রাস্তা বন্ধ করায় বীর মুক্তিযোদ্ধাসহ ২০ পরিবার অবরুদ্ধ
jugantor
শ্রীপুরে পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মানববন্ধন
রাস্তা বন্ধ করায় বীর মুক্তিযোদ্ধাসহ ২০ পরিবার অবরুদ্ধ

  আব্দুল মালেক, শ্রীপুর (গাজীপুর)  

২৭ নভেম্বর ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

শ্রীপুরে মুক্তিযোদ্ধা ও ৬ প্রতিবন্ধীসহ ৫ শতাধিক মানুষের চলাচলের রাস্তা বন্ধ করে ২০টি পরিবারকে অবরুদ্ধ করে তাদের বিরুদ্ধে মামলা দিয়ে হয়রানির অভিযোগ উঠেছে ভালুকা থানায় কর্মরত দারোগা আবুল কালাম আজাদের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় শুক্রবার বেলা ১১টার সময় অবরুদ্ধ ও ক্ষুব্ধ এলাকাবাসী রাস্তা খুলে দেয়ার দাবিতে এবং মামলার হয়রানির প্রতিবাদে ওই পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করেছেন। শ্রীপুর উপজেলার কাওরাইদ ইউনিয়নের শোনাব গ্রামের ভুক্তভোগী মুক্তিযোদ্ধা, প্রতিবন্ধী, ছাত্র-শিক্ষক, জনপ্রতিনিধি এবং এলাকার নারী-পুরুষ এ মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিলে অংশগ্রহণ করেন। কাওরাইদ ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের সোনাব গ্রামের বন্ধ করে দেয়া রাস্তা হতে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে জৈনাবাজার কাওরাইদ সড়কে বিক্ষোভ করে বলদীঘাট বাজারে প্রতিবাদ সভা করেন বিক্ষোভকারীরা।

প্রতিবাদ সভায় বক্তব্যকালে ভুক্তভোগীরা জানান, শোনাবো গ্রামের বাসিন্দা মৃত উছেম উদ্দিনের ছেলে ময়মনসিংহ জেলার ভালুকা থানায় কর্মরত উপ-পুলিশ পরিদর্শক আবুল কালাম আজাদ তার ব্যক্তিগত স্বার্থে সরকারি অর্থায়নে নির্মিত যান চলাচলের রাস্তা গণচলাচলের রাস্তা সীমানা প্রাচীর নির্মাণ করে বন্ধ করে দিয়েছে এবং এলাকাবাসীর নামে ৭/৮টি মামলা দিয়ে হয়রানি করে আসছে।

জনচলাচলের রাস্তা খুলে দেয়ার দাবিতে প্রতিবাদ করে প্রশাসনের দ্বারস্থ হওয়ার অপরাধে মারাধরের ঘটনা সাজিয়ে তার বড় ভাই আব্দুস শহীদকে বাদী বানিয়ে ২৪ নভেম্বর বুধবার শ্রীপুর থানায় ২৬ জন এলাকাবাসীর বিরুদ্ধে একটি মামলা ঠুকে দেন। অভিযুক্ত আবুল কালাম আজাদ জানান, ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষ থেকে আমার ক্রয়কৃত জমির ওপর দিয়ে রাস্তা বানিয়ে মাটি ভরাট করা হয়েছে। আমি ইউপি সদস্যসহ কতিপয় দুষ্কৃতিকারীর বিরুদ্ধে একাধিক মামলা করেছি। শ্রীপুর থানার অফিসার ইনচার্জ কোন্দকার ইমাম হোসেন জানান, অভিযোগের ভিত্তিতে মামলা হয়েছে বিষয়টি তদন্তাধীন আছে।

শ্রীপুরে পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মানববন্ধন

রাস্তা বন্ধ করায় বীর মুক্তিযোদ্ধাসহ ২০ পরিবার অবরুদ্ধ

 আব্দুল মালেক, শ্রীপুর (গাজীপুর) 
২৭ নভেম্বর ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

শ্রীপুরে মুক্তিযোদ্ধা ও ৬ প্রতিবন্ধীসহ ৫ শতাধিক মানুষের চলাচলের রাস্তা বন্ধ করে ২০টি পরিবারকে অবরুদ্ধ করে তাদের বিরুদ্ধে মামলা দিয়ে হয়রানির অভিযোগ উঠেছে ভালুকা থানায় কর্মরত দারোগা আবুল কালাম আজাদের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় শুক্রবার বেলা ১১টার সময় অবরুদ্ধ ও ক্ষুব্ধ এলাকাবাসী রাস্তা খুলে দেয়ার দাবিতে এবং মামলার হয়রানির প্রতিবাদে ওই পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করেছেন। শ্রীপুর উপজেলার কাওরাইদ ইউনিয়নের শোনাব গ্রামের ভুক্তভোগী মুক্তিযোদ্ধা, প্রতিবন্ধী, ছাত্র-শিক্ষক, জনপ্রতিনিধি এবং এলাকার নারী-পুরুষ এ মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিলে অংশগ্রহণ করেন। কাওরাইদ ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের সোনাব গ্রামের বন্ধ করে দেয়া রাস্তা হতে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে জৈনাবাজার কাওরাইদ সড়কে বিক্ষোভ করে বলদীঘাট বাজারে প্রতিবাদ সভা করেন বিক্ষোভকারীরা।

প্রতিবাদ সভায় বক্তব্যকালে ভুক্তভোগীরা জানান, শোনাবো গ্রামের বাসিন্দা মৃত উছেম উদ্দিনের ছেলে ময়মনসিংহ জেলার ভালুকা থানায় কর্মরত উপ-পুলিশ পরিদর্শক আবুল কালাম আজাদ তার ব্যক্তিগত স্বার্থে সরকারি অর্থায়নে নির্মিত যান চলাচলের রাস্তা গণচলাচলের রাস্তা সীমানা প্রাচীর নির্মাণ করে বন্ধ করে দিয়েছে এবং এলাকাবাসীর নামে ৭/৮টি মামলা দিয়ে হয়রানি করে আসছে।

জনচলাচলের রাস্তা খুলে দেয়ার দাবিতে প্রতিবাদ করে প্রশাসনের দ্বারস্থ হওয়ার অপরাধে মারাধরের ঘটনা সাজিয়ে তার বড় ভাই আব্দুস শহীদকে বাদী বানিয়ে ২৪ নভেম্বর বুধবার শ্রীপুর থানায় ২৬ জন এলাকাবাসীর বিরুদ্ধে একটি মামলা ঠুকে দেন। অভিযুক্ত আবুল কালাম আজাদ জানান, ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষ থেকে আমার ক্রয়কৃত জমির ওপর দিয়ে রাস্তা বানিয়ে মাটি ভরাট করা হয়েছে। আমি ইউপি সদস্যসহ কতিপয় দুষ্কৃতিকারীর বিরুদ্ধে একাধিক মামলা করেছি। শ্রীপুর থানার অফিসার ইনচার্জ কোন্দকার ইমাম হোসেন জানান, অভিযোগের ভিত্তিতে মামলা হয়েছে বিষয়টি তদন্তাধীন আছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন