জবানবন্দিতে অধ্যক্ষ আল আমিন

পর্নো আসক্তিতে ১২ ছাত্রীকে নিপীড়ন

  ফতুল্লা প্রতিনিধি ১২ জুলাই ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় বাইতুল হুদা ক্যাডেট মাদ্রাসার ১২ ছাত্রীকে নিপীড়নের অভিযোগে গ্রেফতার মাদ্রাসা অধ্যক্ষ আল আমিন পর্নো ছবির আসক্ত ছিলেন। মোবাইলে পর্নো ছবি দেখে ছাত্রীদের নিপীড়ন করতেন তিনি।

বৃহস্পতিবার বিকালে নারায়ণগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ কাউছার আলমের আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে এ তথ্য দিয়েছেন অধ্যক্ষ আল আমিন।

নারায়ণগঞ্জ কোর্ট পুলিশের পরিদর্শক হাবিবুর রহমান যুগান্তরকে জানান, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে ৫ দিনের রিমান্ড শেষে আদালতে হাজির করা হলে অধ্যক্ষ আল আমিন দোষ স্বীকার করে জবানবন্দি দিয়েছেন। এরপর আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। এ ঘটনায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে আরেকটি মামলা রয়েছে। এ মামলায় আগামী রোববার আল আমিনের বিরুদ্ধে আদালতে আরও ১০ দিনের রিমান্ড শুনানি অনুষ্ঠিত হবে।

মামলার তদন্তকারী অফিসার মুহাম্মদ মাঈনুল ইসলাম যুগান্তরকে জানান, অধ্যক্ষ আল আমিন তার মুঠোফোন ও কম্পিউটারে পর্নো ছবি রাখতেন। প্রায়ই তিনি সেই ছবি দেখতেন এবং ছাত্রীদের নিপীড়ন করতেন। এ ছাড়াও তিনি আরও গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছেন, যা তদন্তের স্বার্থে বলা যাচ্ছে না।

আদালত সূত্রে জানা যায়, পৃথক দুটি মামলায় উল্লেখ আছে মাদ্রাসার একাধিক ছাত্রীকে মূলত পানি পানের প্রলোভনে ঘরে ডেকে নিতেন আল আমিন। এ ছাড়া বইপত্র গোছানোসহ নানা ইস্যুতে ছাত্রীদের নিজের ঘরে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করতেন। এসব ঘটনার সময় আল আমিনের স্ত্রী বাসায় থাকতেন না। মূলত তার অবর্তমানেই এসব অনৈতিক কাজ হতো।

মামলায় আরও উল্লেখ করা হয়, বিভিন্ন ছাত্রীর ছবি তুলে সেই ছবির মাথা কেটে পর্নোগ্রাফি ছবির সঙ্গে যুক্ত করে দিতেন আল আমিন। আর এসব ছবি দেখিয়ে ওই ছাত্রীদের ব্ল্যাকমেইল করা হতো।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×