আশুলিয়ায় ঘুমন্ত বাবা-মা ও ছেলে গুরুতর দগ্ধ

  আশুলিয়া (ঢাকা) প্রতিনিধি ২৭ মার্চ ২০২০, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

আশুলিয়ায় মশার কয়েলের আগুনে বাবা-মা ও সন্তান ঘুমন্ত অবস্থায় গুরুতর দগ্ধ হয়েছেন। বৃহস্পতিবার ভোরে ধনাইদ ইউসুফ মার্কেট এলাকায় আলহাজ কবির হোসেন মণ্ডলের ভাড়াটে কলোনিতে এ ঘটনা ঘটে। অগ্নিদগ্ধরা হলেন- শান্তি (৪০), তার স্ত্রী চায়না (৩৩) ও তাদের ছেলে নিপু (১৩)। শান্তির বাড়ি নীলফামারীর জলঢাকা উপজেলার বড়ভিটা গ্রামে। স্থানীয়রা ঘরের বারান্দার দরজার তালা ভেঙে তাদের উদ্ধার করেন। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তারা ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপালের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন। তাদের ৬০ থেকে ৯০ ভাগ পর্যন্ত শরীর দগ্ধ হয়েছে। প্রতিবেশীরা জানান, বুধবার রাতে শান্তি তার স্ত্রী ও ছেলেকে নিয়ে কয়েল জ্বালিয়ে ঘুমিয়ে পড়েন। ভোরে অসতর্কতায় কয়েলের আগুন বিছানা স্পর্শ করে এবং একপর্যায়ে সারা কক্ষে ছড়ায়। এতে ঘুমন্ত বাবা-মা ও শিশু সন্তান গুরুতর দগ্ধ হন।

কেরানীগঞ্জে গ্যারেজে আগুন, ১০ প্রাইভেট কার ভস্মীভূত : কেরানীগঞ্জ (ঢাকা) প্রতিনিধি জানান, দক্ষিণ কেরানীগঞ্জে বন্ধ গ্যারেজে অগ্নিকাণ্ডে ১০টি প্রাইভেট কার ভস্মীভূত হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকালে ৪টায় হাসনাবাদ কন্টেইনার রোডের পাশে রুবেল অটোমোবাইলে এ ঘটনা ঘটে। গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়। প্রাইভেট কারগুলো সার্ভিসিংয়ের জন্য রাখা হয়েছিল। পোস্তগোলা ফায়ার সার্ভিসের ৪টি ইউনিট ৩০ মিনিট চেষ্টার পর আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। স্থানীয়রা জানান, বিকালে গ্যারেজের ভেতর প্রচণ্ড বিস্ফোরণের শব্দ হয় এবং ধোয়ার কুণ্ডলি ছড়িয়ে পড়ে। এতে ধারণা করা হচ্ছে, গ্যারেজের ভেতর থাকা গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরিত হয়ে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে। গ্যারেজ মালিক রুবেল জানান, করোনা পরিস্থিতির কারণে গ্যারেজ বন্ধ রাখা হয়েছিল।

আরও পড়ুন

'কোভিড-১৯' সর্বশেষ আপডেট

# আক্রান্ত সুস্থ মৃত
বাংলাদেশ ৫১ ২৫
বিশ্ব ৮,৫৬,৯১৭১,৭৭,১৪১৪২,১০৭
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

 
×