কোনো অবস্থাতেই হেফাজতকর্মীরা পিছপা হবে না
jugantor
না’গঞ্জ মহানগর কমিটি গঠন
কোনো অবস্থাতেই হেফাজতকর্মীরা পিছপা হবে না
-মাওলানা আউয়াল

  ফতুল্লা (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি  

২৯ নভেম্বর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

হেফাজতে ইসলামের নারায়ণগঞ্জ জেলা সভাপতি মাওলানা আবদুল আউয়াল বলেছেন, সরকারের চাপে জেলে যাওয়ার ভয়ে আল্লাহর কোরআনের কথা বলব না, মূর্তি বানানোর বিরোধিতা করব না- এটা কোন ঈমান। কোনো অবস্থাতেই হেফাজতে ইসলাম পিছপা হবে না। যতদিন বেঁচে থাকি আল্লাহর জমিনে দ্বীন প্রতিষ্ঠার জন্য চেষ্টা করব। দ্বীনের সঙ্গে যারা বিশ্বাসঘাতকতা করবে তাদের প্রতিহত করার জন্য হেফাজতে ইসলাম মৃত্যু পর্যন্ত মাঠে থাকবে। হেফাজতকর্মীদের ওপর আঘাত করলে কাউকে ছাড় দেয়া হবে না।

ফতুল্লার জামতলা এলাকার একটি রেস্টুরেন্টে শনিবার অনুষ্ঠিত প্রতিনিধি সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলে। এ সময় নারায়ণগঞ্জ মহানগর হেফাজতে ইসলামের ৮১ সদস্যের কমিটি ঘোষণা করেন তিনি।

এতে মাওলানা ফেরদাউসুর রহমানকে সভাপতি, মুফতি হারুনুর রশীদকে সাধারণ সম্পাদক ও মাওলানা মীর আহমাদুল্লাহকে সাংগঠনিক সম্পাদক করা হয়।

আবদুল আউয়াল বলেন, সরকারকে আন্তরিকভাবে বলতে চাই, হেফাজতে ইসলামের আপনাদের সঙ্গে ভালোবাসার সম্পর্ক ছিল। হেফাজতে ইসলাম ততক্ষণ পর্যন্ত আপনাদের সহযোগিতা করবে যতক্ষণ পর্যন্ত আপনারা আল্লাহর জমিনে দ্বীন কায়েমের জন্য সচেষ্ট থাকবেন। যদি দ্বীনের বিরোধী কোনো কাজকর্ম করা হয় তাহলে হেফাজত আপনাদের সহযোগী হবে না।

না’গঞ্জ মহানগর কমিটি গঠন

কোনো অবস্থাতেই হেফাজতকর্মীরা পিছপা হবে না

-মাওলানা আউয়াল
 ফতুল্লা (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি 
২৯ নভেম্বর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

হেফাজতে ইসলামের নারায়ণগঞ্জ জেলা সভাপতি মাওলানা আবদুল আউয়াল বলেছেন, সরকারের চাপে জেলে যাওয়ার ভয়ে আল্লাহর কোরআনের কথা বলব না, মূর্তি বানানোর বিরোধিতা করব না- এটা কোন ঈমান। কোনো অবস্থাতেই হেফাজতে ইসলাম পিছপা হবে না। যতদিন বেঁচে থাকি আল্লাহর জমিনে দ্বীন প্রতিষ্ঠার জন্য চেষ্টা করব। দ্বীনের সঙ্গে যারা বিশ্বাসঘাতকতা করবে তাদের প্রতিহত করার জন্য হেফাজতে ইসলাম মৃত্যু পর্যন্ত মাঠে থাকবে। হেফাজতকর্মীদের ওপর আঘাত করলে কাউকে ছাড় দেয়া হবে না।

ফতুল্লার জামতলা এলাকার একটি রেস্টুরেন্টে শনিবার অনুষ্ঠিত প্রতিনিধি সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলে। এ সময় নারায়ণগঞ্জ মহানগর হেফাজতে ইসলামের ৮১ সদস্যের কমিটি ঘোষণা করেন তিনি।

এতে মাওলানা ফেরদাউসুর রহমানকে সভাপতি, মুফতি হারুনুর রশীদকে সাধারণ সম্পাদক ও মাওলানা মীর আহমাদুল্লাহকে সাংগঠনিক সম্পাদক করা হয়।

আবদুল আউয়াল বলেন, সরকারকে আন্তরিকভাবে বলতে চাই, হেফাজতে ইসলামের আপনাদের সঙ্গে ভালোবাসার সম্পর্ক ছিল। হেফাজতে ইসলাম ততক্ষণ পর্যন্ত আপনাদের সহযোগিতা করবে যতক্ষণ পর্যন্ত আপনারা আল্লাহর জমিনে দ্বীন কায়েমের জন্য সচেষ্ট থাকবেন। যদি দ্বীনের বিরোধী কোনো কাজকর্ম করা হয় তাহলে হেফাজত আপনাদের সহযোগী হবে না।