বেক্সিমকোর ৩ হাজার কোটি টাকার বন্ড অনুমোদন
jugantor
প্রথম ইসলামি বন্ড সুকুক
বেক্সিমকোর ৩ হাজার কোটি টাকার বন্ড অনুমোদন

  বিজনেস ডেস্ক  

২৪ জুন ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ইসলামী বন্ড (সুকুক) ছেড়ে ৩ হাজার কোটি টাকা নেবে শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানি বেক্সিমকো লিমিটেড। এর মধ্যে ২ হাজার ২৫০ কোটি টাকা প্রাইভেট প্লেসমেন্ট এবং ৭৫০ কোটি টাকা সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে আইপিওর (প্রাথমিক শেয়ার) মাধ্যমে নেওয়া হবে। দেশে এটিই প্রথম ইসলামি শরিয়াহভিত্তিক বন্ড। শেয়ারবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) সভায় বুধবার এ অনুমোদন দেওয়া হয়। বিএসইসির নির্বাহী পরিচালক মোহাম্মদ রেজাউল করিম স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এতে উল্লেখ করা হয়, বেক্সিমকো লিমিটেডকে এই চিঠি পাওয়ার ৫ কার্যদিবসের মধ্যে সুকুকের প্রস্তাবিত ট্রাস্টির নিবন্ধন সনদ এবং কমিশন অনুমোদিত ট্রাস্ট-ডিডসহ চূড়ান্ত সাবস্ক্রিপশন অ্যাগ্রিমেন্ট জমা দেওয়া সাপেক্ষে সম্মতিপত্র ইস্যু করা হবে। প্রস্তাবিত সুকুকটি ২ হাজার ২৫০ কোটি টাকা প্রাইভেট প্লেসমেন্টের মাধ্যমে এবং ৭৫০ কোটি টাকা আইপিও সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে নেওয়া হবে। আবার প্লেসমেন্টের মধ্যে ৭৫০ কোটি টাকা বর্তমান শেয়ার এবং ১ হাজার ৫০০ কোটি টাকা অন্যান্য বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে নেওয়া হবে।

এই অর্থ দিয়ে বেক্সিমকো লিমিটেডের টেক্সটাইল ইউনিট সম্প্রসারণ এবং দুটি বিদ্যুৎ প্রকল্প বাস্তবায়ন, পরিবেশ উন্নয়ন ও সংরক্ষণ নিশ্চিত করবে। বিদ্যুৎ প্রকল্প হলো তিস্তা সোলার এবং করতোয়া সোলার লিমিটেড। এই সুকুকের প্রতি ইউনিটের অভিহিত মূল্য ১০০ টাকা। ন্যূনতম সাবস্ক্রিপশন ৫ হাজার টাকা। প্রতি লটে ৫০টি ইউনিট। সুকুটির সর্বনিম্ন প্রিয়োডিক ডিস্ট্রিবিউশন ৯ শতাংশ। ট্রাস্টি হিসাবে ইনভেস্টমেন্ট করপোরেশন অব বাংলাদেশ এবং ইস্যু ম্যানেজার হিসাবে রয়েছে সিটি ব্যাংক ক্যাপিটাল রিসোর্স এবং অগ্রণী ইকুইটি অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড।

প্রথম ইসলামি বন্ড সুকুক

বেক্সিমকোর ৩ হাজার কোটি টাকার বন্ড অনুমোদন

 বিজনেস ডেস্ক 
২৪ জুন ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ইসলামী বন্ড (সুকুক) ছেড়ে ৩ হাজার কোটি টাকা নেবে শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানি বেক্সিমকো লিমিটেড। এর মধ্যে ২ হাজার ২৫০ কোটি টাকা প্রাইভেট প্লেসমেন্ট এবং ৭৫০ কোটি টাকা সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে আইপিওর (প্রাথমিক শেয়ার) মাধ্যমে নেওয়া হবে। দেশে এটিই প্রথম ইসলামি শরিয়াহভিত্তিক বন্ড। শেয়ারবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) সভায় বুধবার এ অনুমোদন দেওয়া হয়। বিএসইসির নির্বাহী পরিচালক মোহাম্মদ রেজাউল করিম স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এতে উল্লেখ করা হয়, বেক্সিমকো লিমিটেডকে এই চিঠি পাওয়ার ৫ কার্যদিবসের মধ্যে সুকুকের প্রস্তাবিত ট্রাস্টির নিবন্ধন সনদ এবং কমিশন অনুমোদিত ট্রাস্ট-ডিডসহ চূড়ান্ত সাবস্ক্রিপশন অ্যাগ্রিমেন্ট জমা দেওয়া সাপেক্ষে সম্মতিপত্র ইস্যু করা হবে। প্রস্তাবিত সুকুকটি ২ হাজার ২৫০ কোটি টাকা প্রাইভেট প্লেসমেন্টের মাধ্যমে এবং ৭৫০ কোটি টাকা আইপিও সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে নেওয়া হবে। আবার প্লেসমেন্টের মধ্যে ৭৫০ কোটি টাকা বর্তমান শেয়ার এবং ১ হাজার ৫০০ কোটি টাকা অন্যান্য বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে নেওয়া হবে।

এই অর্থ দিয়ে বেক্সিমকো লিমিটেডের টেক্সটাইল ইউনিট সম্প্রসারণ এবং দুটি বিদ্যুৎ প্রকল্প বাস্তবায়ন, পরিবেশ উন্নয়ন ও সংরক্ষণ নিশ্চিত করবে। বিদ্যুৎ প্রকল্প হলো তিস্তা সোলার এবং করতোয়া সোলার লিমিটেড। এই সুকুকের প্রতি ইউনিটের অভিহিত মূল্য ১০০ টাকা। ন্যূনতম সাবস্ক্রিপশন ৫ হাজার টাকা। প্রতি লটে ৫০টি ইউনিট। সুকুটির সর্বনিম্ন প্রিয়োডিক ডিস্ট্রিবিউশন ৯ শতাংশ। ট্রাস্টি হিসাবে ইনভেস্টমেন্ট করপোরেশন অব বাংলাদেশ এবং ইস্যু ম্যানেজার হিসাবে রয়েছে সিটি ব্যাংক ক্যাপিটাল রিসোর্স এবং অগ্রণী ইকুইটি অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন