রাজধানীতে অজ্ঞান পার্টির ৫৯ সদস্য গ্রেফতার
jugantor
রাজধানীতে অজ্ঞান পার্টির ৫৯ সদস্য গ্রেফতার

  যুগান্তর রিপোর্ট  

৩১ জুলাই ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগের (ডিবি) একাধিক টিম রাজধানীতে অভিযান চালিয়ে অজ্ঞান পার্টির ৫৯ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে। বুধবার থেকে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় ধারাবাহিকভাবে অভিযান পরিচালনা করে তাদের গ্রেফতার করা হয়। বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টায় ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এ বিষয়ে বিস্তারিত বলেন অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ডিবি) আবদুল বাতেন। এদের মধ্যে গোয়েন্দা ওয়ারী বিভাগ ১৬ জন, সাইবার অ্যান্ড স্পেশাল ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন বিভাগ ১০, গোয়েন্দা মতিঝিল বিভাগ ৯, গোয়েন্দা রমনা বিভাগ ৮, গোয়েন্দা লালবাগ বিভাগ ৮ ও গোয়েন্দা তেজগাঁও বিভাগ ৮ জন অজ্ঞান পার্টির সদস্যকে গ্রেফতার করে। তাদের হেফাজত থেকে ২৪০ পিস চেতনানাশক ট্যাবলেট, ৪টি তরল মুভ স্প্রে বোতল, ৯টি মলমের কৌটা, ৭টি হারবাল পেইন কিলার, ৫টি চাকু, গুল, ৯ চেতনানাশক হালুয়াসহ মরিচের গুঁড়া ও জামবাগ উদ্ধার করা হয়। ডিবির অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার বলেন, অজ্ঞান পার্টির সদস্যরা চেতনানাশক ওষুধ বা লিকুইড কৌশলে চা, ডাব, পানীয় বা অন্য কোনো খাবারের সঙ্গে মিশিয়ে টার্গেটকৃত ব্যক্তিকে খাইয়ে সর্বস্ব লুটে নেয়।

রাজধানীতে অজ্ঞান পার্টির ৫৯ সদস্য গ্রেফতার

 যুগান্তর রিপোর্ট 
৩১ জুলাই ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগের (ডিবি) একাধিক টিম রাজধানীতে অভিযান চালিয়ে অজ্ঞান পার্টির ৫৯ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে। বুধবার থেকে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় ধারাবাহিকভাবে অভিযান পরিচালনা করে তাদের গ্রেফতার করা হয়। বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টায় ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এ বিষয়ে বিস্তারিত বলেন অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ডিবি) আবদুল বাতেন। এদের মধ্যে গোয়েন্দা ওয়ারী বিভাগ ১৬ জন, সাইবার অ্যান্ড স্পেশাল ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন বিভাগ ১০, গোয়েন্দা মতিঝিল বিভাগ ৯, গোয়েন্দা রমনা বিভাগ ৮, গোয়েন্দা লালবাগ বিভাগ ৮ ও গোয়েন্দা তেজগাঁও বিভাগ ৮ জন অজ্ঞান পার্টির সদস্যকে গ্রেফতার করে। তাদের হেফাজত থেকে ২৪০ পিস চেতনানাশক ট্যাবলেট, ৪টি তরল মুভ স্প্রে বোতল, ৯টি মলমের কৌটা, ৭টি হারবাল পেইন কিলার, ৫টি চাকু, গুল, ৯ চেতনানাশক হালুয়াসহ মরিচের গুঁড়া ও জামবাগ উদ্ধার করা হয়। ডিবির অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার বলেন, অজ্ঞান পার্টির সদস্যরা চেতনানাশক ওষুধ বা লিকুইড কৌশলে চা, ডাব, পানীয় বা অন্য কোনো খাবারের সঙ্গে মিশিয়ে টার্গেটকৃত ব্যক্তিকে খাইয়ে সর্বস্ব লুটে নেয়।