যুবকের পরকীয়ায় মা-বাবা ও ছোট বোন কারাগারে
jugantor
যুবকের পরকীয়ায় মা-বাবা ও ছোট বোন কারাগারে

  ফতুল্লা (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি  

২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় পরকীয়ার অপরাধে এক যুবকের মা-বাবা ও ছোট বোনকে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে দিয়েছেন এলাকাবাসী।

ফতুল্লার মুসলিমনগর নয়াবাজার এলাকায় বুধবার রাতে এ ঘটনা ঘটে। গ্রেফতাররা হলেন খাদেমুল ইসলাম (২০), তার বাবা আবেদুল ইসলাম (৪২), মা খাজিদা বেগম (৪০) ও ছোট বোন মুক্তা বেগম (১৯)।

ফতুল্লা মডেল থানার ওসি আসলাম হোসেন জানান, ওই এলাকার মামুন নামে একজনের বাড়িতে ভাড়া থাকতেন খাদেমুল ও তার পরিবারের লোকজন। দীর্ঘদিন ভাড়া থাকায় বাড়িওয়ালার স্ত্রীর সঙ্গে খাদেমুলের পরকীয়া সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

৩-৪ মাস আগে বাড়িওয়ালা বিষয়টি বুঝতে পেরে ঘর ছেড়ে দিতে বললে তারা পাশের বাড়িতে ভাড়া যান। বাড়িওয়ালার স্ত্রী ও তার আড়াই বছরের শিশুকে নিয়ে মঙ্গলবার রাতে খাদেমুল পালিয়ে যায়। বিষয়টি খাদেমুলের মা-বাবা ও বোনকে জানান মামুন।

কিন্তু তারা জেনেও অস্বীকার করে পরদিন বুধবার রাতে সবাই পালানোর চেষ্টা করে। এ সময় এলাকাবাসী তাদের আটকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে তারা একেক সময় একেক কথা বলায় মারধর করে।

পরে তাদের দেওয়া তথ্যমতে খাদেমুলকে ফতুল্লার বক্তাবলী থেকে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় মামুনের স্ত্রী ও শিশুকে উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় মামুন ওই ৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন। আদালত তাদের কারাগারে পাঠিয়েছেন।

যুবকের পরকীয়ায় মা-বাবা ও ছোট বোন কারাগারে

 ফতুল্লা (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি 
২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় পরকীয়ার অপরাধে এক যুবকের মা-বাবা ও ছোট বোনকে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে দিয়েছেন এলাকাবাসী।

ফতুল্লার মুসলিমনগর নয়াবাজার এলাকায় বুধবার রাতে এ ঘটনা ঘটে। গ্রেফতাররা হলেন খাদেমুল ইসলাম (২০), তার বাবা আবেদুল ইসলাম (৪২), মা খাজিদা বেগম (৪০) ও ছোট বোন মুক্তা বেগম (১৯)।

ফতুল্লা মডেল থানার ওসি আসলাম হোসেন জানান, ওই এলাকার মামুন নামে একজনের বাড়িতে ভাড়া থাকতেন খাদেমুল ও তার পরিবারের লোকজন। দীর্ঘদিন ভাড়া থাকায় বাড়িওয়ালার স্ত্রীর সঙ্গে খাদেমুলের পরকীয়া সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

৩-৪ মাস আগে বাড়িওয়ালা বিষয়টি বুঝতে পেরে ঘর ছেড়ে দিতে বললে তারা পাশের বাড়িতে ভাড়া যান। বাড়িওয়ালার স্ত্রী ও তার আড়াই বছরের শিশুকে নিয়ে মঙ্গলবার রাতে খাদেমুল পালিয়ে যায়। বিষয়টি খাদেমুলের মা-বাবা ও বোনকে জানান মামুন।

কিন্তু তারা জেনেও অস্বীকার করে পরদিন বুধবার রাতে সবাই পালানোর চেষ্টা করে। এ সময় এলাকাবাসী তাদের আটকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে তারা একেক সময় একেক কথা বলায় মারধর করে।

পরে তাদের দেওয়া তথ্যমতে খাদেমুলকে ফতুল্লার বক্তাবলী থেকে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় মামুনের স্ত্রী ও শিশুকে উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় মামুন ওই ৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন। আদালত তাদের কারাগারে পাঠিয়েছেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন