করোনা আতঙ্কে ঢাবি ও শেকৃবিতে ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন
jugantor
করোনা আতঙ্কে ঢাবি ও শেকৃবিতে ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন
সাময়িক বন্ধ ঘোষণার দাবি শিক্ষক সমিতি ও ডাকসুর

  ঢাবি ও শেকৃবিতে প্রতিনিধি  

১৬ মার্চ ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) আতঙ্কে ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) ও শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শেকৃবি) অধিকাংশ বিভাগের শিক্ষার্থীরা।

ঢাবিতে ক্লাস-পরীক্ষা বন্ধের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে বারবার আবেদন করে কোনো সাড়া না পাওয়ায় রোববার থেকে অনির্দিষ্ট কালের জন্য ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

রোববার সকালে সরেজমিন দেখা যায়- ঢাবির কলাভবন, কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার, কার্জন হলসহ বিভিন্ন এলাকায় শিক্ষার্থীর উপস্থিতি অন্য দিনের তুলনায় অনেক কম।

করোনায় অনির্দিষ্টকালের জন্য সব শিক্ষা কার্যক্রম স্থগিতের দাবিতে বিশ্ববিদ্যালয় ভিসি বরাবর স্মারকলিপি দিয়েছেন ঢাবির প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থীরা। রোববার সকালে তারা এ স্মারকলিপি প্রদান করেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. গোলাম রব্বানী বলেন, ‘শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তার বিষয়টি নিয়ে আমরা ভাবছি। শিক্ষার্থীরাও তাদের নিরাপত্তা নিয়ে ভাবছেন। করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি থেকে বাঁচতে প্রয়োজনীয় সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে।’

ঢাবি বন্ধের আবেদন শিক্ষক সমিতির : রোববার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাময়িক বন্ধের জন্য ভিসি অধ্যাপক ড. আখতারুজ্জামান বরাবর আবেদন করেছে ঢাবি শিক্ষক সমিতি।

এ বিষয়ে আজ সোমবার সকাল ১০টায় আলোচনা হওয়ার কথা রয়েছে। শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. এএসএম মাকসুদ কামাল ও সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. নিজামুল হক ভূঁইয়া স্বাক্ষরিত এ আবেদনপত্রে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সব ক্লাস সাময়িক বন্ধ ঘোষণা অথবা গ্রীষ্মকালীন ছুটি নির্ধারিত সময়ের আগে কার্যকর করে শিক্ষার্থীদের হল ত্যাগের নির্দেশ দেয়ার অনুরোধ জানান।

সাময়িক বন্ধের দাবি ডাকসুর : বিশ্ববিদ্যালয় সাময়িক বন্ধের দাবিসহ বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বরাবর ৫ দফা দাবি জানিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু)।

সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের আহ্বান শিক্ষক সমিতি ফেডারেশনের : বাংলাদেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান সাময়িক বন্ধ অথবা গ্রীষ্মকালীন ছুটি নির্ধারিত সময়ের আগে কার্যকর করার আহ্বান জানিয়েছে বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি ফেডারেশন।

এর সংক্রমণ রোধে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাময়িক বন্ধের জন্য ভিসির কাছে আবেদন করেছে ঢাবি শিক্ষক সমিতি। রোববার সন্ধ্যায় এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে প্রধানমন্ত্রীর কাছে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের আহ্বান জানায় তারা।

ঢাবি ছাত্র ইউনিয়নের ৪৮ ঘণ্টার আলটিমেটাম : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধের জন্য ৪৮ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র ইউনিয়ন।

রোববার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয় মধুর ক্যান্টিনে এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে তারা এ আলটিমেটাম দেয়। এ সময় তারা আট দফা দাবি উপস্থাপনা করে।

ছাত্র ইউনিয়ন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি সাখাওয়াত ফাহাদ, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক উপস্থিত ছিলেন।

শেকৃবিতে ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন : শেকৃবি প্রতিনিধি জানান, রোববার শেকৃবি সাংবাদিক সমিতির কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে বিশ্বব্যাপী করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত ক্লাস-পরীক্ষা বর্জনের সিদ্ধান্ত জানিয়েছেন শিক্ষার্থীরা।

সংবাদ সম্মেলনে বিভিন্ন অনুষদের বিভিন্ন লেভেলের ক্লাস প্রতিনিধিরা-সিআর উপস্থিত ছিলেন। দেশের করোনা পরিস্থিতির আলোকে বিশ্ববিদ্যালয়ের উচ্চপর্যায়ের এক সভায় আপাতত ৩টি সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

শেকৃবি ভিসি অধ্যাপক ড. কামাল উদ্দিন আহাম্মদ বলেন, আপাতত সব পরীক্ষা স্থগিত করেছি। বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন মসজিদে তাবলিগ জামাতের জমায়েতে নিয়ন্ত্রণ আরোপসহ ক্যাম্পাসে সব গণজমায়েত স্থগিত করা হয়েছে।

বিদেশ ফেরত শিক্ষকদের ক্ষেত্রে তাদের নিজ উদ্যোগে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিনে থাকার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

করোনা মোকাবেলায় বাংলাদেশের সামনে ১৪ চ্যালেঞ্জ : করোনাভাইরাসে সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়লে দেশে বিদ্যমান স্বাস্থ্যসেবার দুর্বল ব্যবস্থাপনায় এটা মোকাবেলায় বড় ধরনের চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হতে হবে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

রোববার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবনে ‘করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) প্রাদুর্ভাব : চ্যালেঞ্জ ও কনসার্নস ফর বাংলাদেশ’ শীর্ষক সেমিনারের আয়োজন করা হয়। মূল প্রবন্ধে করোনাভাইরাস মোকাবেলায় বাংলাদেশের জন্য ১৪টি চ্যালেঞ্জের কথা উল্লেখ করা হয়।

