দুটি অ্যাম্বুলেন্স ও লাশবাহী গাড়ি দিলেন মেয়র আতিক
jugantor
মহাখালী কোভিড-১৯ হাসপাতাল
দুটি অ্যাম্বুলেন্স ও লাশবাহী গাড়ি দিলেন মেয়র আতিক

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

০৪ মে ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

‘মহাখালী ডিএনসিসি ডেডিকেটেড কোভিড-১৯’ হাসপাতালে অত্যাধুনিক দুটি অ্যাম্বুলেন্স এবং একটি লাশবাহী গাড়ি দিয়েছে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি)।

সোমবার সকালে রাজধানীর মহাখালী কোভিড-১৯ হাসপাতালের পরিচালকের কাছে অ্যাম্বুলেন্সের চাবিসহ দুটি অ্যাম্বুলেন্স এবং একটি লাশবাহী গাড়ি হস্তান্তর করা হয়।

এ সময় ডিএনসিসি মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম বলেন, হস্তান্তরকৃত দুটি অ্যাম্বুলেন্স এবং একটি লাশবাহী গাড়ি ড্রাইভার জ্বালানিসহ প্রয়োজনীয় সবকিছুই ডিএনসিসি সরবরাহ করবে। শুধু অপারেশনাল ম্যানেজমেন্ট হিসাবে দায়িত্ব পালন করবেন হাসপাতালের পরিচালক।

ডিএনসিসি মেয়র বলেন, এ হাসপাতালের জমি, ভবন, বিদ্যুৎ ও পানির ব্যবস্থা করেছে ডিএনসিসি। নগরবাসীর স্বাস্থ্যসেবার জন্যই তৈরি ডিএনসিসির একটি বিপণিবিতানকে ডিএনসিসি ডেডিকেটেড কোভিড-১৯ হাসপাতালে রূপান্তর করা হয়েছে।

তিনি বলেন, এ ভবনটি মার্কেটের জন্যই করা হয়েছিল। এখানে ২৫৮টি দোকান বরাদ্দও দেওয়া হয়েছিল। বোর্ড মিটিংয়ের মাধ্যমে তাদের বরাদ্দ বাতিল করা হয়েছে। এমনকি দুই শতাধিক মালিকের সঙ্গে নিজে কথা বলে তাদেরকে বোঝাতে হয়েছে।

ইতোমধ্যে অনেকের টাকাও ফেরত দেওয়া হয়েছে। বিপদের সময় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্য?ই মার্কেটটিকে হাসপাতালে রূপান্তরিত করা হয়েছে।

যার আয়তন এক লাখ ৮০ হাজার ৫৬০ বর্গফুট। বর্তমান হারে প্রতিমাসে এর ভাড়ার পরিমাণ দাঁড়ায় প্রায় ৭০ লাখ টাকা। এ ভাড়ার টাকাও ডিএনসিসি নেবে না।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন ডিএনসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সেলিম রেজা, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম, মহাখালীর ডেডিকেটেড কোভিড-১৯ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ নাসির উদ্দিন প্রমুখ।

মহাখালী কোভিড-১৯ হাসপাতাল

দুটি অ্যাম্বুলেন্স ও লাশবাহী গাড়ি দিলেন মেয়র আতিক

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
০৪ মে ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

‘মহাখালী ডিএনসিসি ডেডিকেটেড কোভিড-১৯’ হাসপাতালে অত্যাধুনিক দুটি অ্যাম্বুলেন্স এবং একটি লাশবাহী গাড়ি দিয়েছে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি)।

সোমবার সকালে রাজধানীর মহাখালী কোভিড-১৯ হাসপাতালের পরিচালকের কাছে অ্যাম্বুলেন্সের চাবিসহ দুটি অ্যাম্বুলেন্স এবং একটি লাশবাহী গাড়ি হস্তান্তর করা হয়।

এ সময় ডিএনসিসি মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম বলেন, হস্তান্তরকৃত দুটি অ্যাম্বুলেন্স এবং একটি লাশবাহী গাড়ি ড্রাইভার জ্বালানিসহ প্রয়োজনীয় সবকিছুই ডিএনসিসি সরবরাহ করবে। শুধু অপারেশনাল ম্যানেজমেন্ট হিসাবে দায়িত্ব পালন করবেন হাসপাতালের পরিচালক।

ডিএনসিসি মেয়র বলেন, এ হাসপাতালের জমি, ভবন, বিদ্যুৎ ও পানির ব্যবস্থা করেছে ডিএনসিসি। নগরবাসীর স্বাস্থ্যসেবার জন্যই তৈরি ডিএনসিসির একটি বিপণিবিতানকে ডিএনসিসি ডেডিকেটেড কোভিড-১৯ হাসপাতালে রূপান্তর করা হয়েছে।

তিনি বলেন, এ ভবনটি মার্কেটের জন্যই করা হয়েছিল। এখানে ২৫৮টি দোকান বরাদ্দও দেওয়া হয়েছিল। বোর্ড মিটিংয়ের মাধ্যমে তাদের বরাদ্দ বাতিল করা হয়েছে। এমনকি দুই শতাধিক মালিকের সঙ্গে নিজে কথা বলে তাদেরকে বোঝাতে হয়েছে।

ইতোমধ্যে অনেকের টাকাও ফেরত দেওয়া হয়েছে। বিপদের সময় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্য?ই মার্কেটটিকে হাসপাতালে রূপান্তরিত করা হয়েছে।

যার আয়তন এক লাখ ৮০ হাজার ৫৬০ বর্গফুট। বর্তমান হারে প্রতিমাসে এর ভাড়ার পরিমাণ দাঁড়ায় প্রায় ৭০ লাখ টাকা। এ ভাড়ার টাকাও ডিএনসিসি নেবে না।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন ডিএনসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সেলিম রেজা, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম, মহাখালীর ডেডিকেটেড কোভিড-১৯ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ নাসির উদ্দিন প্রমুখ।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন