খালেদা জিয়ার মুক্তি বিষয়ে বিদেশিদের জানাবে বিএনপি

চার বিভাগে সমাবেশ সেপ্টেম্বরে, প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে ঢাকায় র‌্যালি

  যুগান্তর রিপোর্ট ১৮ আগস্ট ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসা ও মুক্তির বিষয়টি বিশ্বের প্রভাবশালী দেশগুলোসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থাকে জানানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিএনপি। দলটি মনে করছে, বিচার বিভাগকে সরকার নিয়ন্ত্রণ করছে, তাই ন্যায়বিচার তারা পাবেন না। এজন্য আন্তর্জাতিকভাবে সরকারের ওপর চাপ সৃষ্টি করতে চায় দলটি। এ ছাড়াও খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে স্থগিত থাকা চার বিভাগীয় সমাবেশ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। একই সঙ্গে পহেলা সেপ্টেম্বর দলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে ঢাকায় ব্যাপক শোডাউন (র‌্যালি) করা হবে। শনিবার গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে জাতীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠকে এসব সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

বৈঠকে লন্ডন থেকে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান স্কাইপেতে যুক্ত ছিলেন। বিকেল ৫টা থেকে আড়াই ঘণ্টার এই বৈঠকে ছিলেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ব্যারিস্টার জমিরউদ্দিন সরকার, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ড. আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, বেগম সেলিমা রহমান ও ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু। বৈঠক শেষে সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি মহাসচিব বলেন, আমরা দেশনেত্রীর স্বাস্থ্য ও তার মুক্তির বিষয়ে আন্তর্জাতিকভাবে পদক্ষেপ নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। যেসব গণতান্ত্রিক দেশ আছে তাদের জানাব। অন্যায়ভাবে যে দেশনেত্রীকে আটক করে রাখা হয়েছে সে বিষয়টা আন্তর্জাতিক পর্যায়ে নিয়ে আসার জন্য যথোপযুক্ত ব্যবস্থা নেব।

মির্জা ফখরুল বলেন, আপনারা জানেন, ঈদের আগে দলের চেয়ারপারসন দেশনেত্রী খালেদা জিয়ার জামিনের যে বিষয়টা এসেছিল হাইকোর্টে, সেখানে একটা নেতিবাচক আদেশ হওয়ার পর থেকে আমাদের ধারণাটা আরও দৃঢ় হয়েছে যে, এখন বিচারব্যবস্থা আর স্বাভাবিকভাবে কাজ করতে পারছে না। সরকার বিচারব্যবস্থাকে নিয়ন্ত্রণ করছে। সে ক্ষেত্রে আইনিভাবে এটা কিছুটা অনিশ্চিত হয়ে পড়ছে যে, এখানে আমরা ন্যায়বিচার পাব কি না। কর্মসূচি প্রসঙ্গে মির্জা ফখরুল বলেন, ঈদের আগে আমরা বিভাগীয় সমাবেশ শুরু করেছিলাম। বন্যার কারণে চার বিভাগীয় সমাবেশ স্থগিত করি। আগস্টেই চার বিভাগীয় সমাবেশ করতে চেয়েছিলাম, কিন্তু এ মাসে সরকার তো অনুমতি দেবে না। তাই আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি সেপ্টেম্বর থেকে চার বিভাগীয় সমাবেশ শুরু করব।

১ সেপ্টেম্বর দলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কর্মসূচি সম্পর্কে বিএনপি মহাসচিব বলেন, প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালনে জেলা, মহানগর, উপজেলা পর্যায়ে র‌্যালি, সভা সমাবেশ, আলোচনা সভা অনুষ্ঠানের সিদ্ধান্ত হয়েছে। প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর দিন ঢাকায় কেন্দ্রীয়ভাবে আমরা র‌্যালি ও পরদিন আলোচনা সভা করব। এর পরেই খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে বিভাগীয় সমাবেশগুলো সমাপ্ত করব।

ডেঙ্গু প্রসঙ্গে মির্জা ফখরুল বলেন, ডেঙ্গু পরিস্থিতি আগের চেয়ে আরও ভয়াবহ। সবাই বলছেন, আগামী মাস নাকি আরও খারাপ যাবে। দুর্ভাগ্যের বিষয় হচ্ছে, এখন পর্যন্ত ডেঙ্গু প্রতিরোধে ওষুধ এসে পৌঁছেনি। আমরা গত সভা থেকে সিদ্ধান্ত নিয়ে সরকারকে অনুরোধ করেছিলাম, ডেঙ্গু প্রতিরোধে জরুরি ভিত্তিতে ব্যবস্থা নিতে। সেটা সরকার করেনি, আপদকালীন একটা ব্যবস্থা নেয়ার কথা বলেছিলাম, সেটা নেয়া হয়নি। আমরা বিনা খরচে ডেঙ্গু চিকিৎসা দেয়ার কথা বলেছিলাম, তাও দেয়া হয়নি।

কোরবানির চামড়া নিয়ে ক্ষমতাসীন দলের সিন্ডিকেটের তৎপরতা এবং সরকারের ব্যর্থতার কঠোর সমালোচনা করে মির্জা ফখরুল বলেন, চামড়া শিল্প ধ্বংসের জন্য এসব কাজ করেছে। স্থায়ী কমিটির বৈঠকে সরকারের ব্যর্থতা ও উদাসীনতার জন্য তীব্র নিন্দা জানিয়েছি। আমরা অবিলম্বে এই শিল্পকে রক্ষার জন্য যথাযথ ব্যবস্থা নিতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×