কালিয়াকৈরে রাস্তার কাজ না করেই টাকা ভাগাভাগির অভিযোগ
jugantor
কালিয়াকৈরে রাস্তার কাজ না করেই টাকা ভাগাভাগির অভিযোগ

  গাজীপুর প্রতিনিধি  

১১ মে ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

গাজীপুরের কালিয়াকৈরে কাজ না করেই রাস্তার পুনর্নির্মাণ প্রকল্পের টাকা ভাগাভাগি করে পকেটস্থ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। সাবেক ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান, সচিব, ইউপি সদস্য ও ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ নেতার বিরুদ্ধে এ অভিযোগ উঠেছে। এছাড়াও রাস্তার কাজের কথা বলে বাড়িবাড়ি থেকে টাকা তুলে নেওয়ার বিষয়েও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন স্থানীয়রা।

এলাকাবাসী, ইউনিয়ন পরিষদ ও সরেজমিন খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, কালিয়াকৈর উপজেলার আটাবহ ইউনিয়নের বড়ইছুটি এলাকায় মুসলেমের বাড়ি হতে ফজল হকের বাড়ি পর্যন্ত রাস্তার জন্য গত ২০১৮-১৯ অর্থবছরে কাঁচা রাস্তার পুনর্নির্মাণের কাজ আসে। স্থাবর সম্পত্তি হস্তান্তর কর অর্থায়নে ১ লাখ টাকা ব্যয়ে ৩৫৬ ফুট দৈর্ঘ্য ও ৫ ফুট প্রস্থের ওই কাঁচা রাস্তাটি পুনর্নির্মাণের কথা। কিন্তু বাস্তবায়ন কাল ২০১৯-২০ অর্থবছর দেখিয়ে নেমপ্লেট দিলেও ওই রাস্তার কাজ হয়নি আজও। ওই প্রকল্পের সভাপতি স্থানীয় ইউপি সদস্য এসএম আশরাফুল ইসলাম, সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছিলেন ওই ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আব্দুল গণি ও সচিব আনোয়ার হোসেন। ওই সাবেক ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান, ইউপি সদস্য ও স্থানীয় ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সদস্য জামাল উদ্দিন মিলে রাস্তার বরাদ্দের টাকা উত্তোলনের পর ভাগাভাগি করে নিয়েছেন। এছাড়াও ওই ইউপি সদস্য আশরাফুল ও আওয়ামী লীগ নেতা জামাল দুজনে রাস্তা করার কথা বলে বাড়ি প্রতি ৩শ টাকা করে চাঁদা উত্তোলন করেন। ওই টাকাও তারা ভাগাভাগি করে নেন। কিন্তু দীর্ঘদিনেও ওই রাস্তার কাজ হয়নি। পরে স্থানীয়রা তাদের ৩শ টাকা করে ফেরত চাওয়ায় বাধ্য হয়ে আশরাফুল ওই রাস্তায় অল্প কিছু মাটি ফেলেন। রাস্তার বেশিরভাগ অংশেই রয়েছে ড্রেন, বাঁশঝাড় ও বিভিন্ন আগাছা।

আওয়ামী লীগের সদস্য জামাল উদ্দিন বলেন, রাস্তার কথা বলে আমি টাকা তুলি নাই, মেম্বার তুললে তিনিই জরিমানা দেবেন। এ বিষয়ে সাবেক ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আব্দুল গণি বলেন, তড়িঘড়ি করে কাজ করেছি কোন রাস্তা এমন হয়েছে আমি বলতে পারব না। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কাজী হাফিজুল আমিন জানান, এ ধরনের ঘটনা ঘটে থাকলে তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

কালিয়াকৈরে রাস্তার কাজ না করেই টাকা ভাগাভাগির অভিযোগ

 গাজীপুর প্রতিনিধি 
১১ মে ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

গাজীপুরের কালিয়াকৈরে কাজ না করেই রাস্তার পুনর্নির্মাণ প্রকল্পের টাকা ভাগাভাগি করে পকেটস্থ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। সাবেক ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান, সচিব, ইউপি সদস্য ও ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ নেতার বিরুদ্ধে এ অভিযোগ উঠেছে। এছাড়াও রাস্তার কাজের কথা বলে বাড়িবাড়ি থেকে টাকা তুলে নেওয়ার বিষয়েও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন স্থানীয়রা।

এলাকাবাসী, ইউনিয়ন পরিষদ ও সরেজমিন খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, কালিয়াকৈর উপজেলার আটাবহ ইউনিয়নের বড়ইছুটি এলাকায় মুসলেমের বাড়ি হতে ফজল হকের বাড়ি পর্যন্ত রাস্তার জন্য গত ২০১৮-১৯ অর্থবছরে কাঁচা রাস্তার পুনর্নির্মাণের কাজ আসে। স্থাবর সম্পত্তি হস্তান্তর কর অর্থায়নে ১ লাখ টাকা ব্যয়ে ৩৫৬ ফুট দৈর্ঘ্য ও ৫ ফুট প্রস্থের ওই কাঁচা রাস্তাটি পুনর্নির্মাণের কথা। কিন্তু বাস্তবায়ন কাল ২০১৯-২০ অর্থবছর দেখিয়ে নেমপ্লেট দিলেও ওই রাস্তার কাজ হয়নি আজও। ওই প্রকল্পের সভাপতি স্থানীয় ইউপি সদস্য এসএম আশরাফুল ইসলাম, সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছিলেন ওই ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আব্দুল গণি ও সচিব আনোয়ার হোসেন। ওই সাবেক ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান, ইউপি সদস্য ও স্থানীয় ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সদস্য জামাল উদ্দিন মিলে রাস্তার বরাদ্দের টাকা উত্তোলনের পর ভাগাভাগি করে নিয়েছেন। এছাড়াও ওই ইউপি সদস্য আশরাফুল ও আওয়ামী লীগ নেতা জামাল দুজনে রাস্তা করার কথা বলে বাড়ি প্রতি ৩শ টাকা করে চাঁদা উত্তোলন করেন। ওই টাকাও তারা ভাগাভাগি করে নেন। কিন্তু দীর্ঘদিনেও ওই রাস্তার কাজ হয়নি। পরে স্থানীয়রা তাদের ৩শ টাকা করে ফেরত চাওয়ায় বাধ্য হয়ে আশরাফুল ওই রাস্তায় অল্প কিছু মাটি ফেলেন। রাস্তার বেশিরভাগ অংশেই রয়েছে ড্রেন, বাঁশঝাড় ও বিভিন্ন আগাছা।

আওয়ামী লীগের সদস্য জামাল উদ্দিন বলেন, রাস্তার কথা বলে আমি টাকা তুলি নাই, মেম্বার তুললে তিনিই জরিমানা দেবেন। এ বিষয়ে সাবেক ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আব্দুল গণি বলেন, তড়িঘড়ি করে কাজ করেছি কোন রাস্তা এমন হয়েছে আমি বলতে পারব না। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কাজী হাফিজুল আমিন জানান, এ ধরনের ঘটনা ঘটে থাকলে তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন