অনিয়মের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে তিন সংস্থাকে দুদকের চিঠি
jugantor
অনিয়মের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে তিন সংস্থাকে দুদকের চিঠি

  যুগান্তর রিপোর্ট  

১৮ জুন ২০১৯, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বিভিন্ন অনিয়ম ও দুর্নীতি খতিয়ে দেখে প্র্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্পোরেশনের (বিআরটিসি) চেয়ারম্যানসহ সরকারি তিন সংস্থার প্রধানের কাছে চিঠি দিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

সোমবার দুদকের মহাপরিচালক (প্রশাসন) সাঈদ মাহবুব খানের স্বাক্ষরে এ চিঠি পাঠানো হয়। বিআরটিসি ছাড়া বাকি দুই প্রতিষ্ঠান হল- ঢাকা মেডিকেল কলেজ ও স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতর (এলজিইডি)।

বদলি, নিয়োগে দুর্নীতি, সড়ক নির্মাণসহ নানা অনিয়ম খতিয়ে দেখতে এ চিঠি পাঠানো হয় বলে জানান দুদকের জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রণব কুমার ভট্টাচার্য। দুদকের চিঠিতে বিআরটিসির দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন ধরনের অনিয়মের বিষয় খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নিতে বলা হয়। এছাড়া ঢাকা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে বদলি সংক্রান্ত অনিয়মের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে হাসপাতালের পরিচালককে ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে। অন্যদিকে, নিুমানের সামগ্রী দিয়ে দেশের বিভিন্ন স্থানে সেতু নির্মাণ করা হচ্ছে- এমন অভিযোগ খতিয়ে দেখতে এলজিইডির প্রধান প্রকৌশলীকে অনুরোধ করেছে দুদক এনফোর্সমেন্ট ইউনিট। এদিকে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) নানা অনিয়মের অভিযোগে সোমবার অভিযান পরিচালনা করেছে দুদক। দুদক অভিযোগ কেন্দ্রে (হটলাইন-১০৬) অভিযোগ আসে, বিআরটিএ মিরপুর অফিসে কিছু দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তা-কর্মচারী সেবা প্রদানে বিঘ্ন ঘটিয়ে অসাধু উপায়ে অর্থ আদায় করছেন। এ প্রেক্ষিতে দুদক প্রধান কার্যালয় থেকে একটি অভিযান পরিচালিত হয়। অভিযান পরিচালনাকারী টিম জানতে পারে ব্লুবুক এবং ডিজিটাল স্মার্টকার্ডের বেশ কিছু আবেদন এক মাসেরও বেশি সময় ধরে পড়ে রয়েছে। বিলম্বের বিষয়ে জানতে চাইলে বিআরটিএ কর্তৃপক্ষ জানায়, জার্মানি থেকে সরঞ্জামাদি আনার কারণে এ বিলম্ব হয়েছে। এ অবস্থায় গ্রাহক ভোগান্তি রোধে ডকুমেন্ট প্রস্তুত হওয়ার পরে তা এসএমএসের মাধ্যমে জানিয়ে দেয়ার পরামর্শ দেয় দুদক। এছাড়া বেশ কিছু সেবা ওয়ান স্টপ সার্ভিসের মাধ্যমে প্রদানের সুপারিশ দেয় দুদক টিম।

অনিয়মের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে তিন সংস্থাকে দুদকের চিঠি

 যুগান্তর রিপোর্ট 
১৮ জুন ২০১৯, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বিভিন্ন অনিয়ম ও দুর্নীতি খতিয়ে দেখে প্র্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্পোরেশনের (বিআরটিসি) চেয়ারম্যানসহ সরকারি তিন সংস্থার প্রধানের কাছে চিঠি দিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

সোমবার দুদকের মহাপরিচালক (প্রশাসন) সাঈদ মাহবুব খানের স্বাক্ষরে এ চিঠি পাঠানো হয়। বিআরটিসি ছাড়া বাকি দুই প্রতিষ্ঠান হল- ঢাকা মেডিকেল কলেজ ও স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতর (এলজিইডি)।

বদলি, নিয়োগে দুর্নীতি, সড়ক নির্মাণসহ নানা অনিয়ম খতিয়ে দেখতে এ চিঠি পাঠানো হয় বলে জানান দুদকের জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রণব কুমার ভট্টাচার্য। দুদকের চিঠিতে বিআরটিসির দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন ধরনের অনিয়মের বিষয় খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নিতে বলা হয়। এছাড়া ঢাকা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে বদলি সংক্রান্ত অনিয়মের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে হাসপাতালের পরিচালককে ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে। অন্যদিকে, নিুমানের সামগ্রী দিয়ে দেশের বিভিন্ন স্থানে সেতু নির্মাণ করা হচ্ছে- এমন অভিযোগ খতিয়ে দেখতে এলজিইডির প্রধান প্রকৌশলীকে অনুরোধ করেছে দুদক এনফোর্সমেন্ট ইউনিট। এদিকে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) নানা অনিয়মের অভিযোগে সোমবার অভিযান পরিচালনা করেছে দুদক। দুদক অভিযোগ কেন্দ্রে (হটলাইন-১০৬) অভিযোগ আসে, বিআরটিএ মিরপুর অফিসে কিছু দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তা-কর্মচারী সেবা প্রদানে বিঘ্ন ঘটিয়ে অসাধু উপায়ে অর্থ আদায় করছেন। এ প্রেক্ষিতে দুদক প্রধান কার্যালয় থেকে একটি অভিযান পরিচালিত হয়। অভিযান পরিচালনাকারী টিম জানতে পারে ব্লুবুক এবং ডিজিটাল স্মার্টকার্ডের বেশ কিছু আবেদন এক মাসেরও বেশি সময় ধরে পড়ে রয়েছে। বিলম্বের বিষয়ে জানতে চাইলে বিআরটিএ কর্তৃপক্ষ জানায়, জার্মানি থেকে সরঞ্জামাদি আনার কারণে এ বিলম্ব হয়েছে। এ অবস্থায় গ্রাহক ভোগান্তি রোধে ডকুমেন্ট প্রস্তুত হওয়ার পরে তা এসএমএসের মাধ্যমে জানিয়ে দেয়ার পরামর্শ দেয় দুদক। এছাড়া বেশ কিছু সেবা ওয়ান স্টপ সার্ভিসের মাধ্যমে প্রদানের সুপারিশ দেয় দুদক টিম।