জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগ

স্থায়ী না করলে চাকরি ছাড়ার হুমকি ৪০ জনের

নেপথ্যে অসৎ উদ্দেশ্য : কর্তৃপক্ষ

  যুগান্তর রিপোর্ট ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

নির্বাচন কমিশনের চলমান এক প্রকল্পের মেয়াদ শেষ হওয়ার পর চাকরি রাজস্ব খাতে স্থায়ীকরণ এবং পদের নাম ও গ্রেড পরিবর্তন করার দাবি জানিয়েছেন কর্মরত ৪০ জন টেকনিক্যাল এক্সপার্ট। অন্যথায় আইডেন্টিফিকেশন সিস্টেম ফর ইনহ্যান্সিং একসেস টু সার্ভিসেস (আইডিইএ) নামক এ প্রকল্প থেকে চাকরি ছাড়ার হুমকি দিয়েছেন তারা। সোমবার ওই প্রকল্পের মহাপরিচালককে এক চিঠি দিয়ে এসব দাবি জানান তারা। অন্যথায় তাদের চাকরির মেয়াদ আর না বাড়াতে অনুরোধ জানান এসব টেকনিক্যাল এক্সপার্টরা। এর আগেও একইভাবে ৩২ জন টেকনিক্যাল এক্সপার্ট প্রকল্প পরিচালককে চিঠি দিয়ে তাদের চাকরির মেয়াদ না বাড়াতে অনুরোধ জানিয়েছিলেন। আরও এক হাজারের বেশি ডাটা এন্ট্রি অপারেটর এ ধরনের চিঠি দিতে যাচ্ছেন বলে জানান প্রকল্প সংশ্লিষ্টরা।

তবে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে একসঙ্গে চাকরি ছাড়ার হুমকির নেপথ্যে অসৎ উদ্দেশ্য রয়েছে বলে মনে করছেন কর্তৃপক্ষ। আইন ও বিধির বাইরে কোনো পদক্ষেপ নেয়া হবে না বলেও জানানো হয়েছে। এ বিষয়ে প্রকল্প পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) মোহাম্মদ ছাইদুল ইসলাম সোমবার রাতে যুগান্তরকে বলেন, ৪০ জন টেকনিক্যাল এক্সপার্ট তাদের দাবি-দাওয়ার বিষয়টি চিঠি দিয়ে জানিয়েছেন।

এর আগেও ৩২ জন একই ধরনের চিঠি দিয়েছিলেন। আমরা নিয়ম-নীতি ও সরকারি বিধি-বিধান মেনে তাদের দাবি মানার চেষ্টা করছি। কিন্তু সংঘবদ্ধভাবে একের পর এক চিঠি দেয়া ভালোভাবে নিচ্ছি না। তিনি বলেন, তারা এককভাবে চাকরিতে যোগ দিয়েছিলেন। এককভাবেই চাকরি ছাড়তে পারেন। কিন্তু সংঘবদ্ধভাবে এ ধরনের চিঠি দিয়ে কী বুঝাতে চাচ্ছেন? এসব ঘটনার নেপথ্যে যারা কলকাঠি নাড়ছেন, তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। এদিকে আইডিইএ প্রকল্পে কর্মরত একাধিক কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, প্রায় একযুগ ধরে প্রকল্পে চাকরি করার পরও আমাদের ভবিষ্যৎ অন্ধকারে। বছরের পর বছর এসব বিষয় নিয়ে কমিশনে দাবি তোলা হলেও তা পূরণ হয়নি। বিগত কাজী রকিবউদ্দীন আহমদের কমিশনের সময়ে ২০১৩ সালের ৩০ জুন কমিশনের ৪৬তম সভায় আমাদের দাবির কিছু অংশ বাস্তবায়নের নির্দেশ দেয়া হয়। কিন্তু এখন পর্যন্ত তা মানা হয়নি। এ বিষয়ে সোমবার ৪০ জন টেকনিক্যাল এক্সপার্ট তাদের চিঠিতে বলেছেন, বিগত কমিশনের সময়ে নেয়া সিদ্ধান্তের আলোকে পদের নাম ও গ্রেডসমূহ যদি পরিবর্তন না করা হয় এবং চলমান আইডিইএ প্রকল্পের সমাপ্তির পর যদি রাজস্ব বাজেটে স্থানান্তর করে চাকরি স্থায়ী করা না হয়, তাহলে ফেব্রুয়ারির পর আমাদের চাকরির মেয়াদ আর বৃদ্ধি না করার অনুরোধ করছি। ২০০৭ সাল থেকে ভোটার তালিকা তৈরির কাজে থাকার অভিজ্ঞতা তুলে ধরে চিঠিতে তারা আরও উল্লেখ করেন, পদ ও বেতন সমন্বয় না করায় উৎসব ভাতা, টিএডিএ প্রাপ্তি সংক্রান্ত নানান জটিলতা সৃষ্টি হচ্ছে। আইডিইএ প্রকল্পের মেয়াদ ডিসেম্বর পর্যন্ত বাড়ানোর প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে। কিন্তু রিভাইজড ডিপিপিতে টেকনিক্যাল এক্সপার্টদের সহকারী প্রোগ্রামার ও টেকনিক্যাল সাপোর্টারদের ডাটা এন্ট্রি সুপারভাইজার হিসেবে অন্তর্ভুক্তির পদক্ষেপ নেই। এসব বিষয় অন্তর্ভুক্তির দাবি জানান তারা।

 

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
.