প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা

হজযাত্রীদের বিমান ভাড়া কমানোর দাবি হাবের

  যুগান্তর রিপোর্ট ২৪ জানুয়ারি ২০২০, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

হজযাত্রীদের বিমান ভাড়া কমানোর দাবি জানিয়েছে হজ এজেন্সিস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (হাব)। রাজধানীর নয়াপল্টনে বৃহস্পতিবার সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনটির সভাপতি এম শাহাদাত হোসাইন তসলিম এ দাবি জানান। তিনি এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপও কামনা করেন।

এবার হজে যেতে যাত্রীপ্রতি বিমান ভাড়া ১ লাখ ৪০ হাজার টাকা নির্ধারণ করে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়। ১৯ জানুয়ারি সচিবালয়ে আন্তঃমন্ত্রণালয় সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। তবে তা প্রত্যাখ্যান করে ধর্ম মন্ত্রণালয় ও হাব। প্রতিবাদে বৈঠক থেকে বেরিয়ে আসে তারা। গেল বছর ভাড়া ছিল ১ লাখ ২৮ হাজার টাকা।

তসলিম বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা হজ ব্যবস্থাপনার প্রতিটি বিষয় প্রত্যক্ষভাবে তত্ত্বাবধান করেন। এ কারণেই বর্তমানে হজ ব্যবস্থাপনা অত্যন্ত সুশৃঙ্খল। এরমধ্যে বিশৃঙ্খলার জাল ছড়ানো সমীচীন হবে না। এ বছর (২০২০) কোনোভাবেই বিমান ভাড়া বাড়ানো যুক্তিযুক্ত হবে না। বিষয়টি প্রধানমন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্ট সবার নজরে আনতে এ সংবাদ সম্মেলন। হাব সভাপতি বলেন, এ বছর কোনো ব্যয় বাড়েনি। বাংলাদেশ ও সৌদি আরবের সরকার কোনো ট্যাক্স বাড়ায়নি। জ্বালানি তেলের (জেট ফুয়েল) মূল্যও বাড়েনি। বরং গতবার জ্বালানি তেলের দাম ছিল প্রতি লিটার ৭১ সেন্ট। এ বছর তা কমে ৫৮ সেন্ট হয়েছে। অর্থাৎ প্রতি লিটারে কমেছে ১৩ সেন্ট। তারপরও কেন বিমান ভাড়া বাড়ানো হবে?

তসলিম বলেন, সরকার হজ প্যাকেজের বিমান ভাড়া নির্ধারণ করে ডেডিকেটেড ফ্লাইটের জন্য। কিন্তু এয়ারলাইন্সগুলো একই ভাড়ায় রেগুলার ফ্লাইটেও হজযাত্রী নেয়। বছরের অন্য সময়ে সৌদি আরবের ভাড়া (যাওয়া ও আসা) ৪৪ হাজার থেকে ৫৭ হাজার টাকা। ডেডিকেটেট ফ্লাইটের ক্ষেত্রে যেহেতু উড়োজাহাজটিকে দু’বার যাওয়া-আসা করতে হয় সেহেতু এর ভাড়া সর্বোচ্চ ৮৮ হাজার থেকে ১ লাখ ১৪ হাজার টাকা হতে পারে। এর চেয়ে বেশি বিমান ভাড়া হতে পারে না।

হাব সভাপতি বলেন, হজ ব্যবস্থাপনার অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ অংশ বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স। অত্যন্ত পরিতাপের সঙ্গে লক্ষণীয়, বিভিন্ন অজুহাতে এ বছর তারা হজযাত্রীদের বিমান ভাড়া ১২ হাজার টাকা বাড়িয়েছে, যা সম্পূর্ণ অযৌক্তিক ও অনৈতিক। বরং জেট ফুয়েলের দাম কমার কারণে ভাড়া গতবারের চেয়েও কমানোর দাবি করেন তিনি।

হাব সভাপতি বলেন, ৩০ থেকে ৪০ শতাংশ হজযাত্রীকে রেগুলার (সিডিউল) ফ্লাইটে পরিবহন করে থাকে বিমান। রেগুলার ফ্লাইটে কম ভাড়ার সাধারণ যাত্রীদের সঙ্গেই বেশি ভাড়ায় হজযাত্রীদের পরিবহন করা হচ্ছে। ডেডিকেটেট ফ্লাইট ও শিডিউল ফ্লাইটে হজযাত্রীর জন্য আলাদা আলাদা ভাড়া নির্ধারণ করতে হবে।

বাংলাদেশি হজযাত্রীদের বিমান ভাড়া অন্য দেশ থেকে অনেক বেশি জানিয়ে হাব সভাপতি বলেন, আমাদের প্রতিবেশী দেশ ভারত হজযাত্রী পরিবহনে আগ্রহী এয়ারলাইন্সগুলো থেকে দরপত্র আহ্বান করে সর্বনিম্ন বিমান ভাড়া নির্ধারণ এবং তাদের অধিকার ও সুবিধাদি নিশ্চিত করে থাকে। কোনো এয়ারলাইন্সকে দরপত্র ছাড়া হজযাত্রী পরিবহনের সুযোগ দেয়া হয় না। একইভাবে বাংলাদেশ থেকে হজযাত্রী পরিবহনে আগ্রহী এয়ারলাইন্সগুলো থেকে দরপত্র আহ্বান করে যৌক্তিক পর্যায়ে বিমান ভাড়া নির্ধারণ করা যেমন সম্ভব, তেমনি হজযাত্রীদের জন্য এয়ারলাইন্সগুলোর সেবা নিশ্চিত করাও সম্ভব।

হজযাত্রীদের বিমান ভাড়া যৌক্তিকভাবে নির্ধারণ করা উচিত জানিয়ে তসলিম বলেন, পুরো বিষয়টি পর্যালোচনার মাধ্যমে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের জন্য ‘ভালো প্রফিট’ রেখে হজযাত্রীদের বিমান ভাড়া পুনর্নির্ধারণে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

ভাড়া বাড়ানোর জন্য বিমান কী যুক্তি দিয়েছে জানতে চাইলে হাব সভাপতি বলেন- বিমান জানিয়েছে, ডলারপ্রতি মূল্য বেড়েছে ৭৫ পয়সা, এজন্য তারা ভাড়া বাড়িয়েছে। প্রতি ডলারের দাম ৭৫ পয়সা বাড়লেও একজন হজযাত্রীর ভাড়া সর্বোচ্চ ১ হাজার ২০০ টাকা বাড়বে। সেখানে ১২ হাজার টাকা বাড়ানোর কোনো যৌক্তিকতা নেই।

হজ প্যাকেজ এখনও চূড়ান্ত হয়নি উল্লেখ করে তসলিম বলেন, আমাদের প্রত্যাশা ভাড়া কমবে। এরপর আমরা হজ প্যাকেজ চূড়ান্ত করব।

সংবাদ সম্মেলনে হাব মহাসচিব ফারুক আহমেদ সরদার, সিনিয়র সহ-সভাপতি মাওলানা ইয়াকুব শরাফতী, অ্যাসোসিয়েশন অব ট্রাভেল এজেন্টস অব বাংলাদেশের (আটাব) সভাপতি মো. মাজহারুল হক ভূঁইয়া প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

চাঁদ দেখা সাপেক্ষে ৩১ জুলাই পবিত্র হজ অনুষ্ঠিত হতে পারে। এ বছর বাংলাদেশ থেকে ১ লাখ ৩৭ হাজার ১৯৮ জন হজ করতে সৌদি আরব যাবেন।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

 
×