৪ হাজার মে.ও. বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণের প্রস্তাব যুক্তরাষ্ট্রের

  বিশেষ সংবাদদাতা ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

কক্সবাজারের মাতারবাড়িতে তরল প্রাকৃতিক গ্যাস (এলএনজি) ভিত্তিক ৩ থেকে ৪ হাজার মেগাওয়াটের একটি বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপনের প্রস্তাব দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের জেনারেল ইলেকট্রিক কোম্পানি (জিই)। রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন কোল পাওয়ার জেনারেশন কোম্পানি অব বাংলাদেশ লিমিটেডের (সিপিজিবিবিএল) সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে বিদ্যুৎ কেন্দ্রটি করা হবে। এ ক্ষেত্রে প্রস্তাবিত বিদ্যুৎ প্রকল্পের ২০ শতাংশ শেয়ারের মালিক হবে জিই, সিপিজিসিবিএল ৫১ ভাগ এবং বাকি ২৯ শতাংশ কৌশলগত বিনিয়োগকারীর মাধ্যমে ভাগ করা হবে।

সুইজারল্যান্ড, ফ্রান্স ও এশিয়ান ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক এবং ইসলামিক ডেভেলপমেন্ট ব্যাংকের এক্সপোর্ট ক্রেডিট এজেন্সি থেকে প্রকল্পটি বাস্তবায়নে ঋণ নেয়া হবে। বিদ্যুৎ কেন্দ্রের পাশাপাশি জিই মাতারবাড়িতে একটি এলএনজি টার্মিনাল স্থাপনেরও প্রস্তাব করেছে। ওই টার্মিনালে ৬০০ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস আমদানি করা এলএনজি প্রক্রিয়াজাতকরণের ক্ষমতা থাকবে। জানা গেছে, জেনারেল ইলেকট্রিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) দীপেশ নন্দ সম্প্রতি বিদ্যুৎ বিভাগের সচিব ড. আহমদ কায়কাউসকে প্রকল্পটি বাস্তবায়নে একটি সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) স্বাক্ষরের অনুরোধ জানিয়েছেন। বিদ্যুৎ সচিব মঙ্গলবার সাংবাদিকদের বলেছেন, জিই’র প্রকল্পটি তারা যাচাই-বাছাই করে দেখবেন। এরপর চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

এদিকে মঙ্গলবার বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্শা এস বার্নিকাট। এ সময় তারা পারস্পরিক স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করেছেন বলে বিদ্যুৎ বিভাগ থেকে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

সাক্ষাৎকালে রাষ্ট্রদূত জানান, যুক্তরাষ্ট্রের সরকারি ও বেসরকারি খাতের কোম্পানিগুলোর বাংলাদেশের বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাত সম্পর্কে আগ্রহ উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পাচ্ছে। এক্সিলারেট, সানএডিসন, জিই ইত্যাদিসহ কয়েকটি কোম্পানি জ্বালানি ও বিদ্যুৎ খাতে কাজ করতে চাচ্ছে। তিনি জানান, চেনারিসহ বেশ কয়েকটি কোম্পানি এলএনজি নিয়ে কাজ করতে ইচ্ছুক। জিইসহ সরকারি ও বেসরকারি কয়েকটি প্রতিষ্ঠান বিদ্যুৎ উৎপাদনেও আগ্রহ দেখাচ্ছে। তিনি মাতারবাড়ি, কক্সবাজার, পটুয়াখালী, চট্টগ্রাম, আশুগঞ্জ এলাকায় নাইন এইচএ গ্যাস টার্বাইন, স্টিম টার্বাইন, হিট রিকভারি স্টিম জেনারেটর ব্যবহার করে জিই বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপনের ইচ্ছা পোষণ করেছে বলেও জানান।

প্রতিমন্ত্রী যুক্তরাষ্ট্রের আগ্রহকে স্বাগত জানিয়ে বলেন, অন্যান্য দেশের তুলনায় বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে যুক্তরাষ্ট্রের বিনিয়োগ খুবই কম। বিপুল সম্ভাবনাময় এ খাতে যুক্তরাষ্ট্রের বিনিয়োগ বাড়ানোর উদ্যোগ নেয়ার জন্য রাষ্ট্রদূতের সহযোগিতা কামনা করেন। প্রতিমন্ত্রী এ সময় বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতের বর্তমান, ভবিষ্যৎ সম্ভাবনা রাষ্ট্রদূতকে অবহিত করে উৎপাদন, সঞ্চালন, নবায়নযোগ্য জ্বালানি, সোলার, বর্জ্য থেকে বিদ্যুৎ ইত্যাদি বিষয়ে বিনিয়োগের উৎকর্ষতা ও সম্ভাবনা তুলে ধরেন। বিদ্যুৎ খাতে প্রতিবছর ৩.৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার বাংলাদেশে বিনিয়োগ হচ্ছে বলেও জানান। তিনি আরও বলেন, এ অঞ্চলে বিনিয়োগের বিশাল সম্ভাবনা রয়েছে। প্রযুক্তি ও বিনিয়োগ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র এগিয়ে এলে উইন-উইন পরিস্থিতিতে দু’দেশের সমৃদ্ধি বাড়বে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter