সবার মুখে আর্চার

  নিজস্ব প্রতিনিধি, বার্মিংহাম থেকে ১২ জুলাই ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ট্যাক্সি ক্যাব থেকে গ্যালারি, প্রেসবক্স থেকে ধারাভাষ্য কক্ষ- সব জায়গাতেই আলোচনায় জফরা আর্চার। ব্রিটিশ মিডিয়ায় তাকে নিয়ে চলছে মাতামাতি। যে আর্চার বিশ্বকাপেই সুযোগ পাচ্ছিলেন না, তিনিই এখন ইংল্যান্ডের প্রেস আক্রমণের নেতা। ইংল্যান্ডকে

প্রথম বিশ্বকাপ জয়ের স্বপ্ন

দেখাচ্ছেন বারবাডোজে জন্ম নেয়া এই গতিময় পেসার।

এজবাস্টনে কাল অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সেমিফাইনালে নিজের প্রথম বলেই গ্যালারিতে আনন্দের বন্যা বইয়ে দিলেন। নিজের প্রথম বলেই তুলে নিলেন ওপেনার অ্যারন ফিঞ্চের উইকেট। আউট নিয়ে কিছুটা সন্দেহ থাকায় রিভিউ নিলেন ফিঞ্চ। তাতে শেষ রক্ষা হল না। উদযাপনে তখন সতীর্থরা যতটা উল্লসিত আর্চার ততটাই শান্ত। লাজুক হাসিতে তখনই বুঝিয়ে দিয়েছেন কাজ আরও বাকি আছে। আর্চার উইকেট নেয়ার কিছুক্ষণ পর স্টেডিয়ামে নাস্তার টেবিলে ইংল্যান্ডের সাবেক স্পিনার গ্রায়েম সোয়ান ও লংকান কিংবদন্তি কুমার সাঙ্গাকারা আড্ডায় মাতলেন। আলোচনায় সেই আর্চার। সোয়ানকে উদ্দেশ করে শুরু করলেন সাঙ্গাকারা, ‘তোমরা আর্চারকে না নিয়ে কতটাই না ভুল করছিলে, সেই পারে তোমাদের বিশ্বকাপ জেতাতে।’ সোয়ানের যেন কোথায়ও বেঁধে গেল। আর্চারের জন্ম ওয়েস্ট ইন্ডিজে হওয়ার কারণে কিনা কে জানে! কিছুটা থেমে বললেন, ‘এখন তো সেটাই মনে হচ্ছে।’ তাদের কথা শেষ না হতেই অ্যালেক্স ক্যারি আঘাত পেলেন সেই আর্চার বলে। ভয় পেয়ে গিয়েছিলেন অপর প্রান্তে থাকা স্টিভেন স্মিথও। আর্চারের চতুর্থ ওভারের শেষ বলটা হঠাৎ লাফিয়ে উঠে ক্যারির হেলমেটে আঘাত হানে। বড় ধরনের কোনো ক্ষতি না হলেও ভয় পেয়ে গিয়েছিলেন নিশ্চয়ই। শুরুর ধাক্কায় সেমিফাইনালে পিছিয়ে পড়ে অস্ট্রেলিয়া। আদিল রশিদ ও ক্রিস ওকস এদিনও আর্চারের চেয়ে একটি বেশি উইকেট পেয়েছেন। তবে তার বোলিংয়ে পুরো সময় কোণঠাসা ছিল অসিরা। ফিঞ্চের পর গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের উইকেট নেন আর্চার। ১০ ওভারে ৩২ রান দিয়ে কাল তার উইকেট মাত্র দুটি। বিশ্বকাপে আর্চারের উইকেট সংখ্যা এখন ১৯টি। ইংল্যান্ডের হয়ে এক বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ উইকেট নেয়ার রেকর্ড আগেই গড়েছেন তিনি।

ইয়ান বোথামের ১৬ উইকেট টপকে তিনিই শীর্ষে। বিশ্বকাপে রান দিয়েছেন ৪.৬১ ইকোনমি রেটে। ইংল্যান্ডের সাবেক অধিনায়ক নাসের হুসেইনের কণ্ঠেও ঝরল মুগ্ধতা, ‘আর্চার অসাধারণ।’

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×