স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে বসবে দু’পক্ষ

সাদবিরোধীদের দখলে কাকরাইল মসজিদ

প্রকাশ : ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

  যুগান্তর রিপোর্ট

বাংলাদেশে তাবলিগ জামাতের মারকাজ কাকরাইল মসজিদ নিজেদের নিয়ন্ত্রণে নিয়েছে তাবলিগের দিল্লির নিজামুদ্দিন মারকাজের মাওলানা সাদ কান্ধলভীবিরোধী অংশ।

সাদের অনুসারীদের কাকরাইল মসজিদে প্রবেশে বাধা দিচ্ছেন তারা। শনিবার রাতে হামলা-পাল্টাহামলার পর কাকরাইল মসজিদে আর প্রবেশ করতে পারেননি সাদ অনুসারীরা। সমস্যা সমাধানে সোমবার রাতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে বসার কথা রয়েছে দু’পক্ষের।

জানা গেছে, মাওলানা সাদবিরোধী অংশকে সমর্থন দিচ্ছেন হেফাজতে ইসলামপন্থী কওমি আলেমরা। এর আগে, গত জুলাইয়ে এক সমাবেশে সাদ অনুসারীদের তাবলিগের কাজে শূরা ও ফায়সাল না রাখার ঘোষণাও দেয়া হয়েছিল।

এর আগে শনিবার রাতে এশার নামাজের পর সাদের অনুসারী তাবলিগের মুরুব্বিরা কাকরাইল মসজিদে প্রবেশ করতে গেলে বাধার মুখে পড়েন। মাওলানা সাদ কান্ধলভীর অনুসারী শূরা সদস্য সৈয়দ ওয়াসিফুল ইসলামসহ বেশ কয়েক মুরুব্বি ও সাথী হজে গিয়েছিলেন।

হজ থেকে ফিরে মাওলানা মুনীর বিন ইউসুফ ও মাওলানা মুহাম্মদুল্লাহসহ কয়েকজন কাকরাইল মসজিদে প্রবেশের চেষ্টা করলে তারা বাধার মুখে পড়েন। হাতাহাতিতে আহত হন কয়েকজন। মাওলানা সাদের অনুসারী তাবলিগ কর্মী মাওলানা মনসুর আবদুল্লাহ বলেন, ‘রাতে মসজিদের ভেতর থেকে কিছু লোক এসে মুরুব্বিদের ওপর হামলা চালায়।

তাদের সঙ্গে মাদ্রাসার ছাত্ররাও ছিল। মুরুব্বিদের ভেতরে প্রবেশে বাধা দেয়া হয়। হজ শেষে তারা দেশে এসে এ পরিস্থিতির শিকার হয়েছেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘তারা এককভাবে কাকরাইল মসজিদ দখল করে আছে। মসজিদের ভেতর থেকে আমাদের সাথীদের বের করে দিচ্ছেন। আমরা শনিবার রাতেই এ ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়েছি।

রোববার সকাল থেকে আমাদের অনেক সাথী কাকরাইল মসজিদে যেতে চাইলে তাদের ভেতরে যেতে দেয়া হয়নি। তারা গুলিস্তানসহ বিভিন্ন মসজিদে অবস্থান করছে।

জানা গেছে, একাধিকবার চেষ্টা করেও কাকরাইল মসজিদে প্রবেশ করতে পারেননি সাদের অনুসারীরা। রোববার সারা দিন তারা মসজিদের বাইরে অবস্থান নেন। মসজিদের বাইরে বিক্ষোভ করেন রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা সাদ অনুসারীরা। সমস্যা সমাধানে দু’পক্ষকে নিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বসার কথা রয়েছে বলে জানা গেছে।

এদিকে সাদবিরোধীদের অভিযোগ, কাকরাইল মসজিদ দখলের চেষ্টা করেছিল সাদ অনুসারীরা। তাদের বাধায় কাকরাইল মসজিদের বাইরে অবস্থান নেন সাদ অনুসারীরা।

সাদবিরোধী পক্ষের নেতৃত্বে থাকা ইঞ্জিনিয়ার মোশারফ হোসেন যুগান্তরকে বলেন, তারা অবৈধভাবে জায়গা দখল করতে আসলে আমরা বাধা দিয়েছি।