রাষ্ট্রবিরোধী ষড়যন্ত্র মামলার আবেদন ফেরত
jugantor
আলজাজিরার প্রতিবেদন
রাষ্ট্রবিরোধী ষড়যন্ত্র মামলার আবেদন ফেরত

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

কাতারভিত্তিক টেলিভিশন চ্যানেল আলজাজিরার মিথ্যা তথ্য দিয়ে সরকার ও রাষ্ট্রবিরোধী ষড়যন্ত্রমূলক প্রতিবেদন প্রকাশের অভিযোগে করা মামলার আবেদন ফেরত দেওয়া হয়েছে। ঢাকা মহানগর হাকিম শহিদুল ইসলাম মঙ্গলবার এ আদেশ দেন। রাষ্ট্রপক্ষের সহকারী পাবলিক প্রসিকিউটর হেমায়েত উদ্দিন খান হিরণ যুগান্তরকে বলেন, রাষ্ট্রবিরোধী অপরাধের অভিযোগ আমলে নেওয়ার জন্য সরকার এ বিষয়ে বিশেষভাবে ক্ষমতাপ্রাপ্ত কোনো অফিসারের অনুমোদন নিতে হয়। এ ক্ষেত্রে তা করা হয়নি। এ জন্য আদালত মামলার আবেদনটি ফেরতের আদেশ দেন।

১৭ ফেব্র“য়ারি বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের নির্বাহী সভাপতি ও প্রতিষ্ঠাতা অ্যাডভোকেট আবদুল মালেক ওরফে মশিউর মালেক বাদী হয়ে আদালতে মামলার এ আবেদনটি করেন। ওইদিন আদালত বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ করেন এবং পরে আদেশ দেবেন বলে জানান। মামলার আবেদনে প্রবাসী বাংলাদেশি শায়ের জুলকারনাইন ওরফে সামি, সুইডেনভিত্তিক নেত্র নিউজের প্রধান সম্পাদক তাসনিম খলিল, যুক্তরাজ্য প্রবাসী ডেভিড বার্গম্যান ও কাতারভিত্তিক টেলিভিশন চ্যানেল আলজাজিরার ডিরেক্টর জেনারেল মোস্তেফা স্যোউয়াগকে আসামি করা হয়েছিল। মামলার আবেদনে বলা হয়, আসামিরা পরস্পর যোগসাজশে বাংলাদেশ সরকার ও রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে সুনাম হানি করে আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে অপপ্রচার চালিয়ে রাষ্ট্রদ্রোহিতামূলক অপরাধে লিপ্ত আছেন। তারা ১ ফেব্র“য়ারি রাতে মিথ্যা তথ্য দিয়ে ‘অল দ্য প্রাইম মিনিস্টার’স মেন’ শিরোনামে বাংলাদেশ সরকার ও রাষ্ট্রবিরোধী একটি প্রতিবেদন প্রচার করে, যা পরদিন বিভিন্ন পত্রিকা, অনলাইন ও ইউটিউবে ব্যাপকভাবে প্রচারিত হয়। এতে বাংলাদেশের ভেতরে ও বাইরে দেশের ভাবমূর্তি ও মর্যাদা হানি করা হয়েছে। আসামিদের ষড়যন্ত্রমূলক অবৈধ কার্যক্রমে দেশের অভ্যন্তরে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টি করে সরকার উৎখাত করার চেষ্টা করেছে, যা চলমান আছে।

আলজাজিরার প্রতিবেদন

রাষ্ট্রবিরোধী ষড়যন্ত্র মামলার আবেদন ফেরত

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

কাতারভিত্তিক টেলিভিশন চ্যানেল আলজাজিরার মিথ্যা তথ্য দিয়ে সরকার ও রাষ্ট্রবিরোধী ষড়যন্ত্রমূলক প্রতিবেদন প্রকাশের অভিযোগে করা মামলার আবেদন ফেরত দেওয়া হয়েছে। ঢাকা মহানগর হাকিম শহিদুল ইসলাম মঙ্গলবার এ আদেশ দেন। রাষ্ট্রপক্ষের সহকারী পাবলিক প্রসিকিউটর হেমায়েত উদ্দিন খান হিরণ যুগান্তরকে বলেন, রাষ্ট্রবিরোধী অপরাধের অভিযোগ আমলে নেওয়ার জন্য সরকার এ বিষয়ে বিশেষভাবে ক্ষমতাপ্রাপ্ত কোনো অফিসারের অনুমোদন নিতে হয়। এ ক্ষেত্রে তা করা হয়নি। এ জন্য আদালত মামলার আবেদনটি ফেরতের আদেশ দেন।

১৭ ফেব্র“য়ারি বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের নির্বাহী সভাপতি ও প্রতিষ্ঠাতা অ্যাডভোকেট আবদুল মালেক ওরফে মশিউর মালেক বাদী হয়ে আদালতে মামলার এ আবেদনটি করেন। ওইদিন আদালত বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ করেন এবং পরে আদেশ দেবেন বলে জানান। মামলার আবেদনে প্রবাসী বাংলাদেশি শায়ের জুলকারনাইন ওরফে সামি, সুইডেনভিত্তিক নেত্র নিউজের প্রধান সম্পাদক তাসনিম খলিল, যুক্তরাজ্য প্রবাসী ডেভিড বার্গম্যান ও কাতারভিত্তিক টেলিভিশন চ্যানেল আলজাজিরার ডিরেক্টর জেনারেল মোস্তেফা স্যোউয়াগকে আসামি করা হয়েছিল। মামলার আবেদনে বলা হয়, আসামিরা পরস্পর যোগসাজশে বাংলাদেশ সরকার ও রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে সুনাম হানি করে আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে অপপ্রচার চালিয়ে রাষ্ট্রদ্রোহিতামূলক অপরাধে লিপ্ত আছেন। তারা ১ ফেব্র“য়ারি রাতে মিথ্যা তথ্য দিয়ে ‘অল দ্য প্রাইম মিনিস্টার’স মেন’ শিরোনামে বাংলাদেশ সরকার ও রাষ্ট্রবিরোধী একটি প্রতিবেদন প্রচার করে, যা পরদিন বিভিন্ন পত্রিকা, অনলাইন ও ইউটিউবে ব্যাপকভাবে প্রচারিত হয়। এতে বাংলাদেশের ভেতরে ও বাইরে দেশের ভাবমূর্তি ও মর্যাদা হানি করা হয়েছে। আসামিদের ষড়যন্ত্রমূলক অবৈধ কার্যক্রমে দেশের অভ্যন্তরে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টি করে সরকার উৎখাত করার চেষ্টা করেছে, যা চলমান আছে।