রাজধানীর হলি ফ্যামিলি হাসপাতালে হিমঘর চালু
jugantor
রাজধানীর হলি ফ্যামিলি হাসপাতালে হিমঘর চালু

  যুগান্তর রিপোর্ট  

২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

রাজধানীর হলি ফ্যামিলি রেড ক্রিসেন্ট মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চালু করা হয়েছে আধুনিক মৃতদেহ সংরক্ষণাগার বা হিমঘর। এতে একসঙ্গে ৪০ মৃতদেহ সংরক্ষণ করা যাবে। মৃতদেহের মর্যাদাপূর্ণ ও যথাযথ ব্যবস্থাপনাকে গুরুত্ব দিয়ে ইন্টারন্যাশনাল কমিটি অব দ্য রেড ক্রসের (আইসিআরসি) সহযোগিতায় নতুন এই হিমঘর প্রস্তুত করা হয়েছে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানায়, এই হিমঘর একটি ৪০ ফুট রেফ্রিজারেটেড স্টোরেজ কনটেনার থেকে তৈরি হয়েছে। এখানে লাগানো হয়েছে উন্নত মানের স্টিলের ফ্রেম, যেন সর্বোচ্চ ৪০টি মরদেহ ধারণ করতে পারে। ইউনিটটিতে দেহগুলো সার্বক্ষণিক ৪-৬ ডিগ্রি সেলসিয়াসে সংরক্ষণ করা হবে। ফলে প্রত্যেকের সুরক্ষা এবং মর্যাদা নিশ্চিত করে মরদেহ নিরাপদে সংরক্ষণ করা যাবে। শনাক্তকরণ প্রক্রিয়া সম্পন্ন হওয়া পর্যন্ত এই হিমাগারে মৃতদেহ নিরাপদ এবং ধর্মীয় মর্যাদার সঙ্গে সংরক্ষণ করা হবে। এছাড়াও, মৃত ব্যক্তির পরিবারও তাদের প্রিয়জনদের মরদেহ নিরাপদে সংরক্ষণের জন্য পর্যাপ্ত সময় পাবেন।

হলি ফ্যামিলি রেড ক্রিসেন্ট মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ভবনে বৃহস্পতিবার এই হিমঘর উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির চেয়ারম্যান হাফিজ আহমদ মজুমদার। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন সোসাইটির ভাইস চেয়ারম্যান ও আইএফআরসির গভর্নিং বোর্ডের সদস্য অধ্যাপক ডা. মো. হাবিবে মিল্লাত, সোসাইটির ট্রেজারার লুৎফুর রহমান চৌধুরী হেলাল, আইসিআরসি বাংলাদেশ হেড অব ডেলেগেশন পাবলো পের্চেলসি প্রমুখ। এর আগে বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি ও আইসিআরসির মধ্যে একটি সমঝোতা স্মারক সই হয়।

রাজধানীর হলি ফ্যামিলি হাসপাতালে হিমঘর চালু

 যুগান্তর রিপোর্ট 
২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

রাজধানীর হলি ফ্যামিলি রেড ক্রিসেন্ট মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চালু করা হয়েছে আধুনিক মৃতদেহ সংরক্ষণাগার বা হিমঘর। এতে একসঙ্গে ৪০ মৃতদেহ সংরক্ষণ করা যাবে। মৃতদেহের মর্যাদাপূর্ণ ও যথাযথ ব্যবস্থাপনাকে গুরুত্ব দিয়ে ইন্টারন্যাশনাল কমিটি অব দ্য রেড ক্রসের (আইসিআরসি) সহযোগিতায় নতুন এই হিমঘর প্রস্তুত করা হয়েছে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানায়, এই হিমঘর একটি ৪০ ফুট রেফ্রিজারেটেড স্টোরেজ কনটেনার থেকে তৈরি হয়েছে। এখানে লাগানো হয়েছে উন্নত মানের স্টিলের ফ্রেম, যেন সর্বোচ্চ ৪০টি মরদেহ ধারণ করতে পারে। ইউনিটটিতে দেহগুলো সার্বক্ষণিক ৪-৬ ডিগ্রি সেলসিয়াসে সংরক্ষণ করা হবে। ফলে প্রত্যেকের সুরক্ষা এবং মর্যাদা নিশ্চিত করে মরদেহ নিরাপদে সংরক্ষণ করা যাবে। শনাক্তকরণ প্রক্রিয়া সম্পন্ন হওয়া পর্যন্ত এই হিমাগারে মৃতদেহ নিরাপদ এবং ধর্মীয় মর্যাদার সঙ্গে সংরক্ষণ করা হবে। এছাড়াও, মৃত ব্যক্তির পরিবারও তাদের প্রিয়জনদের মরদেহ নিরাপদে সংরক্ষণের জন্য পর্যাপ্ত সময় পাবেন।

হলি ফ্যামিলি রেড ক্রিসেন্ট মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ভবনে বৃহস্পতিবার এই হিমঘর উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির চেয়ারম্যান হাফিজ আহমদ মজুমদার। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন সোসাইটির ভাইস চেয়ারম্যান ও আইএফআরসির গভর্নিং বোর্ডের সদস্য অধ্যাপক ডা. মো. হাবিবে মিল্লাত, সোসাইটির ট্রেজারার লুৎফুর রহমান চৌধুরী হেলাল, আইসিআরসি বাংলাদেশ হেড অব ডেলেগেশন পাবলো পের্চেলসি প্রমুখ। এর আগে বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি ও আইসিআরসির মধ্যে একটি সমঝোতা স্মারক সই হয়।