পলিশ করা চকচকে চালে পুষ্টি থাকে না : খাদ্যমন্ত্রী
jugantor
পলিশ করা চকচকে চালে পুষ্টি থাকে না : খাদ্যমন্ত্রী

  শেকৃবি প্রতিনিধি  

০২ অক্টোবর ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেছেন, এক শ্রেণির ব্যবসায়ী চাল ছেঁটে পলিশ (মসৃণ) করার মাধ্যমে চকচকে করে বাজারজাত করেন। এতে চালের পুষ্টির অংশ ছাঁটাই হয়ে যায়। ফলে পলিশ করা চকচকে চালে পুষ্টি পাওয়া যায় না। পলিশ করা চাল খাব না-এ আন্দোলন গড়ে তুলতে আমাদের সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে।

রাজধানীর শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রের অডিটোরিয়ামে শনিবার ‘আন্তর্জাতিক নিউট্রিশন অলিম্পিয়াড-২০২২’ এর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, এক গবেষণা প্রতিবেদনের তথ্য বলছে, প্রতি ১০০ টন চাল পলিশ করলে ৫ টন চাল অপচয় হয়, যার পুরোটাই চালের পুষ্টির অংশ। বছরে প্রায় ২০-২২ লাখ টন চাল নষ্ট হয়। অনেকে সিল্কি পলিশ চাল খান যা ৫ বার পলিশ করা হয়। যে চাল খেয়ে জীবনধারণ করতে হয়, তাতে পুষ্টি না থাকলে জনগণ অপুষ্টিতে ভুগবে।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে খাদ্য মন্ত্রণালয় দেশের সব নাগরিকের জন্য নিরাপদ ও পুষ্টিকর খাদ্য প্রাপ্তি নিশ্চিত করতে কাজ করছে। প্রতিটি জেলায় নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের কার্যক্রম চলমান আছে। পাশাপাশি তরুণ প্রজন্মকে পুষ্টি সচেতন করতে তাদের সচেতনতা বৃদ্ধির কাজে সম্পৃক্ত করা হচ্ছে। অপুষ্টি রোধে তরুণেরা কার্যকর ভূমিকা পালন করতে পারে। তরুণদের আগামীর ভবিষ্যৎ উল্লেখ করে তিনি বলেন, তাদের সৃজনশীলতা ও নেতৃত্বদানের সক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য খাদ্য মন্ত্রণালয় সব ধরনের সহায়তা করবে।

খাদ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. ইসমাইল হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এসডিজি বিষয়ক মুখ্য সমন্বয়ক জুয়েনা আজিজ, শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. শহীদুর রশীদ ভূঁইয়া, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. আব্দুস সাত্তার মণ্ডল, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পুষ্টি ও খাদ্য বিজ্ঞান ইনস্টিটিউটের অধ্যাপক ড. নাজমা শাহীন, গ্লোবাল অ্যালায়েন্স ফর ইমপ্রুভড নিউট্রিশনের (গেইন) কান্ট্রি ডিরেক্টর ডা. রুদাবা খন্দকার। স্বাগত বক্তব্য দেন এফপিএমইউ’র মহাপরিচালক মো. শহীদ–জ্জামান ফারুকী। এছাড়াও নিউট্রিশন অলিম্পিয়াডের উদ্যোক্তা বিবিআইডি ফাউন্ডেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. শহীদ উদ্দিন আকবর অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন।

পলিশ করা চকচকে চালে পুষ্টি থাকে না : খাদ্যমন্ত্রী

 শেকৃবি প্রতিনিধি 
০২ অক্টোবর ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেছেন, এক শ্রেণির ব্যবসায়ী চাল ছেঁটে পলিশ (মসৃণ) করার মাধ্যমে চকচকে করে বাজারজাত করেন। এতে চালের পুষ্টির অংশ ছাঁটাই হয়ে যায়। ফলে পলিশ করা চকচকে চালে পুষ্টি পাওয়া যায় না। পলিশ করা চাল খাব না-এ আন্দোলন গড়ে তুলতে আমাদের সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে।

রাজধানীর শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রের অডিটোরিয়ামে শনিবার ‘আন্তর্জাতিক নিউট্রিশন অলিম্পিয়াড-২০২২’ এর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, এক গবেষণা প্রতিবেদনের তথ্য বলছে, প্রতি ১০০ টন চাল পলিশ করলে ৫ টন চাল অপচয় হয়, যার পুরোটাই চালের পুষ্টির অংশ। বছরে প্রায় ২০-২২ লাখ টন চাল নষ্ট হয়। অনেকে সিল্কি পলিশ চাল খান যা ৫ বার পলিশ করা হয়। যে চাল খেয়ে জীবনধারণ করতে হয়, তাতে পুষ্টি না থাকলে জনগণ অপুষ্টিতে ভুগবে।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে খাদ্য মন্ত্রণালয় দেশের সব নাগরিকের জন্য নিরাপদ ও পুষ্টিকর খাদ্য প্রাপ্তি নিশ্চিত করতে কাজ করছে। প্রতিটি জেলায় নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের কার্যক্রম চলমান আছে। পাশাপাশি তরুণ প্রজন্মকে পুষ্টি সচেতন করতে তাদের সচেতনতা বৃদ্ধির কাজে সম্পৃক্ত করা হচ্ছে। অপুষ্টি রোধে তরুণেরা কার্যকর ভূমিকা পালন করতে পারে। তরুণদের আগামীর ভবিষ্যৎ উল্লেখ করে তিনি বলেন, তাদের সৃজনশীলতা ও নেতৃত্বদানের সক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য খাদ্য মন্ত্রণালয় সব ধরনের সহায়তা করবে।

খাদ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. ইসমাইল হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এসডিজি বিষয়ক মুখ্য সমন্বয়ক জুয়েনা আজিজ, শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. শহীদুর রশীদ ভূঁইয়া, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. আব্দুস সাত্তার মণ্ডল, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পুষ্টি ও খাদ্য বিজ্ঞান ইনস্টিটিউটের অধ্যাপক ড. নাজমা শাহীন, গ্লোবাল অ্যালায়েন্স ফর ইমপ্রুভড নিউট্রিশনের (গেইন) কান্ট্রি ডিরেক্টর ডা. রুদাবা খন্দকার। স্বাগত বক্তব্য দেন এফপিএমইউ’র মহাপরিচালক মো. শহীদ–জ্জামান ফারুকী। এছাড়াও নিউট্রিশন অলিম্পিয়াডের উদ্যোক্তা বিবিআইডি ফাউন্ডেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. শহীদ উদ্দিন আকবর অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন