২০ দলীয় জোটের বৈঠক

খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে কর্মসূচি দেয়ার সিদ্ধান্ত

  যুগান্তর রিপোর্ট ২৫ জুন ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে কর্মসূচি দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ২০ দলীয় জোট। জুলাই মাসে ঢাকাসহ বিভিন্ন মহানগরে এ কর্মসূচি পালন করা হবে। রাজধানীর গুলশানে সোমবার রাতে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত বৈঠকের পর জোটের সমন্বয়ক নজরুল ইসলাম খান এ কথা জানান। বিএনপির স্থায়ী কমিটির এই সদস্য বলেন, জোটের নেত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে রাজনৈতিক প্রতিহিংসার বশে কারাগারে আবদ্ধ করে রাখা হয়েছে। এর নিন্দা ও তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে জোট দেশে গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠার আন্দোলনের নেত্রী খালেদা জিয়ার দ্রুত মুক্তির লক্ষ্যে আগামী জুলাই মাসে ঢাকাসহ বিভিন্ন মহানগরে কর্মসূচি পালনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এ ব্যাপারে আগামী সভায় নির্দিষ্ট সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। এক প্রশ্নের উত্তরে নজরুল বলেন, ২০ দলীয় জোট বিরাট শক্তি। এ জোটে ঐক্য সুদৃঢ় আছে, এখানে কোনো সংকট নেই।

সূত্র জানায়, বৈঠকে জোটের এক নেতা ২৭ জুন কর্নেল (অব.) অলি আহমদের প্রেস ব্রিফিংয়ের প্রসঙ্গটি উঠান। হঠাৎ করে কেন তিনি এমন প্রেস ব্রিফিং ডাকলেন তা জানতে চান। এ সময় বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, কোনো একটি দল সংবাদ সম্মেলন করতেই পারে। এটা জোটের বৈঠকে উঠানোর প্রয়োজন নেই। অলির ব্রিফিংয়ের দিকে ইঙ্গিত করে ফখরুল বলেন, বিএনপির নেত্রী খালেদা জিয়া। তার আন্দোলনের জন্য বিএনপির শক্তিই যথেষ্ট। আমরাই তার মুক্তির দাবিতে আন্দোলন করব। মার চেয়ে তো মাসির দরদ বেশি হতে পারে না।

সম্প্রতি দিনাজপুরে জাগপার কিছু নেতা বিএনপিতে যোগদান প্রসঙ্গে জোটের এক নেতা বলেন, এভাবে জোটের ভেতর একদলের নেতা আরেক দলে যোগদানের কোনো মানে হয় না। তখন বৈঠকে উপস্থিত জাগপার নেতা বলেন, এলডিপি তো পুরোটাই বিএনপি। বিএনপি ভেঙেই তো এলডিপি হয়েছে।

বৈঠকে দেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতি, প্রস্তাবিত বাজেট, কৃষকদের উৎপাদিত পণ্যে ন্যায্যমূল্য নির্ধারণসহ নানা বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়। প্রস্তাবিত বাজেটকে গণবিরোধী আখ্যা দিয়ে তা প্রত্যাখ্যান করে জোটের শরিকরা। এছাড়া কুলাউড়ায় ট্রেন দুর্ঘটনায় নিহত ও আহতদের প্রতি সমবেদনা জানানো হয়। মির্জা ফখরুলের সভাপতিত্বে বিএনপি নেতা নজরুল ইসলাম খান ছাড়াও বৈঠকে ২০ দলের শরিকদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ইসলামী ঐক্যজোটের অ্যাডভোকেট এমএ রকীব, জাতীয় পার্টি (কাজী জাফর) জাফরুল্লাহ চৌধুরী খান লাহরি, জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের একাংশের মাওলানা নুর হোসেইন কাশেমী, অপর অংশের মাওলানা মহিউদ্দিন ইকরাম, এনপিপির ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, লেবার পার্টির মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, ন্যাপ-ভাসানীর আজহারুল ইসলাম, জাগপার খন্দকার লুৎফুর রহমান, এলডিপির সাহাদাত হোসেন সেলিম, কল্যাণ পার্টির এমএম আমিনুর রহমান, মুসলিম লীগের জুলফিকার বুলবুল চৌধুরী, পিপলস লীগের সৈয়দ মাহবুব হোসেন, ডিএলের সাইফুদ্দিন আহমেদ মনি, সাম্যবাদী দলের নুরুল ইসলাম, ন্যাপের সাওন সাদেকী, এনডিপির আবু তাহের প্রমুখ। বৈঠকে এলডিপির সভাপতি অলি আহমদ, কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম উপস্থিত না থাকলেও তাদের প্রতিনিধিরা ছিলেন। তবে জামায়াতে ইসলামীর কোনো নেতা বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন না।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×