আন্তর্জাতিক তথ্য অধিকার দিবস আজ
jugantor
আন্তর্জাতিক তথ্য অধিকার দিবস আজ

  যুগান্তর রিপোর্ট  

২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বিশ্বজুড়ে আজ পালিত হচ্ছে আন্তর্জাতিক তথ্য অধিকার দিবস। জনগণের তথ্য অধিকার নিশ্চিত করার লক্ষ্যে ২০১৬ সাল থেকে প্রতিবছর দিবসটি উদযাপন করা হচ্ছে। করোনা মহামারীর কারণে এবার সারা বিশ্বেই স্বাস্থ্যবিধি মেনে নানা কর্মসূচি পালন করা হচ্ছে। বাংলাদেশেও একইভাবে উদ্যোগ নিয়েছে তথ্য কমিশন। এ ছাড়া বেসরকারিভাবেও বিভিন্ন কর্মসূচি হাতে নেয়া হয়েছে। দিবসটির এবারের প্রতিপাদ্য ‘তথ্য অধিকার সংকটে হাতিয়ার’ এবং স্লোগান ‘সংকটকালে তথ্য পেলে জনগণের মুক্তি মেলে’।

দিবসটি উপলক্ষে বাণী দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এতে তিনি বলেন, তথ্য অধিকার আইনের আওতায় সুবিধাদি ব্যবহারের মাধ্যমে জনগণের ক্ষমতায়ন ও সন্তুষ্টি নিশ্চিত হবে। আশা করি প্রতিটি দেশ তাদের অভিজ্ঞতালব্ধ তথ্য আদান-প্রদান করে বিশ্বকে করোনাভাইরাস মুক্ত করবে। বাণীতে তিনি তথ্য অধিকার নিশ্চিতে তার সরকারের নেয়া বিভিন্ন পদক্ষেপ তুলে ধরেন।

আগে দিবসটি কেন্দ্রীয় পর্যায় ছাড়া শুধু জেলা পর্যায়ে উদযাপন করা হতো। এবার তথ্য অধিকার সম্পর্কে জনসচেতনতা বাড়ানোর লক্ষ্যে দিবসটি উদযাপনের আওতা বাড়িয়ে বিভাগীয় পর্যায় এবং পিডিসি ও ইউডিসিগুলোকে যুক্ত করে উপজেলা পর্যন্ত সম্প্রসারণ করা হয়েছে। রাজধানী, বিভাগ, জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছে।

তথ্য কমিশনের জনসংযোগ কর্মকর্তা লিটন কুমার প্রামাণিক যুগান্তরকে বলেন, এবার দেশের ৮টি বিভাগের মধ্যে ৭ বিভাগ, ৬৪ জেলা ও ৪৯২ উপজেলায় কর্মসূচি পালন করা হচ্ছে। কেবল রংপুরে বিভাগীয় পর্যায়ে কোনো কর্মসূচি থাকছে না।

তিনি বলেন, সোমবার বিকাল ৪টায় তথ্য কমিশনের উদ্যোগে ঢাকাস্থ প্রত্নতত্ত্ব ভবনের সম্মেলন কক্ষে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছে। এতে প্রধান অতিথি থাকবেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, বিশেষ অতিথি থাকবেন তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. মুরাদ হাসান ও তথ্য সচিব কামরুন নাহার। সভায় সভাপতিত্ব করবেন প্রধান তথ্য কমিশনার মরতুজা আহমদ। এছাড়া সভায় উপস্থিত থাকবেন তথ্য কমিশনার সুরাইয়া বেগম, তথ্য কমিশনার ড. আবদুল মালেক ও তথ্য কমিশনের সচিব সুদত্ত চাকমা।

আন্তর্জাতিক তথ্য অধিকার দিবস আজ

 যুগান্তর রিপোর্ট 
২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বিশ্বজুড়ে আজ পালিত হচ্ছে আন্তর্জাতিক তথ্য অধিকার দিবস। জনগণের তথ্য অধিকার নিশ্চিত করার লক্ষ্যে ২০১৬ সাল থেকে প্রতিবছর দিবসটি উদযাপন করা হচ্ছে। করোনা মহামারীর কারণে এবার সারা বিশ্বেই স্বাস্থ্যবিধি মেনে নানা কর্মসূচি পালন করা হচ্ছে। বাংলাদেশেও একইভাবে উদ্যোগ নিয়েছে তথ্য কমিশন। এ ছাড়া বেসরকারিভাবেও বিভিন্ন কর্মসূচি হাতে নেয়া হয়েছে। দিবসটির এবারের প্রতিপাদ্য ‘তথ্য অধিকার সংকটে হাতিয়ার’ এবং স্লোগান ‘সংকটকালে তথ্য পেলে জনগণের মুক্তি মেলে’।

দিবসটি উপলক্ষে বাণী দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এতে তিনি বলেন, তথ্য অধিকার আইনের আওতায় সুবিধাদি ব্যবহারের মাধ্যমে জনগণের ক্ষমতায়ন ও সন্তুষ্টি নিশ্চিত হবে। আশা করি প্রতিটি দেশ তাদের অভিজ্ঞতালব্ধ তথ্য আদান-প্রদান করে বিশ্বকে করোনাভাইরাস মুক্ত করবে। বাণীতে তিনি তথ্য অধিকার নিশ্চিতে তার সরকারের নেয়া বিভিন্ন পদক্ষেপ তুলে ধরেন।

আগে দিবসটি কেন্দ্রীয় পর্যায় ছাড়া শুধু জেলা পর্যায়ে উদযাপন করা হতো। এবার তথ্য অধিকার সম্পর্কে জনসচেতনতা বাড়ানোর লক্ষ্যে দিবসটি উদযাপনের আওতা বাড়িয়ে বিভাগীয় পর্যায় এবং পিডিসি ও ইউডিসিগুলোকে যুক্ত করে উপজেলা পর্যন্ত সম্প্রসারণ করা হয়েছে। রাজধানী, বিভাগ, জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছে।

তথ্য কমিশনের জনসংযোগ কর্মকর্তা লিটন কুমার প্রামাণিক যুগান্তরকে বলেন, এবার দেশের ৮টি বিভাগের মধ্যে ৭ বিভাগ, ৬৪ জেলা ও ৪৯২ উপজেলায় কর্মসূচি পালন করা হচ্ছে। কেবল রংপুরে বিভাগীয় পর্যায়ে কোনো কর্মসূচি থাকছে না।

তিনি বলেন, সোমবার বিকাল ৪টায় তথ্য কমিশনের উদ্যোগে ঢাকাস্থ প্রত্নতত্ত্ব ভবনের সম্মেলন কক্ষে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছে। এতে প্রধান অতিথি থাকবেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, বিশেষ অতিথি থাকবেন তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. মুরাদ হাসান ও তথ্য সচিব কামরুন নাহার। সভায় সভাপতিত্ব করবেন প্রধান তথ্য কমিশনার মরতুজা আহমদ। এছাড়া সভায় উপস্থিত থাকবেন তথ্য কমিশনার সুরাইয়া বেগম, তথ্য কমিশনার ড. আবদুল মালেক ও তথ্য কমিশনের সচিব সুদত্ত চাকমা।