গ্রেনেড হামলা মামলায় যুক্তিতর্ক উপস্থাপনে রাষ্ট্রপক্ষ

আসামিদের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা হওয়া উচিত ছিল

  যুগান্তর রিপোর্ট ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁসুলি মোশাররফ হোসেন কাজল বলেছেন, হামলার সঙ্গে আসামিদের মিউচুয়াল ইন্টারেস্ট কাজ করেছে। আর সেই ইন্টারেস্ট হল ‘রাজনীতি’। ক্ষমতার বস্ত্রে আজীবন থাকার জন্য রাষ্ট্রীয় সর্বোচ্চ জায়গায় যারা ছিলেন, তারা কি ভয়াবহ কাজটাই না করেছেন! যা ফারদার ইনভেস্টিগেশনে (অধিকতর তদন্ত) বেরিয়ে এসেছে। মুফতি হান্নানের স্বীকারোক্তিতেও আমরা জানতে পেরেছি। এদের (আসামিদের) বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের মামলা হওয়া উচিত ছিল। তারা শুধু যুদ্ধ ঘোষণাই নয়, নিরস্ত্র-শান্তিপ্রিয় মানুষের ওপর যুদ্ধও করেছে আর্চেজ গ্রেনেড দিয়ে। বিদেশ থেকে তারেক রহমান বলেছেন, ভ্যানিটি ব্যাগে গ্রেনেড রাখা হয়েছিল। তার এত লাগে কেন? কারণ তিনি জড়িত ছিলেন। বাঙালি জাতির ওপর এ হামলা করা হয়েছে। মঙ্গলবার ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলায় ল’ পয়েন্টে যুক্তিতর্ক উপস্থাপনে আদালতে তিনি এসব কথা বলেন। ঢাকার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-১-এর বিচারক শাহেদ নূর উদ্দিনের আদালতে যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করা হয়। এদিন তিনি ল’ পয়েন্টে যুক্তিতর্ক শেষ করলেও রাষ্ট্রপক্ষে পাবলিক প্রসিকিউটর শুরু করেন। আর তার যুক্তিতর্ক উপস্থাপন অব্যাহত থাকায় পরবর্তী যুক্তিতর্কের জন্য আদালত আজ দিন ধার্য করেন। এ নিয়ে মামলায় ১১৬তম দিন যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করা হল। এদিন সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবর, এনএসআইয়ের (জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা সংস্থা) সাবেক দুই মহাপরিচালক (ডিজি) মেজর জেনারেল (অব.) রেজ্জাকুল হায়দার চৌধুরী ও ব্রিগেডিয়ার (অব.) আবদুর রহিম, সাবেক উপমন্ত্রী আবদুস সালাম পিন্টুসহ কারাগারে থাকা ২৩ আসামিকে আদালতে হাজির করা হয়।

দুপুর ১২টা ১ মিনিটের দিকে আদালতের কার্যক্রম শুরু হয়। শুরুতেই রাষ্ট্রপক্ষে ল’ পয়েন্টে যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করেন আইনজীবী মোশাররফ হোসেন কাজল। তিনি বলেন, প্রত্যেক আসামি ষড়যন্ত্র করেছেন। কারণ তাদের প্রত্যেকের নিজ নিজ স্বার্থ এখানে (হামলার সঙ্গে) আছে। এখানে হুকুমের বিষয় আছে। এখানে ‘বস’ (তারেক রহমান) আছেন। চারদলীয় ঐক্যজোট সরকার সেখানে কাজ করেছে। ষড়যন্ত্র হল একটা ছাতার মতো। এর চারপাশে অনেকগুলো শির থাকে। আর এ শিরগুলো হল নানান জন (আসামিরা)।

তিনি বলেন, ক্রিমিনাল অ্যাকটিভিটিজের জন্য আসামিদের পূর্বপ্রস্তুতি ছিল। মুফতি হান্নানসহ আসামিরা নুর আলী স্টেট, আবদুস সালাম পিন্টুর বাসভবন আর সবশেষে হাওয়া ভবনে গেলেন। আর হাওয়া ভবন হল সর্বময় ক্ষমতার অধিকারী।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter