সিদ্ধিরগঞ্জে গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু
jugantor
সিদ্ধিরগঞ্জে গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু
স্বামী গ্রেফতার

  সিদ্ধিরগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি  

৩১ জুলাই ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জের মাদানীনগর এলাকায় রহিমা আক্তার (৩০) নামে এক গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। পরিবারের দাবি, ওই গৃহবধূকে তার স্বামী স্বপন মিয়া (৪০) শ্বাসরোধ করে হত্যা করেছে। বুধবার রাত আড়াইটায় এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ বৃহস্পতিবার ভোরে গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। পুলিশ অভিযুক্ত স্বামী স্বপন মিয়াকে গ্রেফতার করেছে।

পুলিশ ও গৃহবধূর পরিবার জানায়, পারিবারিক কলহের জেরে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে প্রায়ই ঝগড়া হতো। বুধবার গভীর রাতে তাদের মধ্যে আবারও ঝগড়া হয়। রাত আড়াইটার দিকে রহিমা আক্তারের গলায় ফাঁস লাগানো লাশ দেখতে পেয়ে তার স্বজনরা পুলিশে খবর দেন। ওই গৃহবধূর ছোট বোন কল্পনা আক্তার জানান, আমার বোন কখনও আত্মহত্যা করতে পারে না। আমার বোনকে তার স্বামী স্বপন শ্বাসরোধ করে হত্যা করেছে। তার গলায় আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। আমার বোন প্রায় সময় ফোনে বলতেন, তার স্বামী যৌতুকের টাকার জন্য বোনকে অনেক চাপ দিত। টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানালে স্বপন আমার বোনকে মারধর করত। এছাড়াও স্বপনের সঙ্গে অন্য একটি মেয়ের পরকীয়াও ছিল। এ নিয়েও তাদের মধ্যে পারিবারিক কলহ সৃষ্টি হতো।

সিদ্ধিরগঞ্জে গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু

স্বামী গ্রেফতার
 সিদ্ধিরগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি 
৩১ জুলাই ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জের মাদানীনগর এলাকায় রহিমা আক্তার (৩০) নামে এক গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। পরিবারের দাবি, ওই গৃহবধূকে তার স্বামী স্বপন মিয়া (৪০) শ্বাসরোধ করে হত্যা করেছে। বুধবার রাত আড়াইটায় এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ বৃহস্পতিবার ভোরে গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। পুলিশ অভিযুক্ত স্বামী স্বপন মিয়াকে গ্রেফতার করেছে।

পুলিশ ও গৃহবধূর পরিবার জানায়, পারিবারিক কলহের জেরে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে প্রায়ই ঝগড়া হতো। বুধবার গভীর রাতে তাদের মধ্যে আবারও ঝগড়া হয়। রাত আড়াইটার দিকে রহিমা আক্তারের গলায় ফাঁস লাগানো লাশ দেখতে পেয়ে তার স্বজনরা পুলিশে খবর দেন। ওই গৃহবধূর ছোট বোন কল্পনা আক্তার জানান, আমার বোন কখনও আত্মহত্যা করতে পারে না। আমার বোনকে তার স্বামী স্বপন শ্বাসরোধ করে হত্যা করেছে। তার গলায় আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। আমার বোন প্রায় সময় ফোনে বলতেন, তার স্বামী যৌতুকের টাকার জন্য বোনকে অনেক চাপ দিত। টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানালে স্বপন আমার বোনকে মারধর করত। এছাড়াও স্বপনের সঙ্গে অন্য একটি মেয়ের পরকীয়াও ছিল। এ নিয়েও তাদের মধ্যে পারিবারিক কলহ সৃষ্টি হতো।