মাহফুজউল্লাহ ছিলেন সাহসের বাতিঘর : রিজভী

  যুগান্তর রিপোর্ট ০২ জুন ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, বর্তমানে দেশ ও জাতি চরম ক্রান্তিকাল অতিক্রম করছে। এই দুঃসময়ে সাহস করে সত্য উচ্চারণের মতো ব্যক্তিত্বের সংখ্যা হাতেগোনা। সাহসী সাংবাদিক মাহফুজ উল্লাহ ছিলেন তাদের একজন। তিনি দেশপ্রেমিকদের জন্য সাহসের বাতিঘর ছিলেন। সাহসী ভূমিকা পালন করে আমাদেরকে উজ্জীবিত করতেন। দেশের এমন দুঃসময়ে তার মতো নির্লোভ ও সাহসী মানুষের প্রয়াণ দেশপ্রেমিকদের জন্য তৈরি করেছে গভীর শূন্যতার।

রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে শনিবার এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। বরেণ্য সাংবাদিক, মিডিয়া ব্যক্তিত্ব ও গবেষক মরহুম মাহফুজ উল্লাহ স্মরণে তিনদিনব্যাপী কর্মসূচির প্রথম দিনের এ সভার আয়োজন করে ‘মাহফুজ উল্লাহ স্মৃতি পরিষদ’। রিজভী বলেন, এমন এক অসময়ে সেই সাহসী কণ্ঠ বন্ধ হয়ে গেল যখন ফ্যাসিবাদ ও স্বৈরাচারী সরকারের অপকর্মগুলো চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দেয়া দরকার। চলমান এই অস্থির সময়ে তার মতো একজন সাহসী মানুষের বেঁচে থাকা বড়ই প্রয়োজন ছিল। তিনি বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে নিয়ে যে বইটি লিখেছেন তার তুলনা হয় না। সিনিয়র সাংবাদিক আবদুল আওয়াল ঠাকুর বলেন, মাহফুজ উল্লাহ এক অনন্য চরিত্রের অধিকারী ছিলেন। তিনি সবসময় গণমানুষের পক্ষে অবস্থান নিয়েছেন। সাংবাদিক কাফি কামাল বলেন, প্রগতিশীল ছাত্ররাজনীতির এককালের শীর্ষ নেতা মাহফুজ উল্লাহর পেশাগত জীবনে বেছে নিয়েছেন সাংবাদিকতা। তার হাতেই সূত্রপাত ঘটেছে বাংলাদেশে পরিবেশ সাংবাদিকতার। দেশে তার মতো সত্য উচ্চারণে দ্বিধাহীন ব্যক্তিত্বেরই সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন। মাহফুজ উল্লাহ স্মৃতি পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মোহাম্মদ অলিদ সিদ্দিকী তালুকদারের সভাপতিত্বে ও ছাত্রদলের দফতর সম্পাদক আবদুস সাত্তার পাটোয়ারীর সঞ্চালনায় সভায় আরও বক্তব্য দেন বিএফইউজের (একাংশ) প্রচার সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ, ডিইউজের (একাংশ) সাংগঠনিক সম্পাদক দিদারুল আলম, ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদের যুগ্ম সম্পাদক মামুন হোসেন ভূঁইয়া প্রমুখ।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×