বিএনপির স্থায়ী কমিটির বৈঠক

শপথ না নেয়ার বিষয়ে সর্বসম্মত সিদ্ধান্ত

কেউ সিদ্ধান্ত অমান্য করলে দলীয় ব্যবস্থা * নুসরাত হত্যাসহ নারী নির্যাতনের প্রতিবাদে কর্মসূচির সিদ্ধান্ত

  যুগান্তর রিপোর্ট ২৩ এপ্রিল ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

সিদ্ধান্ত

একাদশ সংসদ নির্বাচনে দলের নির্বাচিতদের শপথ না নেয়ার বিষয়ে সর্বসম্মত সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্যরা। এ বিষয়টি মীমাংসিত ইস্যু উল্লেখ করে দলটির নীতিনির্ধারকরা বলেছেন, তারা নির্বাচনকে প্রত্যাখ্যান করে নতুন করে নির্বাচনের দাবি করেছে।

তাই সংসদে গেলে নির্বাচনকে বৈধতা দেয়া হবে। নির্বাচিতদের কেউ দলীয় সিদ্ধান্ত অমান্য করলে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও সিদ্ধান্ত নেয় স্থায়ী কমিটি।

সোমবার রাতে রাজধানীর গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলের স্থায়ী কমিটির বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয়। এছাড়া বৈঠকে নুসরাত হত্যাসহ সম্প্র্রতি সারা দেশে নারী নির্যাতন, খুন বেড়েছে দাবি করে উদ্বেগ প্রকাশ করেন নীতিনির্ধারকরা।

একই সঙ্গে এর প্রতিবাদে কর্মসূচি দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। দেড় ঘণ্টাব্যাপী এই বৈঠক হয়। বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সভাপতিত্বে বৈঠকে আরও ছিলেন দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ড. আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান প্রমুখ।

বৈঠকের বিষয়ে স্থায়ী কমিটির একজন সদস্য যুগান্তরকে বলেন, এমপিদের শপথ না নেয়ার ব্যাপারে বিএনপির আগেই সিদ্ধান্ত ছিল। কিন্তু সম্প্রতি বিএনপির নির্বাচিত এমপিরা শপথ নিতে আগ্রহী গণমাধ্যমে এমন সংবাদ প্রকাশিত হওয়ার প্রেক্ষিতে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান স্কাইপিতে সিনিয়র নেতাদের মতামত জানতে চান। এ সময়ে স্থায়ী কমিটির প্রত্যেক নেতা শপথ না নেয়ার পক্ষে নিজেদের মতামত তুলে ধরেন। তাদের সবার অভিন্ন মতামতের ওপর ভিত্তি করে এমপিদের শপথ না নেয়ার জন্য আগের সিদ্ধান্তই বহাল রাখা হয়।

এ সিদ্ধান্তের কথা চলতি সপ্তাহের যে কোনো দিন নির্বাচিত ৬ এমপিকে গুলশান কার্যালয়ে ডেকে জানানো হবে। একই সঙ্গে কেউ সিদ্ধান্ত অমান্য করলে তার বিরুদ্ধে দলীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। সূত্র জানায়, বৈঠকে স্থায়ী কমিটির সদস্যরা বলেছেন, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ফলাফলকেই তারা প্রত্যাখ্যান করেছেন, পুনর্নির্বাচনের দাবি জানিয়েছেন। সেই প্রেক্ষিতে শপথ নেয়ার সিদ্ধান্ত অবান্তর। ৩০ ডিসেম্বর নির্বাচনের পর জোট ও দলের পক্ষ থেকে সংসদে না যাওয়ার বিষয়ে যে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছিল এখনও তাই আছে।

এছাড়া খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য আইনি লড়াইকে আরও গুরুত্ব দেয়ার বিষয়েও সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। খালেদা জিয়ার অসুস্থতা, তার চিকিৎসা এবং তার মামলা নিয়ে বৈঠকে আলোচনা হয়। তার চিকিৎসায় কোনো সমস্যা আছে কিনা তার দিকে খেয়াল রাখার জন্য নীতিনির্ধারকদের বলেন হাইকমান্ড। এছাড়া খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য আইনি লড়াইকে আরও জোরদার ও সমন্বিত করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। মামলা পরিচালনার জন্য সিনিয়র আইনজীবীদেরকে সুনির্দিষ্ট দায়িত্ব বণ্টন করে দেয়া হয়েছে।

স্থায়ী কমিটির এক সদস্য জানান, সম্প্রতি দেশে নারী নির্যাতন ও খুন বেড়েছে। দিন দিন পরিস্থিতি আরও খারাপের দিকে যাচ্ছে, যা নিয়ে বৈঠকে উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়। একইসঙ্গে এসবের প্রতিবাদে সারা দেশে কর্মসূচি পালনেরও সিদ্ধান্ত হয়েছে। শিগগিরই নয়াপল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×