নারী-শিশু নির্যাতনে হিড়িক ক্ষমতাসীনদের আশকারায় : রিজভী
jugantor
নারী-শিশু নির্যাতনে হিড়িক ক্ষমতাসীনদের আশকারায় : রিজভী

  যুগান্তর রিপোর্ট  

২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, দেশে ক্ষমতাসীনদের আশকারায় নারী-শিশু নির্যাতনের হিড়িক চলছে। তাদের পৃষ্ঠপোষকতায় এখন দুর্নীতির জয়জয়কার, বিরোধী মতের ব্যক্তিরা কারাগারে, নারকীয় উল্লাসে চলছে গুম-খুন-ক্রসফায়ার। বিচার বিভাগকে করা হয়েছে সরকারের হাতের খেলনা, প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে শুধু সরকারপ্রধানের নিজস্ব বরকন্দজে পরিণত করা হয়েছে। আওয়ামী লীগ এখন জনগণের আতঙ্কের নাম।

শনিবার রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। রিজভী বলেন, দেশে শান্তিবিনাশী সমাজবিরোধীদের দাপট বৃদ্ধি পেয়েছে। কারণ এরা সরকারি দলের লোক। এ দুঃশাসনে জনগণের মধ্যে ক্রোধবহ্নি দাউ দাউ করে জ্বলছে। এটা ইতিহাসে প্রমাণিত- অবৈধ শাসনের অবসান ঘটাতে জনগণের প্রতিজ্ঞা কখনই নিষ্ফল হয়নি।

‘বিএনপি ক্ষমতায় যাওয়ার অলিগলি খুঁজছে’- আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের এমন বক্তব্যের সমালোচনা করেন রিজভী। তিনি বলেন, বিএনপি অলিগলি খুঁজবে কেন? বিএনপি তো অবৈধ সরকারের পতনের জন্য প্রশস্ত রাজপথেই আন্দোলন করছে।

বিএনপির এ নেতা বলেন, ষড়যন্ত্র ও চক্রান্তের মাধ্যমে রাজোচিত জীবন নির্বাহ যাতে ব্যাহত না হয়, সেজন্যই ওবায়দুল কাদেররা কানাগলি দিয়ে, কখনও বিনা ভোটে, কখনও নিশিরাতের ভোটে ক্ষমতায় আছেন। অলিগলি ওবায়দুল কাদেরদেরই অবলম্বন করতে হয়। কারণ তারা ভোটের অধিকার কেড়ে নিয়ে জনগণকে দুঃসহ জীবনযাপনে বাধ্য করে অবৈধভাবে ক্ষমতা ধরে রেখেছেন।

‘পাকিস্তানি গোয়েন্দাদের সঙ্গে বিএনপির দহরম-মহরম বহু পুরনো’ -তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদের এ বক্তব্যের সমালোচনা করে রিজভী বলেন, হঠাৎ করে তথ্যমন্ত্রীর এ ধরনের উদ্ভট বক্তব্য জনগণের মনে ঘোরতর সন্দেহের সৃষ্টি করেছে। মনে হয় তার মন্ত্রিত্ব এখন টালমাটাল অবস্থায় আছে। আওয়ামী লীগের জন্ম ও বিকাশ দেশি-বিদেশি গোয়েন্দাদের ল্যাবরেটরিতে। ভারতের প্রয়াত রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জির রচিত বইটি পড়ে দেখুন, কীভাবে তিনি জেনারেল মঈন ইউ আহমেদকে ম্যানেজ করেছিলেন শেখ হাসিনার পক্ষে।

পাবনা-৪ আসনের উপনির্বাচন নিয়ে তিনি বলেন, নির্বাচনকে ঘিরে কয়েকদিন থেকেই চলছে ধানের শীষের প্রার্থীর সমর্থক ও নেতাকর্মীদের ওপর আওয়ামী সন্ত্রাসীদের জুলুম-নির্যাতন। পাশাপাশি চলছে পুলিশি ধরপাকড়। নির্বাচন চলাকালে বিএনপির কোনো এজেন্টকে ভোটকেন্দ্রে ঢুকতে দেয়া হয়নি।

