কাজের গতি ও মান বাড়াতে মন্ত্রিসভায় পরিবর্তন

-ওবায়দুল কাদের

  যুগান্তর রিপোর্ট ২১ মে ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, মন্ত্রণালয়ের কাজের গতি ও মান বৃদ্ধি এবং কাজে সমন্বয় আনতে মন্ত্রিসভায় পরিবর্তন আনা হয়েছে। এটা করা হয়েছে কাজের সুবিধার জন্য। কাজের সুবিধার জন্য পুনর্বিন্যাস, পুনর্গঠন প্রয়োজন হয়ে পড়ে। সেতু ভবনে সোমবার সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী হচ্ছেন টিম লিডার। তিনি রাষ্ট্র নামের জাহাজের ক্যাপ্টেন। কাজেই রাষ্ট্রীয় জাহাজটি যেন ভালোভাবে চলে, কাজে যেন গতি আসে, সেজন্য প্রধানমন্ত্রী এ ধরনের ব্যবস্থা নিয়েছেন। সব দেশেই সময়ে সময়ে মন্ত্রিসভায় পরিবর্তন হয়ে থাকে। এর আগে সেতু ভবনে সেতু বিভাগের আওতাধীন চলমান উন্নয়ন প্রকল্পের অগগ্রতি নিয়ে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে সভা করেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

মন্ত্রিসভায় পরিবর্তন সম্পর্কে ওবায়দুল কাদের বলেন, এটা হচ্ছে কাজের সু-সমন্বয়। কাজের গতি ও কাজের মান নিশ্চিত করার জন্য কাজটা ভাগ করে দিলে গতি বাড়ে, সমন্বয় বাড়ে এবং কাজের কোয়ালিটি বাড়ে। কাজ আরও বেশি করে করা যায়। সে দিকটাই প্রধানমন্ত্রী দেখেছেন। এক প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, আমার মনে হয় মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সংসদে আসা উচিত ছিল। তার শূন্য আসনে বিএনপি কি এমন কাউকে আনছে যে কিনা তার চেয়েও বেশি শক্তিশালী নেতৃত্ব দিতে পারবেন?

পদ্মা সেতুর অগ্রগতি প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, প্রকল্পের সার্বিক অগ্রগতি ৬৭ শতাংশ। আগামী ২১ অথবা ২২ মে (আজ বা কাল) পদ্মা সেতুর ১৩তম স্প্যান বসানো হবে। প্রকল্পের অঙ্গভিত্তিক অগ্রগতি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, মূল সেতুর অগ্রগতি ৭৬ ভাগ, নদীশাসন কাজের অগ্রগতি ৫৫ ভাগ, সংযোগ সড়কের অগ্রগতি ১০০ ভাগ। মূল সেতুর নদীর মধ্যে ২৬২টি পাইলের মধ্যে ২৩৬টির কাজ শেষ হয়েছে এবং অবশিষ্ট ২৬টি পাইলের কাজ জুলাইয়ের মধ্যে শেষ হবে। মূল সেতুর ৪২টি পিলারের মধ্যে ২৫টির কাজ পুরোপুরি সম্পন্ন হয়েছে, জুনের মধ্যে আরও ৬টি পিলারের কাজ শেষ হবে এবং বাকি ১১টির কাজ চলমান। মোট স্প্যান ৪১টি। কর্ণফুলী টানেল প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ইতিমধ্যে প্রতিটি ২ মিটার দৈর্ঘ্যরে ৮০টি টানেল রিং বসানোর কাজ অর্থাৎ ১৬০ মিটার টানেল খননকাজ সম্পন্ন হয়েছে। ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত সার্বিক অগ্রগতি শতকরা ৩৮ ভাগ।

ধানমণ্ডি কার্যালয়ে ওবায়দুল কাদের : দীর্ঘ আড়াই মাস পর আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ধানমণ্ডি রাজনৈতিক কার্যালয়ে গেলেন দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। সোমবার সন্ধ্যায় ইফতারের পর তিনি সেখানে যান। অসুস্থতাজনিত কারণে দীর্ঘদিন দেশের বাইরে থাকার কারণে তিনি রাজনৈতিকসহ অন্যান্য কর্মকাণ্ডে অনুপস্থিত ছিলেন। ১৫ মে দেশে আসার পর এটি তার প্রথম রাজনৈতিক কার্যালয়ে আগমন। জানা যায়, ওবায়দুল কাদের দলের সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে গিয়ে নিজের (সাধারণ সম্পাদক) রুমে বসেন। সেখানে উপস্থিত নেতাকর্মীরা তাকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান। ওবায়দুল কাদের নেতাকর্মী ও কার্যালয়ের স্টাফদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×