মৃত্যুর আগে সন্তানের জীবন বাঁচিয়ে গেলেন মা
jugantor
মৃত্যুর আগে সন্তানের জীবন বাঁচিয়ে গেলেন মা

  যুগান্তর ডেস্ক  

২৪ জুলাই ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ভারী বর্ষণে ভয়াবহ বন্যা ও ভূমিধসের ঘটনা ঘটেছে চীনের হেনান প্রদেশে। এতে অর্ধশতাধিক মানুষের মৃত্যু হয়েছে। এই মৃত্যুর মিছিলে নাম লিখিয়েছেন এক মা-ও। তবে মারা যাওয়ার আগে কোলের শিশুসন্তানকে বাঁচিয়ে দিয়ে গেছেন তিনি। মাটির নিচে চাপা পড়া অবস্থায় সন্তানকে বাঁচাতে তাকে একটি নিরাপদ স্থানে ছুড়ে দেন মা। ২৪ ঘণ্টারও বেশি সময় পর বুধবার উদ্ধারকারীরা শিশুটিকে খুঁজে পেয়ে ধ্বংসস্তূপ থেকে টেনে বের করেছেন।

বিবিসি জানায়, ভারী বৃষ্টিপাতের কারণে বন্যায় হেনান প্রদেশের ওয়াংজংডিয়ান গ্রামে ভূমিধস হয়েছে। চাপা পড়েছে বাড়িঘর। এই ভূমিধসের কবলে পড়ে সেই হতভাগ্য নারীর বাড়িও। ভাঙা বাড়ির ধ্বংসস্তূপের মধ্যে দীর্ঘ সময় আটকে ছিল মা ও শিশু। এক পর্যায়ে সন্তানের প্রাণ বাঁচাতে তাকে উঁচুতে কিছুটা নিরাপদ স্থানে ছুড়ে দিয়েছিলেন মা। উদ্ধারকারীরা শিশুটিকে খুঁজে পাওয়ার পরদিন বৃহস্পতিবার মায়েরও সন্ধান পান।

চীনে ভাইরাল হয়েছে শিশুটিকে উদ্ধারের ভিডিও। এই কন্যা শিশুর বয়স তিন থেকে চার মাসের মতো। উদ্ধারের পর শিশুটিকে সঙ্গে সঙ্গে হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসকরা জানান, তার কোনো ক্ষতি হয়নি। ‘বেইজিং ইয়ুথ ডেইলি’কে উদ্ধারকারীরা জানিয়েছেন, শিশুটির মায়ের মরদেহ জমাট বেঁধে যাওয়া অবস্থায় পেয়েছেন তারা। হাত দুটো এমন ভঙ্গিতে ছিল যে, দেখে মনে হচ্ছিল, তিনি ওপরের দিকে কিছু তুলে ধরেছিলেন।

ইয়াং নামের এক উদ্ধারকর্মী বলেন, ‘মারা যাওয়ার একেবারে শেষ সময়ে ওই মা তার সন্তানকে ওপরে তুলে ধরেছিলেন। এ কারণেই শিশুটি বেঁচে গেছে।’ স্থানীয় গণমাধ্যমের খবরে মা ও শিশুর নাম জানানো হয়নি। ‘সহস্র বছরের’ সর্বোচ্চ বৃষ্টিতে ভয়াবহ বন্যা ও ভূমিধসে তছনছ হয়ে গেছে চীনের হেনান প্রদেশ। গত সপ্তাহ থেকেই নেমে আসা এ দুর্যোগে প্রদেশটির বিশাল এলাকা তলিয়ে গেছে। তিনদিন ধরে প্রাদেশিক রাজধানী ঝাংঝৌতে যত বৃষ্টি হয়েছে তা ‘হাজার বছরে একবার’ দেখা যায়, বলছেন আবহাওয়াবিদরা।

মৃত্যুর আগে সন্তানের জীবন বাঁচিয়ে গেলেন মা

 যুগান্তর ডেস্ক 
২৪ জুলাই ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ভারী বর্ষণে ভয়াবহ বন্যা ও ভূমিধসের ঘটনা ঘটেছে চীনের হেনান প্রদেশে। এতে অর্ধশতাধিক মানুষের মৃত্যু হয়েছে। এই মৃত্যুর মিছিলে নাম লিখিয়েছেন এক মা-ও। তবে মারা যাওয়ার আগে কোলের শিশুসন্তানকে বাঁচিয়ে দিয়ে গেছেন তিনি। মাটির নিচে চাপা পড়া অবস্থায় সন্তানকে বাঁচাতে তাকে একটি নিরাপদ স্থানে ছুড়ে দেন মা। ২৪ ঘণ্টারও বেশি সময় পর বুধবার উদ্ধারকারীরা শিশুটিকে খুঁজে পেয়ে ধ্বংসস্তূপ থেকে টেনে বের করেছেন।

বিবিসি জানায়, ভারী বৃষ্টিপাতের কারণে বন্যায় হেনান প্রদেশের ওয়াংজংডিয়ান গ্রামে ভূমিধস হয়েছে। চাপা পড়েছে বাড়িঘর। এই ভূমিধসের কবলে পড়ে সেই হতভাগ্য নারীর বাড়িও। ভাঙা বাড়ির ধ্বংসস্তূপের মধ্যে দীর্ঘ সময় আটকে ছিল মা ও শিশু। এক পর্যায়ে সন্তানের প্রাণ বাঁচাতে তাকে উঁচুতে কিছুটা নিরাপদ স্থানে ছুড়ে দিয়েছিলেন মা। উদ্ধারকারীরা শিশুটিকে খুঁজে পাওয়ার পরদিন বৃহস্পতিবার মায়েরও সন্ধান পান।

চীনে ভাইরাল হয়েছে শিশুটিকে উদ্ধারের ভিডিও। এই কন্যা শিশুর বয়স তিন থেকে চার মাসের মতো। উদ্ধারের পর শিশুটিকে সঙ্গে সঙ্গে হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসকরা জানান, তার কোনো ক্ষতি হয়নি। ‘বেইজিং ইয়ুথ ডেইলি’কে উদ্ধারকারীরা জানিয়েছেন, শিশুটির মায়ের মরদেহ জমাট বেঁধে যাওয়া অবস্থায় পেয়েছেন তারা। হাত দুটো এমন ভঙ্গিতে ছিল যে, দেখে মনে হচ্ছিল, তিনি ওপরের দিকে কিছু তুলে ধরেছিলেন।

ইয়াং নামের এক উদ্ধারকর্মী বলেন, ‘মারা যাওয়ার একেবারে শেষ সময়ে ওই মা তার সন্তানকে ওপরে তুলে ধরেছিলেন। এ কারণেই শিশুটি বেঁচে গেছে।’ স্থানীয় গণমাধ্যমের খবরে মা ও শিশুর নাম জানানো হয়নি। ‘সহস্র বছরের’ সর্বোচ্চ বৃষ্টিতে ভয়াবহ বন্যা ও ভূমিধসে তছনছ হয়ে গেছে চীনের হেনান প্রদেশ। গত সপ্তাহ থেকেই নেমে আসা এ দুর্যোগে প্রদেশটির বিশাল এলাকা তলিয়ে গেছে। তিনদিন ধরে প্রাদেশিক রাজধানী ঝাংঝৌতে যত বৃষ্টি হয়েছে তা ‘হাজার বছরে একবার’ দেখা যায়, বলছেন আবহাওয়াবিদরা।

 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন