আর কোনো স্বপ্ন নেই অধরা সব পেয়ে গেছেন রোনাল্ডো

  যুগান্তর ডেস্ক    ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো

ব্যক্তিগত পর্যায়ে এবং ক্লাবের হয়ে অনেক শিরোপা জিতেছেন। ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো এই প্রথম বলে দিলেন, আর কোনো স্বপ্ন নেই তার। সব স্বপ্নই পূরণ হয়ে গেছে। ‘জীবনে এত সব সুন্দর জিনিস জিতেছি যে, আর কোনো স্বপ্ন বাকি নেই আমার,’ ব্রাজিলের ইউটিউব চ্যানেল ‘দেসিমপেদিদোস’-কে বলেছেন সিআর সেভেন। শুনে মনে হতে পারে রোনাল্ডোর মধ্যে আর নতুন কোনো লক্ষ্য পেরোনোর তাগিদ অবশিষ্ট নেই। সেটা যে ঠিক নয়, তা তিনি দ্রুত মনে করিয়ে দিয়েছেন, ‘অবশ্যই আমি এখনও জিততে চাই। আমি বিশ্বকাপও জিততে চাই। কিন্তু সেসব যদি না-ও হয়, যদি এখনই ক্যারিয়ার শেষ হয়ে যায়, তা হলেও আমি খুবই গর্বিত এবং খুশি থাকব।’ কেন এমন ভাবনা, সেটাও ব্যাখ্যা করেছেন তিনি। বলেছেন, ‘আমি কখনও ভাবিনি এমন দুর্দান্ত ক্যারিয়ার গড়ে তুলতে পারব।’

বিশ্বের অন্যতম সেরা ফুটবলার তিনি। কে বেশি ভালো ফুটবলার- তিনি না মেসি, এ নিয়ে বিশ্ব ফুটবলে তর্ক অব্যাহত। দু’জনে পাল্লা দিয়ে ব্যালন ডি’অর জেতেন। কিন্তু রোনাল্ডো জানেন, তাকে নিয়ে দ্বিধাবিভক্ত ভক্তরা। এক দল তাকে পছন্দ করে, অন্য দল করে না। ‘আমি সেটা জানি। কেউ পছন্দ করে, কেউ করে না,’ বলে চলেন তিনি, ‘আমি সবসময় সেই সব লোকদের সঙ্গেই যুক্ত থাকি, যারা আমার ভালো চায়। যারা আমাকে পছন্দ করে।’ ব্রাজিলীয় চ্যানেলকে এর পর তিনি বলেন, ‘মার্সেলো ও কাসেমিরো আমাকে জানিয়েছে, ব্রাজিলে আমাকে অনেকে পছন্দ করে। ভাষাগত মিল থাকাটাও নিশ্চয়ই একটা ব্যাপার। ব্রাজিল ও পর্তুগালের ইতিহাসও অনেকটা অভিন্ন। সেই কারণে আমি আরও খুশি হয়েছি এমন কথা শুনে।’

তিনি নিজে বহু ফুটবলারের প্রেরণা। যেভাবে নিজেকে কড়া অনুশাসনে রাখেন, যেভাবে নিজেকে ফিট রেখে চলেছেন, তা দেখে যে কোনো ফুটবলার উদ্বুদ্ধ হতে পারেন। কিন্তু রোনাল্ডোর প্রেরণা কে? সি আর সেভেন বলছেন, ‘আমার স্বপ্ন ছিল, পেশাদার ফুটবলার হয়ে ওঠা এবং দেশের হয়ে খেলা। রুই কস্তা, ফার্নান্দো কুটো এবং লুইস ফিগোকে দেখে আমি অনুপ্রাণিত হয়েছি। তাদের দেখে ভাবতাম, একদিন যদি এই কিংবদন্তিদের পাশে খেলতে পারি!’ সবসময়ই কি সেরা হওয়ার লক্ষ্য রেখেছিলেন নিজের সামনে? এই প্রশ্নের উত্তরে রোনাল্ডো যা বলেছেন, তা অবশ্য বিশ্বাস করা কঠিন। বলেছেন, ‘না, আমি সবসময় সেটা ভাবতাম না। কারণ, নিজের ওপর চাপ তৈরি করে ফেললে হিতে বিপরীত হয়। তখন ভালো হওয়ার চেয়ে খারাপই বেশি হয়। আমি স্বাভাবিকভাবে সবকিছু ঘটতে দেয়ায় বিশ্বাসী। আমার জীবনে সবকিছুই সেভাবে ঘটেছে।’ তার পরেই দার্শনিকের মতো তার সংযোজন, ‘জীবনে তখনই ভালো কিছু ঘটে, যখন ঈশ্বর চান ভালো কিছু ঘটুক।’ পাঁচটি ব্যালন ডি’অর জেতা রোনাল্ডো অনেক কম বয়সেই বুঝে গিয়েছিলেন, তার মধ্যে অন্যরকম প্রতিভা রয়েছে, ‘আমি জানতাম, নিশ্চয়ই আমার মধ্যে বিশেষ কিছু প্রতিভা রয়েছে। কারণ আমি এমন সব জিনিস করতে পারতাম যা অন্যরা পারত না। তাই বলে কখনও ব্যালন ডি’অর জিতব, সেটা ভেবে ফেলা সম্ভব ছিল না।’

বিশ্বের ক্লাব ফুটবলে ধাপে ধাপে তার উত্তরণ নিয়েও বলেছেন রোনাল্ডো, ‘আমি প্রথমে খেলেছিলাম স্পোর্টিং লিসবনে। সেখান থেকে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। তারপর রিয়াল মাদ্রিদ। আমার খুব আনন্দ হয়েছিল বড় ক্লাবগুলোতে খেলতে এসে। কারণ, আমি বুঝতে পারছিলাম বিশ্বের সেরা ফুটবলারদের সঙ্গে খেলতে যাচ্ছি।’ ব্যালন ডি’অর জিততে পারেন, সেই ভাবনাও বড় ক্লাবে আসার পর তার মনে এসেছিল বলে জানিয়েছেন রোনাল্ডো, ‘আমি যখন দেখলাম সেরা ফুটবলারদের সঙ্গে বা বিরুদ্ধে খেলেও আমি ছাপ ফেলতে পারছি, তখনই প্রথম মনে হয়েছিল, আমিও ব্যালন ডি’অর জিততে পারি। ১৭-১৮ বছর বয়সে এসে সেটা হয়েছিল। পাঁচ বছর বয়সে বোঝা সম্ভব ছিল না।’ ওয়েবসাইট।

 

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
bestelectronics

 

 

SELECT id,hl2,parent_cat_id,entry_time,tmp_photo FROM news WHERE ((spc_tags REGEXP '.*"people";s:[0-9]+:"ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো".*')) AND id<>22611 ORDER BY id DESC LIMIT 0,5

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
.