নবাবগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ওষুধ সংকট

  আজহারুল হক, নবাবগঞ্জ ২২ নভেম্বর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ঢাকার নবাবগঞ্জে ৫০ শয্যাবিশিষ্ট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ওষুধ সংকট যেন পিছু ছাড়ছে না। উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে চিকিৎসা নিতে আসা গরিব রোগীদের দাবি- সরকারের সংশ্লিষ্ট দফতর থেকে হাসপাতালটিতে ৩০ ধরনের বেশি ওষুধ সরবরাহ করলেও তারা নামমাত্র কিছু ওষুধ পেয়ে থাকেন। এখন সেটাও পাওয়া যাচ্ছে না বলে অভিযোগ করেন তারা।

হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, বাজেট না থাকায় ওষুধ সরবরাহ বন্ধ। তাই রোগীদের প্রয়োজনীয় ওষুধ দেয়া সম্ভব হচ্ছে না। চিকিৎসক, ওষুধ, কর্মচারী সংকটের কারণে সরকারের স্বাস্থ্যসেবা কার্যক্রম প্রশ্নবিদ্ধ হচ্ছে বলে মনে করছেন এলাকার জনসাধারণ।

উপজেলার চুড়াইন ইউনিয়নের শান্তিপুরের জমিলা খাতুন, যন্ত্রাইল হরিস্কুল গ্রামের আশানন্দ ও গালিমপুর সূর্যখালী গ্রামের আরজু বলেন, ডাক্তার অ্যান্টাসিড, প্যারাসিটামল ও হিসটাসিন ট্যাবলেট লেখে দিয়েছেন। কিন্তু হাসপাতালে এ ওষুধ নেই। তারা এ জন্য কর্তৃপক্ষকে দায়ী করেন। তারা বলেন, গাড়ি ভাড়ার টাকা দিয়ে ওষুধ কিনতে পারতাম। সরকারি ওষুধে ভালো কাজ হয়, তাই এখানে আসছি।

সরেজমিন বৃহস্পতিবার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে দেখা যায়, প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে আসা বিপুলসংখ্যক রোগী প্রয়োজনীয় ওষুধ না পেয়ে ফিরে যাচ্ছেন। এসব ওষুধের সরবরাহ নেই প্রায় ১ মাস। হাসপাতালটিকে ৫০ শয্যায় উন্নীত করা হলেও পর্যাপ্ত জনবল নিয়োগ দেয়া হয়নি। বহির্বিভাগে প্রতিদিন গড়ে ৩-৪শ’ ও জরুরি বিভাগে ২শ’ রোগী চিকিৎসা নিতে আসেন। কিন্তু প্রয়োজনীয়সংখ্যক চিকিৎসকের অভাবে বিপুলসংখ্যক রোগী ভোগান্তির কবলে পড়েন প্রতিদিন।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. শহিদুল ইসলাম বলেন, ওষুধের সংকট নেই। ঢাকা জেলা সিভিল সার্জন ডা. বিল্লাল হোসেন বলেন, আন্তঃমন্ত্রণালয় জটিলতার কারণে ওষুধের সংকট হয়েছিল। দ্রুত সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×