২৩ বছর পর খোঁজ মিলল আজবারের

ভারতের জেল থেকে মুক্তি পাবেন জুনে

  যুগান্তর ডেস্ক ২১ মে ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

২৩ বছর আগে ভুল করে ভারতে ঢুকে পড়েছিলেন সাতক্ষীরার বাসিন্দা আজবার পেয়াদা (৫৫)। মানসিক ভারসাম্যহীন আজবার এরপর থেকেছেন আসামের বিভিন্ন স্থানে। এদিকে নানা জায়গায় ঘুরেও ছেলের খোঁজ পাননি আবদুল করিম পেয়াদা ও মোমেনা খাতুন। অবশেষে তাদের ছোট ছেলে ইকবাল পেয়াদা (২৮) খুঁজে পেয়েছেন তার বড় ভাইকে। ভাই হারানোর সময় যার বয়স কিনা ছিল ৫ বছর! সবকিছু ঠিক থাকলে আগামী মাসেই দেশে ফিরবেন আজবার।

সোমবার ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, অবৈধভাবে ভারতে প্রবেশের অভিযোগে ২০১৫ সালের ১ জুলাই আসামের ধেমাজি জেলা থেকে আজবারকে আটক করা হয়। ভারতীয় পাসপোর্ট আইন ও ফরেনার্স আইনের আওতায় ওই বছরের ১৬ নভেম্বর জেলে পাঠানো হয় তাকে। সাজা খাটা শেষে ২০১৭ সালের ৩০ ডিসেম্বর তেজপুর কেন্দ্রীয় কারাগারের ডিটেনশন ক্যাম্পে স্থানান্তর করা হয় আজবারকে। সেখান থেকেই শুরু হয় বাংলাদেশে ফেরত পাঠানোর প্রক্রিয়া।

মানসিক অসুস্থতার কারণে নিজের ঠিকানা সম্পর্কে সঠিক তথ্য দিতে পারছিলেন না আজবার। তাই ফেরত পাঠানোর ক্ষেত্রে সমস্যা তৈরি হয়। এরপর কারা কর্তৃপক্ষের উদ্যোগে আজবারের মানসিক রোগের চিকিৎসা শুরু হয়। ধীরে ধীরে সুস্থ হয়ে ওঠেন আজবার। অন্যদিকে তিনি যে আসামে আছেন তা জানতে পারেন ব্যবসায়ী ইকবাল। ভাইকে ফিরিয়ে আনতে সমাজসেবী অমলেন্দু দাসের সঙ্গে যোগাযোগ করেন তিনি। অমলেন্দু গুয়াহাটিতে থাকা বাংলাদেশের সহকারী হাইকমিশনার শাহ মহম্মদ তানভির মনসুরের সঙ্গে যোগাযোগ করেন।

অবশেষে রোববার ডিটেনশন ক্যাম্পে গিয়ে ভাইয়ের সঙ্গে দেখা করেন ইকবাল। দুই দশক পর হারিয়ে যাওয়া ভাইকে কাছে পেয়ে আবেগাপ্লুত হয়ে যান তিনি। ভাইয়ের চিকিৎসার ব্যবস্থা করায় ভারতীয় কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদও জানান। তিনি বলেন, ‘আমার মা বলেছিলেন, বড় ভাই মানসিকভাবে অপ্রকৃতিস্থ ছিলেন এবং ২৩ বছর আগে নিখোঁজ হয়ে যান। যেকোনোভাবে তিনি ভারতে ঢুকে পড়েন। আমি তখন একেবারে ছোট ছিলাম। এত বছর পর তাকে সুস্থ দেখতে পেয়ে আমি খুবই আনন্দিত।’

খুশি আজবারও। তিনি বলেন, ‘আমি আমার দেশে ফিরে যেতে চাই। যত তাড়াতাড়ি সম্ভব মা ও পরিবারের অন্যদের সঙ্গে দেখা করতে চাই।’ তেজপুর কেন্দ্রীয় কারাগারের সুপারিনটেনডেন্ট মৃন্ময় দাওকা বলেন, আজবার এখন সম্পূর্ণ সুস্থ। তার পরিবারের সদস্যদের নাম ও ঠিকানা লিখতে পারে। প্রত্যর্পণ সম্পর্কিত যাবতীয় নথি তৈরির কাজ শেষ হলে আগামী মাসেই আজবারকে মুক্তি দেয়া হবে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×