ইয়াবা ও অস্ত্র দিয়ে ফাঁসানোর অভিযোগ

চট্টগ্রামে সংবাদ সম্মেলনে পুলিশের বাধা

প্রকাশ : ৩০ মে ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

  চট্টগ্রাম ব্যুরো

চট্টগ্রামের বোয়ালখালী উপজেলায় ইয়াবা ও আগ্নেয়াস্ত্রসহ ৬০ বছর বয়েসি এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা নিয়ে আলোচনার ঝড় বইছে। সমর চৌধুরী নামের ওই ব্যক্তি ইয়াবা ব্যবসায় জড়িত নন, তাকে পরিকল্পিতভাবে ফাঁসানো হয়েছে বলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দাবি করা হয়েছে।

পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন, জায়গাজমি ও বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বিরোধের জের ধরে একটি মহল পুলিশকে দিয়ে ইয়াবা নাটক সাজিয়ে তাকে গ্রেফতার করিয়েছে। এ ব্যাপারে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় পরিবারের সদস্যরা স্থানীয় প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করতে গেলে পুলিশের বাধায় তা পণ্ড হয়ে যায়। এ সময় প্রেস ক্লাব ভবন ঘেরাও করে রাখে পুলিশ। পরে ধাওয়া দিয়ে পরিবারের সদস্যদের প্রেস ক্লাব থেকে বের করে দেয়া হয়। সমর চৌধুরীর মুক্তির দাবিতে মানববন্ধন ও মিছিল করেছেন স্থানীয়রা। এ সময় পুলিশের সঙ্গে বিক্ষোভকারীদের ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া হয়।

বোয়ালখালী থানা পুলিশের দাবি, রোববার গভীর রাতে এক অভিযানে দেশীয় তৈরি একটি এলজি ও ৩১০ পিস ইয়াবাসহ সমর চৌধুরীকে সারোয়াতলী ইউনিয়নের দক্ষিণ কঞ্জুরী গ্রাম থেকে গ্রেফতার করা হয়। সমর একই এলাকার মনোরঞ্জন চৌধুরীর ছেলে। পুলিশ জানায়, সমরের বিরুদ্ধে অস্ত্র ও মাদক নিয়ন্ত্রণ আইনে পৃথক দুটি মামলা হয়েছে।

এদিকে গ্রেফতার সমর চৌধুরীর ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে এ নিয়ে ব্যাপক সমালোচনা শুরু হয়। ছবিতে দেখা যায়, সমর চৌধুরীর পকেটে ছিল কলম, চোখে মোটা কাচের চশমা। তিনি ঠিক সোজা হয়ে দাঁড়াতেই পারছেন না। এ ছবি দেখে অনেকেই লোকটির ইয়াবা ব্যবসায় জড়িত থাকা নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেন। কেউ কেউ বলেছেন, তিনি ষড়যন্ত্রের শিকার হতে পারেন। এমনও হতে পারে কোনো কারণে তাকে অস্ত্র ও ইয়াবা দিয়ে ফাঁসানো হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে তদন্তেরও দাবি উঠেছে।

পুলিশের এ দাবি মানতে নারাজ এলাকাবাসী ও গ্রেফতার সমর চৌধূরীর আত্মীয়স্বজন। তাদের দাবি, লোভের বশবর্তী হয়ে পুলিশ সমর চৌধূরীর মতো একজন সহজ-সরল বয়স্ক মানুষকে মিথ্যা মামলায় ফাঁসানোর উদ্দেশ্যে আটক করে। যা কারও কাছে বিশ্বাসযোগ্য নয় বিধায় প্রতিবাদে এলাকাবাসী মাঠে নামেন। এ নিয়ে গতকাল স্থানীয় কয়েকশ’ মানুষ উপজেলা সদরে বিক্ষোভ করেন। পরে সমর চৌধূরীর মুক্তি ও মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে মানববন্ধন করতে চাইলে পুলিশ তাদের ধাওয়া দিয়ে দু’জনকে আটক করে।