ক্ষুব্ধ ছাত্রদল নেতাদের সঙ্গে বৈঠক

কোনো সমাধানে পৌঁছাতে পারেনি সার্চ কমিটি

  যুগান্তর রিপোর্ট ১৭ জুলাই ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

কমিটি গঠন নিয়ে সৃষ্ট ছাত্রদলের সংকট নিরসনে দফায় দফায় বৈঠক করছেন দ্বায়িত্বপ্রাপ্ত নেতারা। মঙ্গলবারও সার্চ কমিটির নেতারা ক্ষুব্ধ ছাত্রদল নেতাদের সঙ্গে দীর্ঘ বৈঠক করে কোনো সমাধানে পৌঁছাতে পারেননি। বরং বৈঠকে ঈদের একদিন আগে ছাত্রদলের কমিটি বিলুপ্ত করা, নতুন কমিটি গঠনে শর্তারোপ দেয়া এবং নতুন তফসিল ঘোষণার বিষয়ে ক্ষুব্ধ নেতারা নানা প্রশ্ন তোলেন। এ সময় সার্চ কমিটির নেতারা ছাত্রদলের ক্ষুব্ধ নেতাদের বক্তব্যের কোনো সদুত্তর দিতে পারেননি।

গুলশানে বিএনপির চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে ছাত্রদলের ক্ষুব্ধ নেতাদের সঙ্গে সংগঠনের সাবেক সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকদের নিয়ে গঠিত সার্চ কমিটির এ বৈঠক হয়। সূত্র জানায়, বিকাল সাড়ে ৫টা থেকে তিন ঘণ্টার বৈঠকে সার্চ কমিটির নেতারা বলেন, দলের এখন দুর্দিন চলছে। দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া কারাগারে রয়েছেন, ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান লন্ডন রয়েছেন। এ অবস্থায় দলকে ভালোবেসে দলের নির্দেশ মানতে হবে। জবাবে সাবেক ছাত্রনেতারা জানান, তারা দলের জন্য কাজ করছেন। ত্যাগ স্বীকার করেছেন। নির্যাতন সহ্য করেছেন। এ জন্যই তারা তাদের ন্যায্য দাবি করেছেন। কিন্তু দলের সিন্ডিকেট দেশনায়ক তারেক রহমানকে ভুল বুঝিয়ে ছাত্রদলকে তাদের কব্জায় নিতে চাইছেন। এটা তারা করতে দেবেন না। বৈঠকে একজন সাবেক ছাত্রনেতা সার্চ কমিটির সিনিয়র নেতা ও বিএনপির একজন ভাইস চেয়ারম্যানকে উদ্দেশ করে বলেন, আপনি তো ২৬ বছর ধরে কৃষক দলের নেতৃত্বে রয়েছেন। এখন আবার সেই সংগঠনেরই আহ্বায়ক আপনি। এটা কীভাবে সম্ভব এখানে আপনার কোনো বয়সের সীমাবদ্ধতা নেই আপনার কারণে এ সংগঠনে নতুন কোনো নেতৃত্ব তৈরি হতে পারেনি।

আরেক ছাত্রনেতা বলেন, ঈদের আগে ছাত্রদলের কমিটি বিলুপ্ত করে সমস্যা তৈরি করেছেন আপনারা। সেই সমস্যা সমাধান না করে তফসিল ঘোষণা করেছেন। আবার বিক্ষুব্ধদের মার খাওয়ানোর জন্য নারায়ণগঞ্জ, মুন্সীগঞ্জ থেকে নেতাকর্মী এনে নয়াপল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে জড়োও করেন। কেন এগুলো করেছিলেন ক্ষুব্ধ ছাত্রদল নেতাদের প্রশ্নবাণের রোষানলে পড়ে কোনো সমাধান ছাড়াই সার্চ কমিটির নেতারা গুলশান কার্যালয়ের দ্বিতীয় তলায় উঠে যান। পরে সেখানে রাত ১১টা পর্যন্ত তারা নিজেদের মধ্যে বৈঠক করেন বলে জানা গেছে।

সার্চ কমিটির সঙ্গে বৈঠকের বিষয়ে ছাত্রদলের সাবেক সহসভাপতি ইখতিয়ার রহমান কবির সাংবাদিকদের বলেন, আমাদের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে একটি স্বল্পকালীন আহ্বায়ক কমিটি গঠনের চিন্তাভাবনা হচ্ছে। আলোচনা চলছে, আরও চলবে। বৈঠকে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমান উল্লাহ আমান, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলনসহ সার্চ কমিটির অন্য নেতারা উপস্থিত ছিলেন। ছাত্রদলের বিলুপ্ত কমিটির নেতাদের মধ্যে সাবেক সহসভাপতি এজমল হোসেন পাইলট, ইখতিয়ার রহমান কবির, মামুন বিল্লাহ, সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ, যুগ্ম সম্পাদক বায়েজিদ আরেফিন, কাজী মোক্তার হোসেন, সাবেক সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক গোলাম আজম সৈকত, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ছাত্রদলের সভাপতি জহির উদ্দিন তুহিনসহ ৪০ জন উপস্থিত ছিলেন।

গত ৩ জুন ছাত্রদলের মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটি ভেঙে দিয়ে কাউন্সিলের মাধ্যমে নতুন কমিটি গঠনের কার্যক্রম শুরু করে বিএনপি। এরপর থেকেই বিলুপ্ত কমিটির নেতারা ধারাবাহিক কমিটি গঠনের দাবিতে নয়াপল্টন কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ করে আসছিলেন। ২২ জুন আন্দোলনকারী ছাত্রদলের ১২ নেতাকে বহিষ্কার করা হয়। পরে পরিস্থিতি আরও খারাপের দিকে গেলে ছাত্রদলে সংকট সমাধানে দুই স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস ও গয়েশ্বর চন্দ্র রায় এবং যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলালকে দায়িত্ব দেন তারেক রহমান। এ নিয়ে দায়িত্ব প্রাপ্তরা দফায় দফায় বৈঠক করেন। স্থগিত করা হয় কাউন্সিলের কার্যক্রম। তফসিল অনুযায়ী গত ১৫ জুলাই কাউন্সিল হওয়ার কথা ছিল।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×