ভ্যাট আদায়ে হয়রানি বন্ধের দাবি
jugantor
দোকান মালিকদের সংবাদ সম্মেলন
ভ্যাট আদায়ে হয়রানি বন্ধের দাবি
উৎসে ৫ শতাংশ ভ্যাট আদায়ের আহ্বান

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

২৩ জুন ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ভ্যাট আদায়ের নামে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) কর্মকর্তাদের হয়রানি বন্ধের দাবি জানিয়েছেন দোকান মালিকরা। তারা বলেছেন, হয়রানির নতুন নাম ইএফডি (ইলেকট্রনিক ফিসক্যাল ডিভাইস) মেশিন। এনবিআর মাত্র তিন হাজার ইএফডি মেশিন আমদানি করে বিভিন্ন মার্কেটে কিছু কিছু দোকানে দিচ্ছে। এতে ভ্যাট দেওয়ার ভয়ে ওই দোকান ক্রেতাশূন্য হয়ে যাচ্ছে। অপর দিকে এনবিআরের গোয়েন্দা শাখার লোকজন অতর্কিত বিভিন্ন মার্কেট ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে তল্লাশির নামে দোকানদারদের তুলে নিয়ে যাচ্ছে। এতে ব্যবসায়ীরা চরম আতঙ্কে আছেন। এসব হয়রানি বন্ধ এবং উৎসে ৫ শতাংশ ভ্যাট আদায়ের দাবি জানিয়েছেন তারা।

জাতীয় প্রেস ক্লাবে মঙ্গলবার দোকান মালিক সমিতি আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বক্তারা এসব অভিযোগ করেন। এতে সভাপতিত্ব করেন সমিতির সভাপতি হেলাল উদ্দিন। বক্তব্য রাখেন মহাসচিব জহিরুল হক ভূঁইয়া, রেস্তোরাঁ মালিক সমিতির উপদেষ্টা খোন্দকার রুহুল আমিন, ইলেকট্রিক্যাল অ্যাসোসিয়েশনের চেয়ারম্যান শাহাদাত হোসেন ভূঁইয়া, টাইলস ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক গোলাম রসুল হেলাল, ইসলামপুর বস্ত্র ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক নেছার উদ্দিন মোল্লা প্রমুখ। বক্তারা ৭০-৮০ শতাংশ দোকানে ইএফডি মেশিন বসানোর পর সেটির মাধ্যমে ভ্যাট আদায়ের দাবি জানান। একই সঙ্গে তিন হাজার ইএফডি মেশিন যেকোনো একটি খাতে পাইলট প্রকল্প হিসাবে বাস্তবায়নের আহ্বান জানান।

হেলাল উদ্দিন বলেন, করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যে দোকান মালিকদের না জানিয়ে তাদের জোরপূর্বক ভ্যাট রেজিস্ট্রেশনের আওতায় আনা হচ্ছে। এনবিআর ইতোমধ্যে সাড়ে তিন লাখ দোকান ও প্রতিষ্ঠানকে রেজিস্ট্রেশনের আওতায় এনেছে। এর মধ্যে তিন লাখ দোকান ও প্রতিষ্ঠানের মালিক জানেন না তাদের রেজিস্ট্রেশনের আওতায় আনা হয়েছে। এমন অবস্থায় লাখ লাখ দোকান বা প্রতিষ্ঠানকে রিটার্ন দাখিল না করার জন্য জরিমানা করা হচ্ছে। তিনি বলেন, সারা দেশের জন্য এনবিআর মাত্র তিন হাজার ইএফডি মেশিন এনেছে। ৫০০-৬০০ দোকান বিশিষ্ট একটি মার্কেটের মাত্র ১৫-২০টিতে এটি বসানো হয়েছে। এতে ওই দোকানগুলো ক্রেতাশূন্য হয়ে পড়েছে। পাশাপাশি অন্য দোকানগুলোকে বলা হচ্ছে মাসে প্রকারভেদে ১৫ থেকে ২০ হাজার টাকা ভ্যাট এবং সমপরিমাণ খরচ দিতে হবে।

