইডি ও ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ মামলার তদন্ত করেছে। বর্তমানে মামলাটি র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) তদন্তাধীন। র‌্যাব এ পর্যন্ত ৫৩ বার সময় নিয়েও মামলার অগ্রগতি প্রতিবেদন আদালতে জমা দিতে পারেনি। এসব কারণে সাগর-রুনীর পরিবার, তাদের সহকর্মী এবং সাংবাদিক সমাজ হতাশ। সাগর-রুনী কেন খুন হলেন? কারা এই খুনের সঙ্গে জড়িত তা দেশবাসী জানতে চায়।

 
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

E-mail: [email protected], [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter