মাদকমুক্ত পরিচ্ছন্ন ওয়ার্ড গড়ার অঙ্গীকার কাউন্সিলরদের

  আব্দুল গাফফার ও মো. আখতার হোসেন, পুবাইল ০৪ মে ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

আর মাত্র কয়েক দিন পরই গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনে নির্বাচন। মূষলধারে মেঘ-বৃষ্টিতে প্রচার- প্রচারণায় বিঘœ ঘটায় প্রার্থী ও কর্মীদের মন খারাপ ছিল। মেঘ-বৃষ্টি কেটে সূর্যের আলো পাওয়ার সাথে সাথে প্রার্থী, কর্মী ও ভোটারদের মুখে হাসি দেখা যাচ্ছে।

মেয়র প্রার্থীর পাশাপাশি সাধারণ কাউন্সিলর প্রার্থীরাও জোরেশোরে তাদের নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। সাবেক পুবাইল ইউনিয়নের ২০টি গ্রাম ও ১১টি কেন্দ্র নিয়ে ৩৯ ও ৪২ নম্বর ওয়ার্ড গঠিত। মোট ভোটার সংখ্যা ৩০৫৩১ জন। নারী ভোটার সংখ্যা অর্ধেকেরও বেশি।

গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের ৩৯ নম্বর ওয়ার্ডে ভোটযুদ্ধে লড়াই করছেন তিনজন। আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ও বর্তমান কাউন্সিলর মো. মাসুদুল হাসান বিল্লাল (ঠেলাগাড়ি প্রতীক), আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী শাহিনুল আলম মৃধা (ঘুড়ি প্রতীক), ফারুক হোসেন (করাত প্রতীক)।

গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের ৪২ নম্বর ওয়ার্ডে প্রার্থীর সংখ্যা চারজন। বিএনপির মনোনীত প্রার্থী বর্তমান কাউন্সিলর সুলতান উদ্দিন আহম্মেদ (লাটিম প্রতীক), আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আওলাদ হোসেন (ঘুড়ি প্রতীক), আবদুস সালাম (ঠেলাগাড়ি প্রতীক), আলহাজ মো. আরমান হোসেন মোল্লা (টিফিন ক্যারিয়া প্রতীক), আ.ন.ম মইনুল ইসলাম নাঈম (করাত প্রতীক) নিয়ে ভোটের লড়াই করছেন।

৩৯ নম্বর ওয়ার্ড : সাবেক পূবাইল ইউনিয়নের হায়দ্রাবাদ, সুকুন্দিরবাগ ও জিরাইতলা গ্রাম নিয়ে ৩৯ নম্বর ওয়ার্ড গঠিত। ভোটার সংখ্যা ১০৬৮৩ জন। কেন্দ্র সংখ্যা তিনটি। কেন্দ্র তিনটি হল- সুকুন্দিরবাগ, হায়দ্রাবাদ প্রাইমারি স্কুল ও হায়দ্রাবাদ উচ্চবিদ্যালয়।

বর্তমান কাউন্সিলর মাসুদুল হাসান বিল্লাল (ঠেলাগাড়ি প্রতীক) বলেন, এলাকা উন্নয়নে সুখে দুঃখে ছিলাম, আছি থাকব এবং আমি গরিব ঘরের ছেলে। জনগণের সেবা করছি, বাকি জীবন সেবা করে যাব। এলাকার পাঁচটি রাস্তার দু’টির কাজ সম্পন্ন করেছি। বাকি তিনটি রাস্তার কাজ চলমান। এলাকায় ব্যাপক উন্নয়ন করেছি। ঘুষ দুর্নীতি বিদায় করেছি,মাদক নির্মূল ও মাদক ব্যবসায়ীদের আইনের হাতে তুলে দিয়েছি। এবার ৩৯ নম্বর ওয়ার্ডে বিএনপির কোন প্রার্থী নেই।

শাহিনুল আলম মৃধা (ঘুড়ি প্রতীক) বলেন, এটা আমার প্রথম নির্বাচন। এলাকার উন্নয়নে ভোটারেরা নতুন মুখ খুঁজছেন। আমি বিজয়ী হলে এলাকার রাস্তা-ঘাটসহ বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজ করব।

ফারুক হোসেন (করাত প্রতীক) বলেন, আশা করি আমি বিজয়ী হয়ে এলাকার উন্নয়নে নিজেকে বিলিয়ে দিতে পারব।

৪২ নম্বর ওয়ার্ড : মিরেরবাজার, তালটিয়া মারুকা, হারবাইদ, নন্দিবাড়ি, বিন্দান, খোলাপাড়া, ধোবাপাড়া টেক, চঙ্গের বাইদসহ ১৭টি গ্রাম নিয়ে ৪২ নম্বর ওয়ার্ড গঠিত। এ ওয়ার্ডে চারজন প্রার্থী ভোটযুদ্ধে লড়াই করছেন। ভোটার সংখ্যা ১৯৮৪৮ জন। কেন্দ্র সংখ্যা ৮টি। ৪২ নম্বর ওয়ার্ডে বিএনপি সমর্থিত সাবেক পূবাইল ইউপির দু’বার নির্বাচিত সুলতান উদ্দিন আহম্মেদ।

বর্তমান কাউন্সিলর সুলতান উদ্দিন আহম্মেদ (লাটিম প্রতীক) জানান, সরকারে দমন পীড়ন সহ্য, মামলা-হামালার জন্য উন্নয়নে ব্যাঘাত হয়েছে। এবার জনগণ আমাকে ভোট দিয়ে বিজয়ী করলে উন্নয়নমূলক কাজ অব্যাহত রাখব।

আওয়ামী লীগ নেতা ও মীরের বাজার দোকান মালিক সমিতির সভাপতি মো. আরমান হোসেন মোল্লা (টিফিন ক্যারিয়ার প্রতীক) বলেন, জনগণ আমাকে ভোটে বিজয়ী করলে, আমি দলমত নির্বিশেষ এলাকার উন্নয়ন ও সন্ত্রাসমুক্ত ওয়ার্ড গড়ব।

আ.ন.ম মইনুল ইসলাম নাঈম (করাত প্রতীক) বলেন, আজ পর্যন্ত আমার এলাকার খোলাপাড়া গ্রামে বিদ্যুতের কোনো ছোঁয়া লাগেনি। হারবাইদ হতে বিন্দান যাতায়াতের জন্য নাগদা খালের ওপর ছোট্ট কালভার্ট প্রয়োজন। এ খালের ওপর কালভার্ড না থাকায় না ৭-৮ কি.মি. রাস্তা হেঁটে স্কুল, মাদ্রাসার শিক্ষার্থীরাসহ এলাকার লোকজনদের যাতায়াত করতে হচ্ছে। আমি বিজয়ী হলে রাস্তার যে বেহাল দশা তার উন্নয়ন করব। জনস্বার্থে ধোবা পাড়াঠেক বাড়ি, বিন্দান, চঙ্গের বাঈদ হয়ে নন্দিবাড়ি ও মারুকার রাস্তাটি টঙ্গীর সাথে সহজে যোগাযোগের সুব্যবস্থা করব।

আওয়ামী লীগ প্রার্থী আওলাদ হোসেন (ঘুড়ি প্রতীক) বলেন, আমরা সরকারে আছি। আমি বিজয়ী হলে রাস্তা কালভার্টসহ ব্যাপক উন্নয়ন করব।

আব্দুস সালাম (ঠেলাগাড়ী প্রতীক) জানান, গত নির্বাচনে অল্প ভোটে পরাজিত হয়েছিলাম। জনগণের প্রত্যাশা বিগত দিনে পূরণ হয়নি। আমি বিজয়ী হলে বিন্দান, হারবাইদ, মারুকা হয়ে টঙ্গীর সাথে সহজ সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা করব এবং ৪২ নম্বর ওয়ার্ডকে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন, মাদক, সন্ত্রাস, চাঁদাবাজমুক্ত আধুনিক শহর হিসেবে গড়ে তুলব।

 

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
bestelectronics

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
.