বেলজিয়ামের সোনালি প্রজন্মের বিদায়
jugantor
বেলজিয়ামের সোনালি প্রজন্মের বিদায়

  ক্রীড়া ডেস্ক  

০২ ডিসেম্বর ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

রোমেলু লুকাকুর বুলেট গতির শট সাইড পোস্টে লেগে ফিরে এলো। যেন বেলজিয়ামের ভাগ্যটাই এলো ফিরে। শত চেষ্টা করেও গোলমুখ খুলতে পারল না বেলজিয়াম। শেষ পর্যন্ত গতবারের রানার্সআপ ক্রোয়েশিয়া রুখে দিল তাদের। বৃহস্পতিবার দোহার আহমেদ বিন আলী স্টেডিয়ামে গ্রুপ-এফ এর ম্যাচ গোলশূন্য ড্র হয়। গোটা ম্যাচে দাপটের সঙ্গে খেলেও এবং একের পর এক আক্রমণ করেও বিশ্বকাপের গ্রুপপর্ব থেকে ছিটকে গেল বেলজিয়াম। ১৯৯৮ বিশ্বকাপের পর এই প্রথম গ্রুপপর্ব থেকে বিদায় নিল তারা। এর সঙ্গে শেষ হলো বেলজিয়ামের সোনালি প্রজন্ম। এর জন্য তারা দায়ী করতে পারে শুধু নিজেদের। এমন সব সহজ সুযোগ নষ্ট করেছে বেলজিয়াম, যা চোখে না দেখলে বিশ্বাস করা যায় না। দ্বিতীয়ার্ধে রোমেলু লুকাকু একাই নষ্ট করেছেন একাধিক সুযোগ। একবারও তিনি বল জড়াতে পারেননি ক্রোয়েশিয়ার জালে।

খেলার ধারার বিরুদ্ধে ১৫ মিনিটে পেনালটি পেয়ে যায় ক্রোয়েশিয়া। ক্রামারিচের আঘাতে বক্সের মধ্যে পড়ে যান কারাস্কো। পেনালটি নিয়ে অনেকক্ষণ নাটক চলে। পেনালটি শট নেওয়ার জন্য বল বসান লুকা মদরিচ। কিন্তু রেফারি ভারের সাহায্য নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। একে দেখা যায়, আক্রমণের সময় অফসাইডে ছিলেন ক্রোয়েশিয়ার দেজান লোভরেন। তাই রেফারি পেনালটির সিদ্ধান্ত বাতিল করে বেলজিয়ামকে ফ্রিকিক দেন।

এদিকে মরক্কো দিনের অপর ম্যাচে ২-১ গোলে কানাডাকে হারিয়ে শীর্ষ দল হিসাবে শেষ করেছে গ্রুপপর্ব। তিন ম্যাচ শেষে মরক্কোর পয়েন্ট সাত। দুটি জয় ও একটি ড্রয়ের সুবাদে। সমান ম্যাচে একটি করে জয় ও ড্রয়ে গ্রুপ রানার্সআপ হিসাবে শেষ ষোলোতে জায়গা করে নিয়েছে ২০১৮ রাশিয়া বিশ্বকাপের রানার্সআপ ক্রোয়েশিয়া।

বেলজিয়ামের সোনালি প্রজন্মের বিদায়

 ক্রীড়া ডেস্ক 
০২ ডিসেম্বর ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

রোমেলু লুকাকুর বুলেট গতির শট সাইড পোস্টে লেগে ফিরে এলো। যেন বেলজিয়ামের ভাগ্যটাই এলো ফিরে। শত চেষ্টা করেও গোলমুখ খুলতে পারল না বেলজিয়াম। শেষ পর্যন্ত গতবারের রানার্সআপ ক্রোয়েশিয়া রুখে দিল তাদের। বৃহস্পতিবার দোহার আহমেদ বিন আলী স্টেডিয়ামে গ্রুপ-এফ এর ম্যাচ গোলশূন্য ড্র হয়। গোটা ম্যাচে দাপটের সঙ্গে খেলেও এবং একের পর এক আক্রমণ করেও বিশ্বকাপের গ্রুপপর্ব থেকে ছিটকে গেল বেলজিয়াম। ১৯৯৮ বিশ্বকাপের পর এই প্রথম গ্রুপপর্ব থেকে বিদায় নিল তারা। এর সঙ্গে শেষ হলো বেলজিয়ামের সোনালি প্রজন্ম। এর জন্য তারা দায়ী করতে পারে শুধু নিজেদের। এমন সব সহজ সুযোগ নষ্ট করেছে বেলজিয়াম, যা চোখে না দেখলে বিশ্বাস করা যায় না। দ্বিতীয়ার্ধে রোমেলু লুকাকু একাই নষ্ট করেছেন একাধিক সুযোগ। একবারও তিনি বল জড়াতে পারেননি ক্রোয়েশিয়ার জালে।

খেলার ধারার বিরুদ্ধে ১৫ মিনিটে পেনালটি পেয়ে যায় ক্রোয়েশিয়া। ক্রামারিচের আঘাতে বক্সের মধ্যে পড়ে যান কারাস্কো। পেনালটি নিয়ে অনেকক্ষণ নাটক চলে। পেনালটি শট নেওয়ার জন্য বল বসান লুকা মদরিচ। কিন্তু রেফারি ভারের সাহায্য নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। একে দেখা যায়, আক্রমণের সময় অফসাইডে ছিলেন ক্রোয়েশিয়ার দেজান লোভরেন। তাই রেফারি পেনালটির সিদ্ধান্ত বাতিল করে বেলজিয়ামকে ফ্রিকিক দেন।

এদিকে মরক্কো দিনের অপর ম্যাচে ২-১ গোলে কানাডাকে হারিয়ে শীর্ষ দল হিসাবে শেষ করেছে গ্রুপপর্ব। তিন ম্যাচ শেষে মরক্কোর পয়েন্ট সাত। দুটি জয় ও একটি ড্রয়ের সুবাদে। সমান ম্যাচে একটি করে জয় ও ড্রয়ে গ্রুপ রানার্সআপ হিসাবে শেষ ষোলোতে জায়গা করে নিয়েছে ২০১৮ রাশিয়া বিশ্বকাপের রানার্সআপ ক্রোয়েশিয়া।

 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন