ঋণে ২ শতাংশের সুবিধাভোগী

হাইকোর্টের আদেশের মেয়াদ বাড়ল, রুল শুনানি অব্যাহত

  যুগান্তর রিপোর্ট ২১ অক্টোবর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

যেসব ঋণখেলাপি শতকরা ২ শতাংশ ডাউন পেমেন্টের সুবিধা নেবেন তারা কোনো ব্যাংক থেকে ঋণ সুবিধা নিতে পারবেন না বলে হাইকোর্টের আদেশের মেয়াদ আরও এক মাস বাড়ানো হয়েছে। এ সংক্রান্ত রুল শুনানির সময় রোববার বিচারপতি জেবিএম হাসান ও বিচারপতি মো. খায়রুল আলমের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

এদিকে মোট ঋণের ২ শতাংশ এককালীন জমা দিয়ে একজন ঋণখেলাপি ১০ বছরের জন্য ঋণ পুনঃ তফসিলের সুযোগ পাবেন, বাংলাদেশ ব্যাংকের এমন নীতিমালা বেআইনি প্রশ্নে জারি করা রুল শুনানি সোমবার পর্যন্ত মুলতবি করেছেন আদালত। রিট আবেদনকারীর পক্ষে আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকেট মনজিল মোরসেদ। বাংলাদেশ ব্যাংকের পক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার শামীম খালেদ ও মো. মুনীরুজ্জামান।

আদালতের আদেশের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন আইনজীবী মনজিল মোরসেদ। তিনি বলেন, ঋণখেলাপিদের বিশেষ সুবিধা দিয়ে ১৬ মে বাংলাদেশ ব্যাংকের জারি করা প্রজ্ঞাপনের বিষয়ে একটি আবেদন করা হয়। ওই আবেদনের শুনানি নিয়ে ২৯ আগস্ট হাইকোর্ট যারা শতকরা ২ শতাংশ ডাউন পেমেন্টের সুবিধা নেবেন তারা আগামী ২০ অক্টোবর পর্যন্ত আর কোনো ব্যাংক থেকে নতুন ঋণ সুবিধা নিতে পারবেন না মর্মে আদেশ দিয়েছেন। আজ (রোববার) শেষ দিন হওয়ায় নতুন করে আবার মেয়াদ বাড়িয়েছেন।

ব্যাংকের অর্থ আত্মসাৎ, ঋণ অনুমোদনে অনিয়ম, বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি ব্যাংকে ব্যাংক ঋণের ওপর সুদ মওকুফ সংক্রান্ত বিষয় তদন্ত ও তা বন্ধে সুপারিশ প্রণয়নে কমিশন গঠনের নির্দেশনা চেয়ে হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশ (এইচআরপিবি) গত ফেব্রুয়ারি মাসে রিট করে। রিটের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে গত ১৩ ফেব্রুয়ারি হাইকোর্ট রুলসহ অন্তর্বর্তীকালীন আদেশ দেন। বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি ব্যাংক থেকে এক কোটি টাকার ওপরে নেয়া ঋণখেলাপিদের নাম-ঠিকানা সংগ্রহ করে সেসব তথ্য আদালতে দাখিল করতে বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতি নির্দেশ দেয়া হয়। এর ধারাবাহিকতায় সরকারি ও বেসরকারি ব্যাংক থেকে এক কোটি টাকার ওপরে নেয়া ঋণখেলাপিদের নাম-ঠিকানা সংগ্রহ করে সেসব তথ্যাদি সিলগালা অবস্থায় ২৪ জুন আদালতে দাখিল করে বাংলাদেশ ব্যাংক।

এরই মধ্যে মোট ঋণের ২ শতাংশ এককালীন জমা দিয়ে একজন ঋণখেলাপি ১০ বছরের জন্য ঋণ পুনঃ তফসিলের সুযোগ পাবেন, বাংলাদেশ ব্যাংক এমন নীতিমালা জারি করে। এর ধারাবাহিকতায় এই নীতিমালার ওপর হাইকোর্ট স্থিতাবস্থা বজায় রাখার আদেশ দিয়েছিলেন। এই আদেশ স্থগিত চেয়ে অর্থ মন্ত্রণালয়ের অর্থ বিভাগ আপিল বিভাগে আবেদন করেন। ৮ জুলাই আপিল বিভাগ হাইকোর্টের দেয়া স্থিতাবস্থার আদেশ দুই মাসের জন্য স্থগিত করেন। একই সঙ্গে ওই নীতিমালার সুবিধাভোগীরা নতুন করে ঋণ নিতে পারবেন না বলে সিদ্ধান্ত দেন দেশের সর্বোচ্চ আদালত। পাশাপাশি বিচারপতি জেবিএম হাসানের নেতৃত্বাধীন হাইকোর্ট বেঞ্চে এ-সংক্রান্ত রুল নিষ্পত্তি করতে নির্দেশ দেন।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×