ভুটানের পাথর নিয়ে জাহাজ বাংলাদেশে

নদীপথে ত্রিদেশীয় বাণিজ্যের শুভ সূচনা

প্রকাশ : ১৯ জুলাই ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

  যুগান্তর রিপোর্ট

প্রথমবারের মতো ভুটান থেকে নদীপথে একটি পণ্যবাহী জাহাজ বাংলাদেশে এসেছে। জাহাজটি ভারত হয়ে নারায়ণগঞ্জের মেঘনা ঘাটে ভিড়ে মঙ্গলবার। এর মাধ্যমে নদীপথে বাংলাদেশ-ভারত-ভুটানের মধ্যে বাণিজ্যে নবযাত্রার সূচনা হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জের মেঘনা ঘাটে বাংলাদেশ, ভারত ও ভুটান সরকারের প্রতিনিধিরা ফিতা কেটে বাণিজ্যিক কার্যক্রমের সূচনা করেন। এ সময় বাংলাদেশস্থ ভারতীয় হাইকমিশনার রীভা গাঙ্গুলি দাশ, ভুটানের রাষ্ট্রদূত সোনম টি রাবগি, বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) চেয়ারম্যান কমোডর এম মাহবুব উল ইসলামসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বসুন্ধরা গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান সাফওয়ান সোবহান। অনুষ্ঠানে ইন্দো-বাংলা রুট ব্যবহার করে আসা প্রথম চালানটি গ্রহণ করা হয়।

ভারতের হাইকমিশনার রীভা গাঙ্গুলি দাশ বলেন, ‘ভুটান থেকে ভারত হয়ে বাংলাদেশে নদীপথে পাথর আমদানি তিনটি দেশে ট্রেডের এক নবসূচনা করেছে। এটি একটি ঐতিহাসিক মুহূর্ত। এই উদ্যোগে ভারত-ভুটান-বাংলাদেশকে নিয়ে আমরা নতুন স্বপ্ন দেখতে পারি। আগামী দিনগুলোর বাণিজ্য এভাবেই হওয়া উচিত। এতে তিন দেশের সম্পর্ক আরও উন্নত হবে। আর এই সম্পর্ককে আমরা আরও নতুন উচ্চমাত্রায় নিয়ে যেতে চাই।’

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) চেয়ারম্যান কমোডর এম মাহবুব উল ইসলাম বলেন, ‘এই উদ্যোগ আমাদের ত্রিদেশীয় যোগাযোগ বাড়াবে। বাড়বে বাণিজ্যিক সম্পর্কও। বাড়াবে জাতিগত সংযোগ, সম্পর্ক ও সহায়তা। নদীপথের যে কোনো সমস্যা সমাধানে সব সময় বিআইডব্লিউটিএ প্রস্তুত। একসঙ্গে কাজ করলে যে কোনো সমস্যা সমাধান সম্ভব।’

ভারতীয় হাইকমিশন সূত্রে জানা যায়, দেশটির নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী মনসুখ মাণ্ডব্য ১২ জুলাই ডিজিটালভাবে এমভি এএসআই নামের ভারতের অভ্যন্তরীণ নৌ কর্তৃপক্ষের এই জাহাজটির যাত্রার সূচনা করেন। এরপর জাহাজটি ভারতের আসামের ধুবরি থেকে যাত্রা করে ব্রহ্মপুত্র নদ হয়ে নারায়ণগঞ্জে পৌঁছায়। জাহাজটি ১ হাজার টন পাথর পরিবহন করছে, যা স্থলপথে পরিবহন করতে ৫০টিরও বেশি ট্রাকের প্রয়োজন হতো।