স্বজনদের সংবাদ সম্মেলন

ভুল চিকিৎসায় সাংবাদিক আসাদের মৃত্যু, তদন্ত দাবি

  যুগান্তর রিপোর্ট ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

চিকিৎসকের ভুলে তরুণ সাংবাদিক আবদুর রাকিব আসাদের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনার তদন্তে বিচার বিভাগীয় তদন্ত কমিটি গঠনের দাবি জানিয়েছেন তার স্বজনরা। একই সঙ্গে এ ঘটনার জন্য দায়ী চিকিৎসকদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করতে প্রধানমন্ত্রী, স্বাস্থ্যমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, পুলিশের আইজি ও স্বাস্থ্য অধিদফতরের হস্তক্ষেপ চেয়েছে তার পরিবার। রোববার বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন মিলনায়তনে আসাদের পরিবার এক সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানান। স্টার সেভেন নামে একটি অনলাইন টিভিতে সাংবাদিকতা করতেন আসাদ।

লিখিত বক্তব্যে আসাদের ভগ্নিপতি সিরাজ বেপারি বলেন, আসাদ জন্ডিসে আক্রান্ত ছিলেন। মুগদা হাসপাতালে ১৫ দিন ধরে চিকিৎসা নেয়ার পরও তার অবস্থার কোনো উন্নতি না হওয়ায় তাকে অধ্যাপক ডা. হাবিবুর রহমানের কাছে নেয়া হয়। শাহজাহানপুরের ইসলামী ব্যাংক হাসপাতালের কনসালট্যান্ট এবং মিটফোর্ড হাসপাতালের গ্যাস্ট্রোলোজি বিভাগের প্রধান ডা. হাবিবুর রহমান বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর জানান, আসাদের পিত্তস্থলী চিকন হয়ে গেছে এবং ক্যান্সারের আশঙ্কা রয়েছে। আসাদকে এন্ডোস্কপিক রেট্রগ্রেড কলাঙ্গিও প্যানক্রিটোগ্রাফি (ইআরসিপি) সার্জারি করার পরামর্শ দেন। তার পরামর্শে মিটফোর্ড হাসপাতালে আসাদকে ভর্তি করা হয়। ২৪ জানুয়ারি অপারেশন চলাকালে আধা ঘণ্টার মাথায় আসাদের জ্ঞান ফিরে আসে। সঠিকভাবে অ্যানেস্থেসিয়া না দেয়ায় জ্ঞান ফেরার সঙ্গে সঙ্গে যন্ত্রণায় চিৎকার শুরু করে আসাদ। এ সময় অপারেশন থিয়েটারের ৭-৮ জন নার্স তাকে চেপে ধরে অপারেশনের যন্ত্রপাতি তার শরীর থেকে সরিয়ে নেন। চিকিৎসকরা তার চিকিৎসা দিতে অপারগতা স্বীকার করে বেসরকারি হাসপাতাল বিআরবিতে স্থানান্তরের পরামর্শ দেন। ২৯ জানুয়ারি তাকে ইবনে সিনা হাসপাতালে নেয়া হয়। আসাদকে ত্রিপল বাইপাস মেজর অপারেশন করার পরামর্শ দেন ওই হাসপাতালের লিভার বিশেষজ্ঞ ডা. শাহীনুল আলম। ৪ ফেব্রুয়অরি ইবনে সিনা হাসপাতালের চিকিৎসকরা জানান, ভুল ইআরসিপির কারণে আসাদের পিত্তথলি, খাদ্যনালি ও অগ্ন্যাশয় পচে যাওয়ায় সেগুলো তাৎক্ষণিক কেটে ফেলতে হয়। এরপর তাকে লাইফ সাপোর্টে নেয়া হয়। অপারেশনের ২৩ ঘণ্টা পর আসাদের মৃত্যু হয়।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

E-mail: [email protected], [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter