‘মা’ উপন্যাসের ১০০তম মুদ্রণ প্রকাশনা উৎসব
jugantor
‘মা’ উপন্যাসের ১০০তম মুদ্রণ প্রকাশনা উৎসব

  সাংস্কৃতিক রিপোর্টার  

২৬ ডিসেম্বর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

মহান মুক্তিযুদ্ধের ওপর রচিত কথাসাহিত্যিক আনিসুল হকের বিখ্যাত উপন্যাস ‘মা’। একটি-দুটি পেরিয়ে এই উপন্যাসটির ১০০তম মুদ্রণ প্রকাশ হয়েছে সম্প্রতি। আর এই ১০০তম মুদ্রণ উপলক্ষে এক প্রকাশনা উৎসব অনুষ্ঠিত হয়ে গেল। অনলাইনে অনুষ্ঠিত এই প্রকাশনা উৎসবে বইটির নানা দিক নিয়ে আলোচনা করেন খ্যাতিমান লেখক-গবেষকরা।

শুক্রবার রাজধানীর বাংলামটরস্থ বাতিঘর থেকে সরাসরি এই প্রকাশনা উৎসব অনুষ্ঠিত হয়। এতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ‘মা’ বইটির প্রকাশনা সংস্থা সময় প্রকাশনের প্রকাশক ফরিদ আহমেদ। বইটি নিয়ে কথা বলেন সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব নাসিরউদ্দিন ইউসুফ, কথাসাহিত্যিক ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল ও বাংলা একাডেমির সভাপতি ও গবেষক শামসুজ্জামান খান। অনুভূতি ব্যক্ত করেন ‘মা’ উপন্যাসের লেখক আনিসুল হক।

নাসিরউদ্দিন ইউসুফ বলেন, আনিসুল হক একটি অসাধ্য সাধন করেছেন। ‘মা’কে যেভাবে ভেলেবেসেছে বাঙালি পাঠকরা তা সত্যিই অনন্য। অনেকেই হয়তো বলবেন, মুক্তিযুদ্ধের উপন্যাস বলে হয়তো এমনটা হয়েছে। কিন্তু মুক্তিযুদ্ধের উপন্যাস তো আরও আছে সেগুলো তো হয়নি।

ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল বলেন, ১০০তম সংস্করণ, এটা মোটামুটিভাবে অবিশ্বাস্য একটি ব্যাপার। কারণ আমার মনে হয় মানুষ এখন বই পড়া কমিয়ে দিয়েছে। বইমেলায় গেলে আগে বইতে অটোগ্রাফ নিতে সবাই এগিয়ে আসত। আর এখন আসে সেলফি তুলতে। সেই সময়ে একটি বইয়ের ১০০তম মুদ্রণ হয়েছে, সেটা খুবই আনন্দ ও গৌরবের ব্যাপার।

আনিসুল হক বলেন, আমি বলি মা উপন্যাসটি শহীদ আজাদ বুকের রক্ত দিয়ে লিখেছেন আর মা লিখেছেন অশ্রু দিয়ে।

‘মা’ উপন্যাসের ১০০তম মুদ্রণ প্রকাশনা উৎসব

 সাংস্কৃতিক রিপোর্টার 
২৬ ডিসেম্বর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

মহান মুক্তিযুদ্ধের ওপর রচিত কথাসাহিত্যিক আনিসুল হকের বিখ্যাত উপন্যাস ‘মা’। একটি-দুটি পেরিয়ে এই উপন্যাসটির ১০০তম মুদ্রণ প্রকাশ হয়েছে সম্প্রতি। আর এই ১০০তম মুদ্রণ উপলক্ষে এক প্রকাশনা উৎসব অনুষ্ঠিত হয়ে গেল। অনলাইনে অনুষ্ঠিত এই প্রকাশনা উৎসবে বইটির নানা দিক নিয়ে আলোচনা করেন খ্যাতিমান লেখক-গবেষকরা।

শুক্রবার রাজধানীর বাংলামটরস্থ বাতিঘর থেকে সরাসরি এই প্রকাশনা উৎসব অনুষ্ঠিত হয়। এতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ‘মা’ বইটির প্রকাশনা সংস্থা সময় প্রকাশনের প্রকাশক ফরিদ আহমেদ। বইটি নিয়ে কথা বলেন সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব নাসিরউদ্দিন ইউসুফ, কথাসাহিত্যিক ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল ও বাংলা একাডেমির সভাপতি ও গবেষক শামসুজ্জামান খান। অনুভূতি ব্যক্ত করেন ‘মা’ উপন্যাসের লেখক আনিসুল হক।

নাসিরউদ্দিন ইউসুফ বলেন, আনিসুল হক একটি অসাধ্য সাধন করেছেন। ‘মা’কে যেভাবে ভেলেবেসেছে বাঙালি পাঠকরা তা সত্যিই অনন্য। অনেকেই হয়তো বলবেন, মুক্তিযুদ্ধের উপন্যাস বলে হয়তো এমনটা হয়েছে। কিন্তু মুক্তিযুদ্ধের উপন্যাস তো আরও আছে সেগুলো তো হয়নি।

ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল বলেন, ১০০তম সংস্করণ, এটা মোটামুটিভাবে অবিশ্বাস্য একটি ব্যাপার। কারণ আমার মনে হয় মানুষ এখন বই পড়া কমিয়ে দিয়েছে। বইমেলায় গেলে আগে বইতে অটোগ্রাফ নিতে সবাই এগিয়ে আসত। আর এখন আসে সেলফি তুলতে। সেই সময়ে একটি বইয়ের ১০০তম মুদ্রণ হয়েছে, সেটা খুবই আনন্দ ও গৌরবের ব্যাপার।

আনিসুল হক বলেন, আমি বলি মা উপন্যাসটি শহীদ আজাদ বুকের রক্ত দিয়ে লিখেছেন আর মা লিখেছেন অশ্রু দিয়ে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন