টঙ্গীতে লাশ নিয়ে বিক্ষোভ-ভাঙচুর পুলিশের ধাওয়া
jugantor
টঙ্গীতে লাশ নিয়ে বিক্ষোভ-ভাঙচুর পুলিশের ধাওয়া

  টঙ্গী পূর্ব (গাজীপুর) প্রতিনিধি  

০৫ অক্টোবর ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

গাজীপুরের টঙ্গীতে সড়কে নাহিদ (১৯) নামের তরুণের লাশ রেখে বিক্ষোভ ও কারখানা ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। টঙ্গী-কালীগঞ্জ আঞ্চলিক সড়কে মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে এ বিক্ষোভ করেন মৃতের স্বজনরা। এসময় বিক্ষুব্ধরা হাতিম প্লাস্টিক কারখানায় ভাঙচুর চালান। পরে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ধাওয়া দিলে সড়কে লাশ ফেলে পালিয়ে যান তারা। পরে ডেকে এনে লাশ দাফনের জন্য বলা হলে মৃতের ভাই লাশ নিয়ে যান।

পুলিশ জানায়, টঙ্গীর মরকুন এলাকার হাতিম গ্রুপের অঙ্গপ্রতিষ্ঠান হাতিম প্লাস্টিক কারখানায় সোমবার অজ্ঞাত এক তরুণের লাশ উদ্ধার করা হয়। মঙ্গলবার তার পরিচয় শনাক্ত হয়। তিনি ভোলার কাছিয়া গ্রামের মৃত মহসিনের ছেলে নাহিদ। লাশ উদ্ধারের ঘটনায় মামলা হয়েছে। ময়নাতদন্ত শেষে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় দাফনের জন্য নাহিদের লাশ পরিবারের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হয়। তার স্বজনরা লাশ দাফন না করে সড়কে যান চলাচল বন্ধ করে বিক্ষোভ শুরু করেন। হাতিম প্লাস্টিক কারখানার মানবসম্পদ বিভাগের কর্মকর্তা মো. পলাশ বলেন, পুলিশ লাশ উদ্ধার করে আইনি প্রক্রিয়ায় লাশ দাফনের জন্য দিয়েছে। নাহিদের পরিবারের লোকজনসহ শতাধিক এলাকাবাসী আমাদের কারখানায় ভাঙচুর চালিয়ে ব্যাপক ক্ষতি করেছেন। আমরা মামলা করব। টঙ্গী পূর্ব থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আশরাফুল ইসলাম বলেন, পরিস্থিতি এখন স্বাভাবিক রয়েছে।

টঙ্গীতে লাশ নিয়ে বিক্ষোভ-ভাঙচুর পুলিশের ধাওয়া

 টঙ্গী পূর্ব (গাজীপুর) প্রতিনিধি 
০৫ অক্টোবর ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

গাজীপুরের টঙ্গীতে সড়কে নাহিদ (১৯) নামের তরুণের লাশ রেখে বিক্ষোভ ও কারখানা ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। টঙ্গী-কালীগঞ্জ আঞ্চলিক সড়কে মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে এ বিক্ষোভ করেন মৃতের স্বজনরা। এসময় বিক্ষুব্ধরা হাতিম প্লাস্টিক কারখানায় ভাঙচুর চালান। পরে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ধাওয়া দিলে সড়কে লাশ ফেলে পালিয়ে যান তারা। পরে ডেকে এনে লাশ দাফনের জন্য বলা হলে মৃতের ভাই লাশ নিয়ে যান।

পুলিশ জানায়, টঙ্গীর মরকুন এলাকার হাতিম গ্রুপের অঙ্গপ্রতিষ্ঠান হাতিম প্লাস্টিক কারখানায় সোমবার অজ্ঞাত এক তরুণের লাশ উদ্ধার করা হয়। মঙ্গলবার তার পরিচয় শনাক্ত হয়। তিনি ভোলার কাছিয়া গ্রামের মৃত মহসিনের ছেলে নাহিদ। লাশ উদ্ধারের ঘটনায় মামলা হয়েছে। ময়নাতদন্ত শেষে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় দাফনের জন্য নাহিদের লাশ পরিবারের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হয়। তার স্বজনরা লাশ দাফন না করে সড়কে যান চলাচল বন্ধ করে বিক্ষোভ শুরু করেন। হাতিম প্লাস্টিক কারখানার মানবসম্পদ বিভাগের কর্মকর্তা মো. পলাশ বলেন, পুলিশ লাশ উদ্ধার করে আইনি প্রক্রিয়ায় লাশ দাফনের জন্য দিয়েছে। নাহিদের পরিবারের লোকজনসহ শতাধিক এলাকাবাসী আমাদের কারখানায় ভাঙচুর চালিয়ে ব্যাপক ক্ষতি করেছেন। আমরা মামলা করব। টঙ্গী পূর্ব থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আশরাফুল ইসলাম বলেন, পরিস্থিতি এখন স্বাভাবিক রয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন