কাটা গাছের স্থানে নতুন চারা লাগিয়ে প্রতিবাদ
jugantor
কাটা গাছের স্থানে নতুন চারা লাগিয়ে প্রতিবাদ

  ঢাবি প্রতিনিধি  

১১ মে ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

এবার সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে কাটা গাছের স্থানে নতুন গাছের চারা লাগিয়ে নির্বিচারে গাছ কাটার প্রতিবাদ জানিয়েছেন পরিবেশবাদীরা। সোমবার সকালে একদল পরিবেশকর্মী অভিনব এই প্রতিবাদ জানান। সম্প্রতি সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে স্বাধীনতা স্তম্ভের আশপাশের বেশ কিছু গাছ কাটা হয়।

উদ্যানের গাছ কাটা শুরু হওয়ার পর বিভিন্ন সংগঠন প্রতিবাদ জানিয়ে আসছিল। ধারাবাহিক প্রতিবাদ কর্মসূচির অংশ হিসাবে সোমবার কাটা গাছের স্থানে ৪৫টি গাছের চারা লাগিয়ে প্রতিবাদ জানানো হলো।

গাছ লাগানোর পর পরিবেশকর্মী আহসান রনি যুগান্তরকে বলেন, গাছ লাগানোর মাধ্যমে আমরা একটাই বার্তা দিতে চাচ্ছি যে এই গাছগুলো অপ্রয়োজনীয়ভাবে কাটা হয়েছে। সে জন্য প্রতিবাদের অংশ হিসাবে আজ আমরা ৪৫টি গাছ লাগিয়েছি। তিনি বলেন, আরও গাছ নতুন করে কাটার জন্য যে চিহ্নগুলো দেওয়া হয়েছে সেগুলো ঐচ্ছিক উন্নয়নের অংশ। এগুলো মুক্তিযুদ্ধের কোনো স্মারক স্থাপনের জন্য কাটা হচ্ছে না বরং যে রেস্টুরেন্টে হচ্ছে সেগুলোর ভিজিবিলিটি বাড়ানোর জন্যই কাটা হচ্ছে।

‘পারফরর্মিং আর্ট’ করে গাছ কাটার প্রতিবাদ : এদিকে উদ্যানের গাছ কাটার প্রতিবাদে ‘পারফরমিং আর্ট’ করে প্রতিবাদ জানিয়েছেন চলচ্চিত্রকর্মীরা। সোমবার বিকালে ‘সবুজহীনতায় মৃত্যুর উপাখ্যান’ শীর্ষক প্রতিবাদ কর্মসূচিতে শিল্পীরা এভাবেই অভিনব পদ্ধতিতে এর প্রতিবাদ জানান। ব্যতিক্রমী এই প্রতিবাদে শামিল হয়েছেন অভিনেত্রী নওশাবা আহমেদ, অভিনয়শিল্পী মনীষা অর্চি ও থিয়েটারকর্মী আলী আফসারসহ বিনোদন অঙ্গনের আরও বেশ কয়েকজন কর্মী। তারা প্রতীকী ফাঁসির মঞ্চ তৈরি করে গাছ কাটার বিরূপ প্রভাব ফুটিয়ে তোলেন। এ বিষয়ে চলচ্চিত্র নির্মাতা শাহাদাত রাসেল বলেন, ঐতিহ্যবাহী ও বাঙালির স্বাধীনতা আন্দোলনের স্মৃতিবিজড়িত সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে উন্নয়নের নামে নির্বিচারে গাছ কাটা হচ্ছে। আমরা প্রকৃতি ধ্বংস করে উন্নয়ন চাই না। এভাবে প্রকৃতি ধ্বংস করে পৃথিবীকেই মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিচ্ছি। অভিনেত্রী নওশাবা আহমেদ বলেন, আমরা প্রকৃতির স্বাতন্ত্র বজায় রেখে সব প্রাণীকে সুন্দরভাবে বাঁচিয়ে রাখার লড়াই করতে চাই। আমাদের নিজেদের অস্তিত্বের জন্যই গাছ কাটা বন্ধ করতে হবে। মূলত জনগণকে সচেতন করতে ও কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করতেই এই ব্যতিক্রমী প্রতিবাদ।

কাটা গাছের স্থানে নতুন চারা লাগিয়ে প্রতিবাদ

 ঢাবি প্রতিনিধি 
১১ মে ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

এবার সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে কাটা গাছের স্থানে নতুন গাছের চারা লাগিয়ে নির্বিচারে গাছ কাটার প্রতিবাদ জানিয়েছেন পরিবেশবাদীরা। সোমবার সকালে একদল পরিবেশকর্মী অভিনব এই প্রতিবাদ জানান। সম্প্রতি সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে স্বাধীনতা স্তম্ভের আশপাশের বেশ কিছু গাছ কাটা হয়।

উদ্যানের গাছ কাটা শুরু হওয়ার পর বিভিন্ন সংগঠন প্রতিবাদ জানিয়ে আসছিল। ধারাবাহিক প্রতিবাদ কর্মসূচির অংশ হিসাবে সোমবার কাটা গাছের স্থানে ৪৫টি গাছের চারা লাগিয়ে প্রতিবাদ জানানো হলো।

গাছ লাগানোর পর পরিবেশকর্মী আহসান রনি যুগান্তরকে বলেন, গাছ লাগানোর মাধ্যমে আমরা একটাই বার্তা দিতে চাচ্ছি যে এই গাছগুলো অপ্রয়োজনীয়ভাবে কাটা হয়েছে। সে জন্য প্রতিবাদের অংশ হিসাবে আজ আমরা ৪৫টি গাছ লাগিয়েছি। তিনি বলেন, আরও গাছ নতুন করে কাটার জন্য যে চিহ্নগুলো দেওয়া হয়েছে সেগুলো ঐচ্ছিক উন্নয়নের অংশ। এগুলো মুক্তিযুদ্ধের কোনো স্মারক স্থাপনের জন্য কাটা হচ্ছে না বরং যে রেস্টুরেন্টে হচ্ছে সেগুলোর ভিজিবিলিটি বাড়ানোর জন্যই কাটা হচ্ছে।

‘পারফরর্মিং আর্ট’ করে গাছ কাটার প্রতিবাদ : এদিকে উদ্যানের গাছ কাটার প্রতিবাদে ‘পারফরমিং আর্ট’ করে প্রতিবাদ জানিয়েছেন চলচ্চিত্রকর্মীরা। সোমবার বিকালে ‘সবুজহীনতায় মৃত্যুর উপাখ্যান’ শীর্ষক প্রতিবাদ কর্মসূচিতে শিল্পীরা এভাবেই অভিনব পদ্ধতিতে এর প্রতিবাদ জানান। ব্যতিক্রমী এই প্রতিবাদে শামিল হয়েছেন অভিনেত্রী নওশাবা আহমেদ, অভিনয়শিল্পী মনীষা অর্চি ও থিয়েটারকর্মী আলী আফসারসহ বিনোদন অঙ্গনের আরও বেশ কয়েকজন কর্মী। তারা প্রতীকী ফাঁসির মঞ্চ তৈরি করে গাছ কাটার বিরূপ প্রভাব ফুটিয়ে তোলেন। এ বিষয়ে চলচ্চিত্র নির্মাতা শাহাদাত রাসেল বলেন, ঐতিহ্যবাহী ও বাঙালির স্বাধীনতা আন্দোলনের স্মৃতিবিজড়িত সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে উন্নয়নের নামে নির্বিচারে গাছ কাটা হচ্ছে। আমরা প্রকৃতি ধ্বংস করে উন্নয়ন চাই না। এভাবে প্রকৃতি ধ্বংস করে পৃথিবীকেই মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিচ্ছি। অভিনেত্রী নওশাবা আহমেদ বলেন, আমরা প্রকৃতির স্বাতন্ত্র বজায় রেখে সব প্রাণীকে সুন্দরভাবে বাঁচিয়ে রাখার লড়াই করতে চাই। আমাদের নিজেদের অস্তিত্বের জন্যই গাছ কাটা বন্ধ করতে হবে। মূলত জনগণকে সচেতন করতে ও কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করতেই এই ব্যতিক্রমী প্রতিবাদ।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন