শ্রীনগরে পুলিশকে মারধর যুবদল নেতাসহ গ্রেফতার ২
jugantor
শ্রীনগরে পুলিশকে মারধর যুবদল নেতাসহ গ্রেফতার ২

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

১৮ মে ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

শ্রীনগরে এক পুলিশ সদস্যকে মারধর করে তুলে নেওয়ার অভিযোগে জেলা যুবদলের সহসম্পাদক রাজু আহমেদ ও উপজেলা যুবদল নেতা মো. সিদ্দিককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ঈদের আগের রাতে তাদের গ্রেফতার করা হয়।এর আগে ওই দিন রাতে তুলে নেওয়া পুলিশ সদস্যকে যুবদল নেতার গাড়ি থেকে উদ্ধার করে পুলিশ। শ্রীনগর থানা পুলিশ জানায়, শ্রীনগর থানার কনস্টেবল মো. লিয়াকত যানজট নিরসনের জন্য ঈদের আগের রাতে চকবাজার ব্রিজের ওপর দায়িত্ব পালন করছিলেন। এ সময় ব্রিজের ওপর কালো রঙের প্রাইভেটকারের কারণে যানজট কমছিল না। কর্তব্যরত পুলিশ সদস্য লিয়াকত গাড়ির কাছে গিয়ে সরিয়ে দিতে বলেন। এ সময় গাড়িতে থাকা কুকুটিয়া ইউনিয়ন বিএনপি নেতা এনায়েত মৃধা, মুন্সীগঞ্জ জেলা যুবদলের সহসম্পাদক রাজু ও উপজেলা যুবদল নেতা সিদ্দিক উত্তেজিত হয়ে পড়েন। কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে তারা কনস্টেবল লিয়াকতকে মারধর করেন এবং কলার চেপে গাড়িতে তুলে নেন। খবর পেয়ে ডিউটিরত এসআই জাকির ও থানার অফিসাররা মিলে এম রহমান শপিং কমপ্লেক্সের সামনে গাড়িটিকে ব্যারিকেট দিয়ে গাড়ির ভেতর থেকে লিয়াকতকে উদ্ধার করে। এ সময় পুলিশ রাজু ও সিদ্দিককে গ্রেফতার করে। এনায়েত মৃধা, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতা কেএম রাজিব ও গাড়িচালক পালিয়ে যান।

শ্রীনগর থানা ওসি (তদন্ত) হেলাল উদ্দিন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, এ ঘটনায় চারজনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। দুজনকে গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

শ্রীনগরে পুলিশকে মারধর যুবদল নেতাসহ গ্রেফতার ২

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
১৮ মে ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

শ্রীনগরে এক পুলিশ সদস্যকে মারধর করে তুলে নেওয়ার অভিযোগে জেলা যুবদলের সহসম্পাদক রাজু আহমেদ ও উপজেলা যুবদল নেতা মো. সিদ্দিককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ঈদের আগের রাতে তাদের গ্রেফতার করা হয়।এর আগে ওই দিন রাতে তুলে নেওয়া পুলিশ সদস্যকে যুবদল নেতার গাড়ি থেকে উদ্ধার করে পুলিশ। শ্রীনগর থানা পুলিশ জানায়, শ্রীনগর থানার কনস্টেবল মো. লিয়াকত যানজট নিরসনের জন্য ঈদের আগের রাতে চকবাজার ব্রিজের ওপর দায়িত্ব পালন করছিলেন। এ সময় ব্রিজের ওপর কালো রঙের প্রাইভেটকারের কারণে যানজট কমছিল না। কর্তব্যরত পুলিশ সদস্য লিয়াকত গাড়ির কাছে গিয়ে সরিয়ে দিতে বলেন। এ সময় গাড়িতে থাকা কুকুটিয়া ইউনিয়ন বিএনপি নেতা এনায়েত মৃধা, মুন্সীগঞ্জ জেলা যুবদলের সহসম্পাদক রাজু ও উপজেলা যুবদল নেতা সিদ্দিক উত্তেজিত হয়ে পড়েন। কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে তারা কনস্টেবল লিয়াকতকে মারধর করেন এবং কলার চেপে গাড়িতে তুলে নেন। খবর পেয়ে ডিউটিরত এসআই জাকির ও থানার অফিসাররা মিলে এম রহমান শপিং কমপ্লেক্সের সামনে গাড়িটিকে ব্যারিকেট দিয়ে গাড়ির ভেতর থেকে লিয়াকতকে উদ্ধার করে। এ সময় পুলিশ রাজু ও সিদ্দিককে গ্রেফতার করে। এনায়েত মৃধা, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতা কেএম রাজিব ও গাড়িচালক পালিয়ে যান।

শ্রীনগর থানা ওসি (তদন্ত) হেলাল উদ্দিন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, এ ঘটনায় চারজনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। দুজনকে গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন