আদাবরে ছাত্রলীগ নেতাকে হত্যা : ১৪ জনকে অভিযুক্ত করে চার্জশিট

যুবদল নেতা লেদুর নির্দেশে ছাত্রলীগ নেতা মশু খুন

মামলা তুলে নিতে বাদীর পরিবারকে হুমকি

  নুরুল আমিন ০৬ মে ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

রাজধানীর আদাবরে যুবদল নেতা মনোয়ার হাসান ওরফে লেদুর নির্দেশে হত্যা করা হয় ছাত্রলীগ মশিউর রহমান মশুকে। পুলিশের তদন্তে এ তথ্য বেরিয়ে এসেছে। এ হত্যার ঘটনায় লেদুকে প্রধান করে ১৪ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দিয়েছে পুলিশ। তবে হত্যার ৯ মাস অতিবাহিত হলেও নির্দেশদাতা ছাত্রদল নেতাকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। নিহত পরিবারের অভিযোগ, মামলা তুলে নিতে আসামিরা তাদের হত্যার হুমকি দিচ্ছে।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আদাবর থানার ওসি (অপারেশন) সুজিত কুমার শাহা যুগান্তরকে বলেন, আদাবর থানা যুবদলের আহ্বায়ক মনোয়ার হোসেন লেদুর নির্দেশে মশিউরের ওপর হামলা হয়। মামলা তদন্ত শেষে ৩০ এপ্রিল ১৪ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট উপস্থাপন করা হয়েছে। পলাতক আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। আগামী সপ্তাহ থেকে মামলাটির বিচারকার্য শুরু হওয়ার কথা রয়েছে। তিনি বলেন, এ হত্যার ঘটনায় নতুন করে কোনো আসামি গ্রেফতার হয়নি। বাদী ও তার পরিবারকে হুমকির বিষয়ে তিনি বলেন, মামলার বাদীর সঙ্গে আমার যোগাযোগ রয়েছে। তারা কোনো হুমকির বিষয় আমাকে অবহিত করেননি। এ রকম কিছু হলে অবশ্যই জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এর আগে গত বছরের ৩ সেপ্টেম্বর আদাবরের শেখেরটেক এলাকায় একাধিক হত্যা মামলার আসামি লেদু হাসানের নেতৃত্বে ১৬-১৭ জন তরুণ আদাবর থানা ছাত্রলীগের পরিবেশবিষয়ক সম্পাদক মশিউরের মাথায় রড, ইট ও হেলমেট দিয়ে একের পর এক আঘাত করে। পরে মুখের ভেতর গুলি করে নৃশংস কায়দায় হত্যা করে। মামলার তদন্ত সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানান, এলাকার আধিপত্য নিয়ে লেদুর সঙ্গে মশিউরের ঝগড়া হয়। ঘটনার দিন কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে মশিউর লেদুর মাকে তুলে গালাগাল করে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে তখনই হামলা করতে চায় লেদু। তখন উপস্থিত লোকজন তাদের সরিয়ে দেন। পরে রাত ১০টার দিকে লেদুর নির্দেশে একদল সন্ত্রাসী তার ওপর হামলা করে। তাদের হামলায় মারা যায় ছাত্রলীগ নেতা মশিউর। পরিবারের অভিযোগ, লেদুর নেতৃত্বে এ হত্যাকাণ্ড ঘটে। কিন্তু হত্যার ৯ মাসে লেদুকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। মামলায় গ্রেফতার আসামি পিচ্চি সায়িদ ও সেলিম জামিনে বের হয়ে এসেছে। খুনিরা এখন মামলা তুলে না নিতে চাপ দিচ্ছে। মামলা তুলে না নিলে মশিউরের মতো তার বাবা-মা ও ভাই-বোনকে হত্যা করা হবে বলেও হুমকি দিচ্ছে খুনিরা।

নিহত মশিউরের মা মমতাজ বেগম যুগান্তরকে বলেন, খুনিরা প্রভাবশালী, তাই পুলিশ তাদের গ্রেফতার করছে না। রাস্তায় বের হলেই খুনিরা আমাকে ও আমার পরিবারকে প্রাণনাশের হুমকি দিচ্ছে। খুনিরা আমাকে শুনিয়ে শুনিয়ে বিভিন্ন সময় বলে, ‘তোর ছেলেকে মেরে ফেলেছি, কী করতে পারছোস, আমাদের কিছুই করতে পারবি না। মামলা তুলে না নিলে একে একে তোদেরকে মেরে ফেলব।’ তিনি বলেন, ‘মশিউর ভাই-বোনদের মধ্যে সবার বড় ছিল। ছেলে ছাত্রলীগের রাজনীতি করত। রাজনীতির কারণেই আমার ছেলেকে ওরা খুন করেছে। খুনিরা গ্রেফতার না হওয়ায় তিন মেয়ে ও এক ছেলেকে নিয়ে আমরা নিরাপত্তাহীনতায় আছি।’ তিনি অভিযোগ করে বলেন, খুনিদের হুমকির বিষয়ে থানা পুলিশকে বারবার জানালেও কোনো প্রতিকার পাইনি। খুনিরা অব্যাহতভাবে আমার পরিবারকে হুমকি দিয়ে যাচ্ছে।’

 

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
.