দোকান মালিকদের সংবাদ সম্মেলন

ভ্যাট আদায়ে হয়রানি বন্ধের দাবি

উৎসে ৫ শতাংশ ভ্যাট আদায়ের আহ্বান
 যুগান্তর প্রতিবেদন 
২৩ জুন ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ভ্যাট আদায়ের নামে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) কর্মকর্তাদের হয়রানি বন্ধের দাবি জানিয়েছেন দোকান মালিকরা। তারা বলেছেন, হয়রানির নতুন নাম ইএফডি (ইলেকট্রনিক ফিসক্যাল ডিভাইস) মেশিন। এনবিআর মাত্র তিন হাজার ইএফডি মেশিন আমদানি করে বিভিন্ন মার্কেটে কিছু কিছু দোকানে দিচ্ছে। এতে ভ্যাট দেওয়ার ভয়ে ওই দোকান ক্রেতাশূন্য হয়ে যাচ্ছে। অপর দিকে এনবিআরের গোয়েন্দা শাখার লোকজন অতর্কিত বিভিন্ন মার্কেট ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে তল্লাশির নামে দোকানদারদের তুলে নিয়ে যাচ্ছে। এতে ব্যবসায়ীরা চরম আতঙ্কে আছেন। এসব হয়রানি বন্ধ এবং উৎসে ৫ শতাংশ ভ্যাট আদায়ের দাবি জানিয়েছেন তারা।

জাতীয় প্রেস ক্লাবে মঙ্গলবার দোকান মালিক সমিতি আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বক্তারা এসব অভিযোগ করেন। এতে সভাপতিত্ব করেন সমিতির সভাপতি হেলাল উদ্দিন। বক্তব্য রাখেন মহাসচিব জহিরুল হক ভূঁইয়া, রেস্তোরাঁ মালিক সমিতির উপদেষ্টা খোন্দকার রুহুল আমিন, ইলেকট্রিক্যাল অ্যাসোসিয়েশনের চেয়ারম্যান শাহাদাত হোসেন ভূঁইয়া, টাইলস ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক গোলাম রসুল হেলাল, ইসলামপুর বস্ত্র ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক নেছার উদ্দিন মোল্লা প্রমুখ। বক্তারা ৭০-৮০ শতাংশ দোকানে ইএফডি মেশিন বসানোর পর সেটির মাধ্যমে ভ্যাট আদায়ের দাবি জানান। একই সঙ্গে তিন হাজার ইএফডি মেশিন যেকোনো একটি খাতে পাইলট প্রকল্প হিসাবে বাস্তবায়নের আহ্বান জানান।

হেলাল উদ্দিন বলেন, করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যে দোকান মালিকদের না জানিয়ে তাদের জোরপূর্বক ভ্যাট রেজিস্ট্রেশনের আওতায় আনা হচ্ছে। এনবিআর ইতোমধ্যে সাড়ে তিন লাখ দোকান ও প্রতিষ্ঠানকে রেজিস্ট্রেশনের আওতায় এনেছে। এর মধ্যে তিন লাখ দোকান ও প্রতিষ্ঠানের মালিক জানেন না তাদের রেজিস্ট্রেশনের আওতায় আনা হয়েছে। এমন অবস্থায় লাখ লাখ দোকান বা প্রতিষ্ঠানকে রিটার্ন দাখিল না করার জন্য জরিমানা করা হচ্ছে। তিনি বলেন, সারা দেশের জন্য এনবিআর মাত্র তিন হাজার ইএফডি মেশিন এনেছে। ৫০০-৬০০ দোকান বিশিষ্ট একটি মার্কেটের মাত্র ১৫-২০টিতে এটি বসানো হয়েছে। এতে ওই দোকানগুলো ক্রেতাশূন্য হয়ে পড়েছে। পাশাপাশি অন্য দোকানগুলোকে বলা হচ্ছে মাসে প্রকারভেদে ১৫ থেকে ২০ হাজার টাকা ভ্যাট এবং সমপরিমাণ খরচ দিতে হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন