শ্রীপুরে বিএনপির আহ্বায়ক কমিটি গঠনে স্বজনপ্রীতি
jugantor
শ্রীপুরে বিএনপির আহ্বায়ক কমিটি গঠনে স্বজনপ্রীতি

  শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধি  

২৪ জানুয়ারি ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটি গঠনে স্বজনপ্রীতি, অনিয়ম, দলীয় নিয়মনীতি উপেক্ষা এবং অসদাচরণের অভিযোগ এনে সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে। রোববার বিকেলে উপজেলার মাওনা চৌরাস্তায় এ সংবাদ সম্মেলন করেছেন তেলিহাটি ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শাহজাহান মোড়ল।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন ৮ অক্টোবর নির্বাচনের মাধ্যমে শ্রীপুর উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক ও সদস্য সচিব করা হয়। আহ্বায়ক ও সদস্য সচিবের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে বলেন তারা তাদের প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের ভোট দেয়ার অপরাধে প্রতিহিংসামূলকভাবে বিভিন্ন ইউনিয়নের ৮ জন সভাপতি সাধারণ সম্পাদককে আহ্বায়ক কমিটিতে অন্তর্ভুক্ত করেনি। বিষয়টি লিখিতভাবে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে জানান বঞ্চিতরা। বঞ্চিতদের আহ্বায়ক কমিটিতে অন্তর্ভুক্ত করার জন্য জেলা আহ্বায়কের কাছে লিখিত সুপারিশ করেন মহাসচিব। এতে ২ জনকে আহ্বায়ক কমিটিতে অন্তর্ভুক্ত করা হলেও বাকি ৬ জনকে বাদেই ১৯ জানুয়ারি সভা ডাকে আহ্বায়ক কমিটি। শুরু হয় দুগ্রুপের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া।

এ ঘটনায় দলীয় গঠনতন্ত্রের নিয়মনীতিকে উপেক্ষা করে আহ্বায়ক ও সদস্য সচিব স্বাক্ষরিত চিঠিতে তাকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়।

শ্রীপুরে বিএনপির আহ্বায়ক কমিটি গঠনে স্বজনপ্রীতি

 শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধি 
২৪ জানুয়ারি ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটি গঠনে স্বজনপ্রীতি, অনিয়ম, দলীয় নিয়মনীতি উপেক্ষা এবং অসদাচরণের অভিযোগ এনে সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে। রোববার বিকেলে উপজেলার মাওনা চৌরাস্তায় এ সংবাদ সম্মেলন করেছেন তেলিহাটি ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শাহজাহান মোড়ল।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন ৮ অক্টোবর নির্বাচনের মাধ্যমে শ্রীপুর উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক ও সদস্য সচিব করা হয়। আহ্বায়ক ও সদস্য সচিবের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে বলেন তারা তাদের প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের ভোট দেয়ার অপরাধে প্রতিহিংসামূলকভাবে বিভিন্ন ইউনিয়নের ৮ জন সভাপতি সাধারণ সম্পাদককে আহ্বায়ক কমিটিতে অন্তর্ভুক্ত করেনি। বিষয়টি লিখিতভাবে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে জানান বঞ্চিতরা। বঞ্চিতদের আহ্বায়ক কমিটিতে অন্তর্ভুক্ত করার জন্য জেলা আহ্বায়কের কাছে লিখিত সুপারিশ করেন মহাসচিব। এতে ২ জনকে আহ্বায়ক কমিটিতে অন্তর্ভুক্ত করা হলেও বাকি ৬ জনকে বাদেই ১৯ জানুয়ারি সভা ডাকে আহ্বায়ক কমিটি। শুরু হয় দুগ্রুপের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া।

এ ঘটনায় দলীয় গঠনতন্ত্রের নিয়মনীতিকে উপেক্ষা করে আহ্বায়ক ও সদস্য সচিব স্বাক্ষরিত চিঠিতে তাকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন