আরও ১৩ হাসপাতালে বসছে অক্সিজেন প্ল্যান্ট
jugantor
আরও ১৩ হাসপাতালে বসছে অক্সিজেন প্ল্যান্ট

  যুগান্তর রিপোর্ট  

২৯ নভেম্বর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

হাসপাতালগুলোয় রোগীদের অক্সিজেন চাহিদা মেটাতে ৪৩ কোটি ৪২ লাখ ২৯ হাজার ৯৩৬ টাকার প্রশাসনিক অনুমোদন দিয়েছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। এ টাকায় দেশের ১৩টি হাসপাতালে স্থাপন করা হবে অক্সিজেন প্লান্ট। প্রতিটি অক্সিজেন প্লান্ট স্থাপনে ব্যয় হবে তিন থেকে চার কোটি টাকা। ২৫ নভেম্বর মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের নির্মাণ অধিশাখার উপসচিব মোহাম্মদ শাহাদাত খন্দকার স্বাক্ষরিত চিঠিতে এই তথ্য জানা গেছে।

অক্সিজেন প্লান্ট স্থাপনের শর্তাবলি সংক্রান্ত ওই চিঠিতে বলা হয়, এর অর্থব্যয় পিপিএ-২০০৬, পিপিআর-২০০৮ এবং আর্থিক ক্ষমতা অর্পণ-২০১৬ বিদ্যমান সব বিধিবিধান যথাযথভাবে পালন করতে হবে। দ্রুত অক্সিজেন সরবরাহ নিশ্চিত করতে হবে এবং নির্ধারিত হারে মূল্য সংযোজন কর (ভ্যাট) ও কর (প্রযোজ্য ক্ষেত্রে) কর্তন করতে হবে। যেসব হাসপাতালে অক্সিজন প্লান্ট স্থাপন করা হবে সেগুলো হল-বগুড়া ২৫০ শয্যার মোহাম্মদ আলী জেনারেল হাসপাতাল, ঠাকুরগাঁও ২৫০ শয্যার সদর হাসপাতাল, গাইবান্ধা ২০০ শয্যার সদর হাসপাতাল, নড়াইল ১০০ শয্যার সদর হাসপাতাল, ঝিনাইদহ ১০০ শয্যার সদর হাসপাতাল, ঝালকাঠির ১০০ শয্যার সদর হাসপাতাল, পিরোজপুর ১০০ শয্যার সদর হাসপাতাল, রাজবাড়ী ১০০ শয্যার সদর হাসপাতাল, দিনাজপুর ২৫০ শয্যার সদর হাসপাতাল, লালমনিরহাট ১০০ শয্যার সদর হাসপাতাল, লক্ষ্মীপুর ১০০ শয্যার সদর হাসপাতাল, বান্দরবান ১০০ শয্যার সদর হাসপাতাল ও খাগড়াছড়ি ১০০ শয্যার সদর হাসপাতাল।

আরও ১৩ হাসপাতালে বসছে অক্সিজেন প্ল্যান্ট

 যুগান্তর রিপোর্ট 
২৯ নভেম্বর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

হাসপাতালগুলোয় রোগীদের অক্সিজেন চাহিদা মেটাতে ৪৩ কোটি ৪২ লাখ ২৯ হাজার ৯৩৬ টাকার প্রশাসনিক অনুমোদন দিয়েছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। এ টাকায় দেশের ১৩টি হাসপাতালে স্থাপন করা হবে অক্সিজেন প্লান্ট। প্রতিটি অক্সিজেন প্লান্ট স্থাপনে ব্যয় হবে তিন থেকে চার কোটি টাকা। ২৫ নভেম্বর মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের নির্মাণ অধিশাখার উপসচিব মোহাম্মদ শাহাদাত খন্দকার স্বাক্ষরিত চিঠিতে এই তথ্য জানা গেছে।

অক্সিজেন প্লান্ট স্থাপনের শর্তাবলি সংক্রান্ত ওই চিঠিতে বলা হয়, এর অর্থব্যয় পিপিএ-২০০৬, পিপিআর-২০০৮ এবং আর্থিক ক্ষমতা অর্পণ-২০১৬ বিদ্যমান সব বিধিবিধান যথাযথভাবে পালন করতে হবে। দ্রুত অক্সিজেন সরবরাহ নিশ্চিত করতে হবে এবং নির্ধারিত হারে মূল্য সংযোজন কর (ভ্যাট) ও কর (প্রযোজ্য ক্ষেত্রে) কর্তন করতে হবে। যেসব হাসপাতালে অক্সিজন প্লান্ট স্থাপন করা হবে সেগুলো হল-বগুড়া ২৫০ শয্যার মোহাম্মদ আলী জেনারেল হাসপাতাল, ঠাকুরগাঁও ২৫০ শয্যার সদর হাসপাতাল, গাইবান্ধা ২০০ শয্যার সদর হাসপাতাল, নড়াইল ১০০ শয্যার সদর হাসপাতাল, ঝিনাইদহ ১০০ শয্যার সদর হাসপাতাল, ঝালকাঠির ১০০ শয্যার সদর হাসপাতাল, পিরোজপুর ১০০ শয্যার সদর হাসপাতাল, রাজবাড়ী ১০০ শয্যার সদর হাসপাতাল, দিনাজপুর ২৫০ শয্যার সদর হাসপাতাল, লালমনিরহাট ১০০ শয্যার সদর হাসপাতাল, লক্ষ্মীপুর ১০০ শয্যার সদর হাসপাতাল, বান্দরবান ১০০ শয্যার সদর হাসপাতাল ও খাগড়াছড়ি ১০০ শয্যার সদর হাসপাতাল।