রমজান ও ঈদের প্রভাব

মে মাসে বেড়েছে মূল্যস্ফীতি

  যুগান্তর রিপোর্ট ১৯ জুন ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

মূল্যস্ফীতি

রমজান ও ঈদের প্রভাবে মে মাসে সার্বিক মূল্যস্ফীতি কিছুটা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫ দশমিক ৬৩ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল ৫ দশমিক ৫৮ শতাংশ।

খাদ্যপণ্যের মূল্যস্ফীতি কমে দাঁড়িয়েছে ৫ দশমিক ৪৯ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল ৫ দশমিক ৫৪ শতাংশ। খাদ্যবহির্ভূত পণ্যের মূল্যস্ফীতি বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫ দশমিক ৮৪ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল ৫ দশমিক ৬৪ শতাংশ।

রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে মঙ্গলবার একনেক ব্রিফিং শেষে পরিকল্পনামন্ত্রী এ তথ্য জানান। এ সময় পরিসংখ্যান ও তথ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের সচিব সৌরেন্দ্রনাথ চক্রবর্তী, পরিকল্পনা সচিব নুরুল আমিন এবং সাধারণ অর্থনীতি বিভাগের সদস্য (সিনিয়র সচিব) ড. শামসুল আলমসহ পরিকল্পনা কমিশনের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

মূল্যস্ফীতি বৃদ্ধির কারণ হিসেবে সৌরেন্দ্রনাথ চক্রবর্তী যুগান্তরকে জানান, মে মাসে রমজান ও ঈদ ছিল। তাই মূল্যস্ফীতি সামান্য বেড়েছে। এটা খুবই স্বাভাবিক বিষয়। পরিসংখ্যান ব্যুরোর (বিবিএস) প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গ্রামে সার্বিক মূল্যস্ফীতি বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫ দশমিক ৪৪ শতাংশে, যা আগের মাসে ছিল ৫ দশমিক ৪১ শতাংশ। খাদ্য পণ্যের মূল্যস্ফীতি কমে দাঁড়িয়েছে ৫ দশমিক ৬৭ শতাংশে, যা আগের মাসে ছিল ৫ দশমিক ৬৮ শতাংশ। খাদ্যবহিভূর্ত পণ্যের মূল্যস্ফীতি বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫ দশমিক শূন্য ১ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল ৪ দশমিক ৮৯ শতাংশ।

অন্যদিকে শহরে সার্বিক মূল্যস্ফীতি বেড়ে হয়েছে ৫ দশমিক ৯৬ শতাংশ, যা তার আগের মাসে ছিল ৫ দশমিক ৮৯ শতাংশ।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×