প্রকল্পের কর্মকর্তা কর্মচারীদের সতর্ক করল ইসি
jugantor
জাতীয় পরিচয়পত্র জালিয়াতি
প্রকল্পের কর্মকর্তা কর্মচারীদের সতর্ক করল ইসি

  যুগান্তর রিপোর্ট  

২২ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

জাতীয় পরিচয়পত্র জালিয়াতি বন্ধে এ সংক্রান্ত প্রকল্পের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের অবৈধ কর্মকাণ্ডে জড়িত না হতে সতর্ক করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। সোমবার ইসির জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগ এক চিঠিতে এ সতর্কবার্তা জারি করে। এতে জাতীয় পরিচয়পত্র সংক্রান্ত প্রকল্প ‘আইডেন্টিফিকেশন সিস্টেম ফর এনহ্যান্সিং একসেস টু সার্ভিসেস (আইডিইএ)’-এর কোনো কর্মকর্তা-কর্মচারীর বিরুদ্ধে অনৈতিক কাজে জড়িত হওয়ার অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানানো হয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে জাতীয় পরিচয়পত্র নিবন্ধন অনুবিভাগের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম বলেন, জাতীয় পরিচয়পত্র জালিয়াতির বিরুদ্ধে আমরা প্রথম থেকেই সবাইকে সতর্ক অবস্থায় থাকার নির্দেশ দিয়েছি। যাদের বিরুদ্ধে এ ধরনের অভিযোগ পাওয়া গেছে তাদের আইনের আওতায় আনা হয়েছে।

সামনের দিনগুলোতেও একই ধরনের ব্যবস্থা নেয়ার কথা স্মরণ করিয়ে দেয়া হচ্ছে।

জানা গেছে, সম্প্রতি লক্ষ করা যাচ্ছে কয়েকজন ডাটা এন্ট্রি অপারেটর বিভিন্ন ধরনের দুর্নীতি, শৃঙ্খলা পরিপন্থী ও অপরাধমূলক কার্যক্রমের সঙ্গে জড়িয়ে পড়াসহ বিভিন্ন ধরনের অনৈতিক সুবিধা গ্রহণের চেষ্টা করছে। এ ধরনের অনৈতিক কাজে জড়িত থাকার অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় গত ৪ বছরে ৩৯ জনকে চাকরিচ্যুত করা হয়েছে। এসব কর্মকাণ্ড আইডিইএ প্রকল্প ও নির্বাচন কমিশনের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করছে। প্রকল্প কর্তৃপক্ষ সব কর্মকর্তা ও কর্মচারীকে শতভাগ আনুগত্য, সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালনে সচেষ্ট থাকার জন্য নির্দেশনা দিয়েছে। এ ক্ষেত্রে যে কোনো পর্যায়ে যে কোনো অপরাধ এবং দুর্নীতি রোধকল্পে আইন অনুযায়ী কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণে জিরো টলারেন্স নীতি অনুসরণে কর্তৃপক্ষ বদ্ধপরিকর। চিঠিতে তথ্য-উপাত্ত বিকৃত করার সাজাও উল্লেখ করা হয়।

জাতীয় পরিচয়পত্র জালিয়াতি

প্রকল্পের কর্মকর্তা কর্মচারীদের সতর্ক করল ইসি

 যুগান্তর রিপোর্ট 
২২ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

জাতীয় পরিচয়পত্র জালিয়াতি বন্ধে এ সংক্রান্ত প্রকল্পের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের অবৈধ কর্মকাণ্ডে জড়িত না হতে সতর্ক করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। সোমবার ইসির জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগ এক চিঠিতে এ সতর্কবার্তা জারি করে। এতে জাতীয় পরিচয়পত্র সংক্রান্ত প্রকল্প ‘আইডেন্টিফিকেশন সিস্টেম ফর এনহ্যান্সিং একসেস টু সার্ভিসেস (আইডিইএ)’-এর কোনো কর্মকর্তা-কর্মচারীর বিরুদ্ধে অনৈতিক কাজে জড়িত হওয়ার অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানানো হয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে জাতীয় পরিচয়পত্র নিবন্ধন অনুবিভাগের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম বলেন, জাতীয় পরিচয়পত্র জালিয়াতির বিরুদ্ধে আমরা প্রথম থেকেই সবাইকে সতর্ক অবস্থায় থাকার নির্দেশ দিয়েছি। যাদের বিরুদ্ধে এ ধরনের অভিযোগ পাওয়া গেছে তাদের আইনের আওতায় আনা হয়েছে।

সামনের দিনগুলোতেও একই ধরনের ব্যবস্থা নেয়ার কথা স্মরণ করিয়ে দেয়া হচ্ছে।

জানা গেছে, সম্প্রতি লক্ষ করা যাচ্ছে কয়েকজন ডাটা এন্ট্রি অপারেটর বিভিন্ন ধরনের দুর্নীতি, শৃঙ্খলা পরিপন্থী ও অপরাধমূলক কার্যক্রমের সঙ্গে জড়িয়ে পড়াসহ বিভিন্ন ধরনের অনৈতিক সুবিধা গ্রহণের চেষ্টা করছে। এ ধরনের অনৈতিক কাজে জড়িত থাকার অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় গত ৪ বছরে ৩৯ জনকে চাকরিচ্যুত করা হয়েছে। এসব কর্মকাণ্ড আইডিইএ প্রকল্প ও নির্বাচন কমিশনের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করছে। প্রকল্প কর্তৃপক্ষ সব কর্মকর্তা ও কর্মচারীকে শতভাগ আনুগত্য, সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালনে সচেষ্ট থাকার জন্য নির্দেশনা দিয়েছে। এ ক্ষেত্রে যে কোনো পর্যায়ে যে কোনো অপরাধ এবং দুর্নীতি রোধকল্পে আইন অনুযায়ী কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণে জিরো টলারেন্স নীতি অনুসরণে কর্তৃপক্ষ বদ্ধপরিকর। চিঠিতে তথ্য-উপাত্ত বিকৃত করার সাজাও উল্লেখ করা হয়।