নারী-শিশু নির্যাতনে হিড়িক ক্ষমতাসীনদের আশকারায় : রিজভী

 যুগান্তর রিপোর্ট 
২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, দেশে ক্ষমতাসীনদের আশকারায় নারী-শিশু নির্যাতনের হিড়িক চলছে। তাদের পৃষ্ঠপোষকতায় এখন দুর্নীতির জয়জয়কার, বিরোধী মতের ব্যক্তিরা কারাগারে, নারকীয় উল্লাসে চলছে গুম-খুন-ক্রসফায়ার। বিচার বিভাগকে করা হয়েছে সরকারের হাতের খেলনা, প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে শুধু সরকারপ্রধানের নিজস্ব বরকন্দজে পরিণত করা হয়েছে। আওয়ামী লীগ এখন জনগণের আতঙ্কের নাম।

শনিবার রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। রিজভী বলেন, দেশে শান্তিবিনাশী সমাজবিরোধীদের দাপট বৃদ্ধি পেয়েছে। কারণ এরা সরকারি দলের লোক। এ দুঃশাসনে জনগণের মধ্যে ক্রোধবহ্নি দাউ দাউ করে জ্বলছে। এটা ইতিহাসে প্রমাণিত- অবৈধ শাসনের অবসান ঘটাতে জনগণের প্রতিজ্ঞা কখনই নিষ্ফল হয়নি।

‘বিএনপি ক্ষমতায় যাওয়ার অলিগলি খুঁজছে’- আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের এমন বক্তব্যের সমালোচনা করেন রিজভী। তিনি বলেন, বিএনপি অলিগলি খুঁজবে কেন? বিএনপি তো অবৈধ সরকারের পতনের জন্য প্রশস্ত রাজপথেই আন্দোলন করছে।

বিএনপির এ নেতা বলেন, ষড়যন্ত্র ও চক্রান্তের মাধ্যমে রাজোচিত জীবন নির্বাহ যাতে ব্যাহত না হয়, সেজন্যই ওবায়দুল কাদেররা কানাগলি দিয়ে, কখনও বিনা ভোটে, কখনও নিশিরাতের ভোটে ক্ষমতায় আছেন। অলিগলি ওবায়দুল কাদেরদেরই অবলম্বন করতে হয়। কারণ তারা ভোটের অধিকার কেড়ে নিয়ে জনগণকে দুঃসহ জীবনযাপনে বাধ্য করে অবৈধভাবে ক্ষমতা ধরে রেখেছেন।

‘পাকিস্তানি গোয়েন্দাদের সঙ্গে বিএনপির দহরম-মহরম বহু পুরনো’ -তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদের এ বক্তব্যের সমালোচনা করে রিজভী বলেন, হঠাৎ করে তথ্যমন্ত্রীর এ ধরনের উদ্ভট বক্তব্য জনগণের মনে ঘোরতর সন্দেহের সৃষ্টি করেছে। মনে হয় তার মন্ত্রিত্ব এখন টালমাটাল অবস্থায় আছে। আওয়ামী লীগের জন্ম ও বিকাশ দেশি-বিদেশি গোয়েন্দাদের ল্যাবরেটরিতে। ভারতের প্রয়াত রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জির রচিত বইটি পড়ে দেখুন, কীভাবে তিনি জেনারেল মঈন ইউ আহমেদকে ম্যানেজ করেছিলেন শেখ হাসিনার পক্ষে।

পাবনা-৪ আসনের উপনির্বাচন নিয়ে তিনি বলেন, নির্বাচনকে ঘিরে কয়েকদিন থেকেই চলছে ধানের শীষের প্রার্থীর সমর্থক ও নেতাকর্মীদের ওপর আওয়ামী সন্ত্রাসীদের জুলুম-নির্যাতন। পাশাপাশি চলছে পুলিশি ধরপাকড়। নির্বাচন চলাকালে বিএনপির কোনো এজেন্টকে ভোটকেন্দ্রে ঢুকতে দেয়া হয়নি।