করোনা আতঙ্কে ঢাবি ও শেকৃবিতে ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন

সাময়িক বন্ধ ঘোষণার দাবি শিক্ষক সমিতি ও ডাকসুর
 ঢাবি ও শেকৃবিতে প্রতিনিধি 
১৬ মার্চ ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) আতঙ্কে ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) ও শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শেকৃবি) অধিকাংশ বিভাগের শিক্ষার্থীরা।

ঢাবিতে ক্লাস-পরীক্ষা বন্ধের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে বারবার আবেদন করে কোনো সাড়া না পাওয়ায় রোববার থেকে অনির্দিষ্ট কালের জন্য ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

রোববার সকালে সরেজমিন দেখা যায়- ঢাবির কলাভবন, কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার, কার্জন হলসহ বিভিন্ন এলাকায় শিক্ষার্থীর উপস্থিতি অন্য দিনের তুলনায় অনেক কম।

করোনায় অনির্দিষ্টকালের জন্য সব শিক্ষা কার্যক্রম স্থগিতের দাবিতে বিশ্ববিদ্যালয় ভিসি বরাবর স্মারকলিপি দিয়েছেন ঢাবির প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থীরা। রোববার সকালে তারা এ স্মারকলিপি প্রদান করেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. গোলাম রব্বানী বলেন, ‘শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তার বিষয়টি নিয়ে আমরা ভাবছি। শিক্ষার্থীরাও তাদের নিরাপত্তা নিয়ে ভাবছেন। করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি থেকে বাঁচতে প্রয়োজনীয় সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে।’

ঢাবি বন্ধের আবেদন শিক্ষক সমিতির : রোববার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাময়িক বন্ধের জন্য ভিসি অধ্যাপক ড. আখতারুজ্জামান বরাবর আবেদন করেছে ঢাবি শিক্ষক সমিতি।

এ বিষয়ে আজ সোমবার সকাল ১০টায় আলোচনা হওয়ার কথা রয়েছে। শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. এএসএম মাকসুদ কামাল ও সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. নিজামুল হক ভূঁইয়া স্বাক্ষরিত এ আবেদনপত্রে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সব ক্লাস সাময়িক বন্ধ ঘোষণা অথবা গ্রীষ্মকালীন ছুটি নির্ধারিত সময়ের আগে কার্যকর করে শিক্ষার্থীদের হল ত্যাগের নির্দেশ দেয়ার অনুরোধ জানান।

সাময়িক বন্ধের দাবি ডাকসুর : বিশ্ববিদ্যালয় সাময়িক বন্ধের দাবিসহ বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বরাবর ৫ দফা দাবি জানিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু)।

সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের আহ্বান শিক্ষক সমিতি ফেডারেশনের : বাংলাদেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান সাময়িক বন্ধ অথবা গ্রীষ্মকালীন ছুটি নির্ধারিত সময়ের আগে কার্যকর করার আহ্বান জানিয়েছে বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি ফেডারেশন।

এর সংক্রমণ রোধে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাময়িক বন্ধের জন্য ভিসির কাছে আবেদন করেছে ঢাবি শিক্ষক সমিতি। রোববার সন্ধ্যায় এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে প্রধানমন্ত্রীর কাছে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের আহ্বান জানায় তারা।

ঢাবি ছাত্র ইউনিয়নের ৪৮ ঘণ্টার আলটিমেটাম : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধের জন্য ৪৮ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র ইউনিয়ন।

রোববার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয় মধুর ক্যান্টিনে এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে তারা এ আলটিমেটাম দেয়। এ সময় তারা আট দফা দাবি উপস্থাপনা করে।

ছাত্র ইউনিয়ন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি সাখাওয়াত ফাহাদ, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক উপস্থিত ছিলেন।

শেকৃবিতে ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন : শেকৃবি প্রতিনিধি জানান, রোববার শেকৃবি সাংবাদিক সমিতির কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে বিশ্বব্যাপী করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত ক্লাস-পরীক্ষা বর্জনের সিদ্ধান্ত জানিয়েছেন শিক্ষার্থীরা।

সংবাদ সম্মেলনে বিভিন্ন অনুষদের বিভিন্ন লেভেলের ক্লাস প্রতিনিধিরা-সিআর উপস্থিত ছিলেন। দেশের করোনা পরিস্থিতির আলোকে বিশ্ববিদ্যালয়ের উচ্চপর্যায়ের এক সভায় আপাতত ৩টি সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

শেকৃবি ভিসি অধ্যাপক ড. কামাল উদ্দিন আহাম্মদ বলেন, আপাতত সব পরীক্ষা স্থগিত করেছি। বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন মসজিদে তাবলিগ জামাতের জমায়েতে নিয়ন্ত্রণ আরোপসহ ক্যাম্পাসে সব গণজমায়েত স্থগিত করা হয়েছে।

বিদেশ ফেরত শিক্ষকদের ক্ষেত্রে তাদের নিজ উদ্যোগে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিনে থাকার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

করোনা মোকাবেলায় বাংলাদেশের সামনে ১৪ চ্যালেঞ্জ : করোনাভাইরাসে সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়লে দেশে বিদ্যমান স্বাস্থ্যসেবার দুর্বল ব্যবস্থাপনায় এটা মোকাবেলায় বড় ধরনের চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হতে হবে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

রোববার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবনে ‘করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) প্রাদুর্ভাব : চ্যালেঞ্জ ও কনসার্নস ফর বাংলাদেশ’ শীর্ষক সেমিনারের আয়োজন করা হয়। মূল প্রবন্ধে করোনাভাইরাস মোকাবেলায় বাংলাদেশের জন্য ১৪টি চ্যালেঞ্জের কথা উল্লেখ করা হয়।

 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস